• 21 Jul, 2024

জমে উঠেছে নড়াইলের মাইজপাড়া বাজার বণিক সমিতির নির্বাচন: চলছে অস্থিত্বের লড়াই!

জমে উঠেছে নড়াইলের মাইজপাড়া বাজার বণিক সমিতির নির্বাচন: চলছে অস্থিত্বের লড়াই!

মাইজপাড়া বাজার বণিক সমিতির ভোটগ্রহণ আগামি ২৯ জুলাই শনিবার, ভোট হবে অবাদ নিরেপক্ষ ও দলীয় প্রভাবমুক্ত। নির্বাচনী প্রচারণায় ও ভোটগ্রহণের দিনে সহিংসতা ঠেকাতে সবধরণের প্রস্তুতি রয়েছে নির্বাচন পরিচালনা কমিটির। বহিরাগত প্রভাবমুক্ত রাখতেও রয়েছে নানা প্রস্তুতি।

স্টাফ রিপোর্টার ॥ নড়াইল জেলায় বর্তমান বৃহত্তম বাজার নড়াইল সদরের মাইজপাড়া বাজার। এ বাজারের একশতক জমির মূল্য জেলা শহরের একশতক জমির মূল্য থেকে দিগুণ বেশি। এ ইউনিয়নে বসবাসকারি ও ব্যবসায়ীরা অধিকাংশ পরিবার অর্থ-সম্পদে সমৃদ্ধ এবং ব্যবসায়ী মানসিকতার মানুষ।

আগামি ২৯ জুলাই ২০২৩ শনিবার জেলা সদরের এই মাইজপাড়া বাজার বণিক সমিতির নির্বাচনকে ঘিরে ইতিমধ্যে উৎসবমূখর পরিবেশে জমে উঠেছে প্রচার-প্রচারণা। প্রার্থীরা যার যার সমর্থকদের সাথে নিয়ে ভোটারদের দোকানে দোকানে গিয়ে ভোট প্রার্থনা করছেন। প্রতিশ্রুতি দিচ্ছেন নির্বাচিত হলে বাজারের সার্বিক উন্নয়নে সহায়তা করবেন এবং ব্যবসায়ীদের সুখে-দু:খে সবসময় থাকবেন। এমন প্রচারণা প্রতিদিন বিকাল থেকে রাত ১০-১১টা চালাচ্ছেন প্রার্থীরা।

সরেজমিনে গিয়ে জানাযায়, এ নির্বাচনে সভাপতি পদে ২জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দিতা করছেন, এরমধ্যে বর্তমান মাইজপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান মো: জসিম মোল্যা এবং অন্য প্রার্থী হলেন সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান মো: জিল্লুর রহমান, সহ-সভাপতি পদে ২ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দিতা করছেন, এরমধ্যে মুক্তার হোসন এবং উজ্জ¦ল মোল্যা, সাধারণ সম্পাদক পদে ৪ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দিতা করছেন, এরমধ্যে রয়েছেন আশরাফুল আলম হান্নান, মো: খায়রুল ইসলাম খোকন, মো: বদরুজ্জামান এবং তরিকুল ইসলাম, সহ-সম্পাদক পদে ২ জন প্রার্থী , এরমধ্যে আনন্দ কুন্ডু এবং মো: জিয়াউর রহমান, কোষাধ্যক্ষ পদে ২জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দিতা করছেন, এরমধ্যে একজন রফিকুল ইসলাম এবং কিশোর কর্মকর এবং সদস্য পদে প্রতিদ্বন্দিতা করছেন ১১ জন প্রার্থী নির্বাচিত হবে ১০ জন। সদস্য পদে যারা প্রতিদ্বন্দিতা করছেন তারা হলেন, শিমুল মোল্যা, পলাশ ভুঁইয়া, বাচ্চু মোল্যা, আমিনুর রহমান, প্রদীপ কুমার সাহা, মুকুল মোল্যা, আব্দুল্লাহ শিমুল, অবতার রায়, কবির হোসেন, আবু হাসান মোল্যা এবং প্রভাত কুমার দে। 

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন মাইজপাড়া বাজার বণিক সমিরি নির্বাচন পরিচালনা কমিটির আহবায়ক মো: নাজের হোসেন।  

