• 01 Mar, 2024

তরুণদের অনুপ্রেরণার বাতিঘর শেখ কামাল : চসিক মেয়র

তরুণদের অনুপ্রেরণার বাতিঘর শেখ কামাল : চসিক মেয়র

শেখ কামাল তরুণদের অনুপ্রেরণার বাতিঘর হয়ে আলো ছড়াবেন বলে মন্তব্য করেছেন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের (চসিক) মেয়র মো. রেজাউল করিম চৌধুরী।

শনিবার (৫ আগস্ট) চসিকের টাইগারপাস কার্যালয়ে শেখ কামালের ৭৪তম জন্মবার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষ্যে খতমে কোরআন, দোয়া মাহফিল ও আলোচনা সভায় এ মন্তব্য করেন তিনি।

মেয়র বলেন, যুদ্ধবিধ্বস্ত বাংলাদেশ পুনর্গঠন ও পুনর্বাসন কর্মসূচির পাশাপাশি সমাজের পশ্চাৎপদ জনগোষ্ঠীর ভাগ্য উন্নয়নে সমাজ চেতনায় উদ্বুদ্ধকরণে মঞ্চনাটক আন্দোলনের ক্ষেত্রে শেখ কামাল ছিলেন প্রথম সারির সংগঠক। গড়ে তুলেছিলেন ঢাকা থিয়েটার ও ‘স্পন্দন’ শিল্পী গোষ্ঠী এবং উপমহাদেশের অন্যতম ক্রীড়া সংগঠন আবাহনী ক্রীড়াচক্র। মাত্র ২৬ বছরেই যে কীর্তিমান জীবন তিনি গড়েছেন তার মাধ্যমে তিনি বেঁচে থাকবেন তরুণদের রোল মডেল হিসেবে।

শেখ কামাল সংস্কৃতিচর্চাকে সমাজ বদলের হাতিয়ার হিসেবে কাজে লাগাতে চেয়েছিলেন উল্লেখ করে মেয়র বলেন, সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডকে বেগবান করতে ১৭ আগস্ট উনার চট্টগ্রাম আসার কথা ছিল। এ কারণে ১৪ আগস্ট রাতেও বিশিষ্ট সাংবাদিক নুর ইসলামের বাসার ল্যান্ডফোন থেকে উনার সঙ্গে কথা হয় আমার। পরদিন উনাকে নির্মমভাবে হত্যা করা হয়। সাংগঠনিক কর্মকাণ্ডের কারণে উনার সঙ্গে মেশার সুযোগে যে অভিজ্ঞতা পেয়েছি তা থেকে বলতে পারি, উনি ছিলেন নিরহংকারী ও অত্যন্ত কোমল হৃদয়ের মানুষ। সমাজের ইতিবাচক বিকাশে ক্রীড়া ও সংস্কৃতিচর্চার ভূমিকা উনি খুব ভালভাবে অনুভব করতে পেরেছিলেন বলেই সারা দেশে তরুণদের মাঝে ছড়িয়ে দিতে চেয়েছিলেন সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডকে। উনি যে পরিকল্পনা নিয়েছিলেন তা সফল হলে আজ দেশে মৌলবাদ, সাম্প্রদায়িকতা, জঙ্গিবাদ আর  সংকীর্ণতা নির্মূল হতো এবং বাংলাদেশ হয়ে উঠত বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলায়।

চসিক সচিব খালেদ মাহমুদের সভাপতিত্বে সভায় অংশ নেন প্যানেল মেয়র গিয়াস উদ্দিন, ড. নিছার উদ্দিন আহমেদ মঞ্জু, মোহাম্মদ সলিম উল্ল্যাহ বাচ্চু, হাসান মুরাদ বিপ্লব, মো. ইসমাইল, আবদুস সালাম মাসুম, আতাউল্লা চৌধুরী, পুলক খাস্তগীর, প্রধান শিক্ষা কর্মকর্তা লুৎফুন নাহার, মেয়রের একান্ত সচিব ও প্রধান পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা মুহাম্মদ আবুল হাশেম, শিক্ষা কর্মকর্তা উজালা রানী চাকমা, তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী ঝুলন কুমার দাশ, উপ-সচিব আশেক রাসুল টিপু এবং ম্যালেরিয়া ও মশক নিয়ন্ত্রণ কর্মকর্তা মো. শরফুল ইসলাম মাহি।