মাইজপাড়া বাজার বণিক সমিতি নির্বাচন পরিচালনা কমিটির আহবায়ক মো: নাদের হোসেন জানান, ইতিপূর্বে এ বাজার বণিক সমিতির কমিটি গঠনে কখনও এভাবে সরাসরি ভোটের মাধ্যমে মাধ্যমে হয়নি, বরাবরই আলোচনা ও সমঝোতার মধ্যদিয়ে হয়ে আসার রেওয়াজ ছিলো। এবার আমাকে নির্বাচনী কমিটির আহবায়ক করা হয়েছে এবং প্রিজাইডিং অফিসার হিসেবে থাকবেন সদর উপজেলার সমাজসেবা কর্মকর্তা উত্তম কুমার।

তিনি জানান, এ সমিতিতে মোট ভোটার রয়েছে ৩৬৬ জন এবং বিভিন্ন পদে মোট প্রার্থী রয়েছেন ২৩ জন। ইতিমধ্যে নির্বাচনী তপসিল ঘোষণা ও তারপবর্তী কার্যক্রম সম্পন্ন করে প্রতিক বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। প্রতিক বরাদ্দ পেয়ে প্রার্থীরা যার যার অবস্থান থেকে স্ব স্ব বিজয়ের লক্ষ্যে প্রচার-প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন।  

তিনি আরও জানান, এ বাজার কমিটি নির্বাচন হবে দলীয়মুক্ত ও শান্তিপূর্ণভাবে। নির্বাচনে কোন অপ্রিতিকর ঘটনা ঘটার কোন সম্ভাবনা নেই। নির্বাচনে বাইরের কোন হস্তক্ষেপ হতে দেয়া হবে না সে ব্যাপারে আমাদের সবধরনের ব্যবস্থা নেয়া আছে।

সভাপতি পদপ্রার্থী বর্তমান মাইজপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো: জসিম মোল্যা বলেন, মাইজপাড়া বাজার বণিক সমিতির সভাপতি পদে আমি প্রতিদ্বন্দিতা করছি। নির্বাচন সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে হবে। কোন অপ্রিতিকর পরিস্থিতি তৈরী এ বাজারকে নিয়ে হবে না। আমি আশাবাদী বাজারের ব্যবসায়ীদের সর্মথনে নিশ্চিত জয়লাভ করবো ইনশাল্লাহ। নির্বাচিত হলে বাজারের বিভিন্ন উন্নয়ন ও সকল ব্যবসায়ীদের সুখে-দু:খে পাশে থাকবো।

একই পদে মাইজপাড়া সাবেক চেয়ারম্যান মো: জিল্লুর রহমান বলেন, নির্বাচন সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে হবে ইনশাল্লাহ নিশ্চিত বিজয় হবে। নির্বাচিত হলে বাজারের বিভিন্ন উন্নয়ন ও সকল ব্যবসায়ীদের সুখে-দু:খে পাশে থাকবো।    

আশরাফুল আলম হান্নান বলেন, মাইজপাড়া বাজার বণিক সমিতির আমি একজন সাধারণ সম্পাদক পদপ্রার্থী। আশা করছি ব্যবসায়ীদের দোয়া ও সমর্থনে ইনশাল্লাহ নিশ্চিত জয়লাভ করবো। আমি নির্বাচিত হলে বাজারের বিভিন্ন উন্নয়ন ও সকল ব্যবসায়ীদের সুখে-দু:খে পাশে থাকবো।

সাধারণ সম্পাদক পদপ্রার্থী মো: খায়রুল ইসলাম খোকন বলেন, বিজয়ের ব্যাপারে আমি নিশ্চিত আশাবাদী। নির্বাচিত হতে পারলে বাজারের বিভিন্ন উন্নয়ন কাজে সহায়তা করবো।  

সাধারণ সম্পাদক পদপ্রার্থী মো: বদরুজ্জামান বলেন, বিজয়ের ব্যাপারে আমি নিশ্চিত আশাবাদী। নির্বাচিত হতে পারলে বাজারের বিভিন্ন উন্নয়ন কাজে সহায়তা করবো।

কোষাধ্যক্ষ পদপ্রার্থী রফিকুল ইসলাম বলেন, বিজয়ের ব্যাপারে আমি নিশ্চিত আশাবাদী। নির্বাচিত হতে পারলে বাজারের বিভিন্ন উন্নয়ন কাজে সহায়তা করবো।