• 25 Apr, 2024

নড়াইলে শিক্ষকের বিরুদ্ধে সহকারী শিক্ষিকাকে যৌন হয়রানির অভিযোগ

নড়াইলে শিক্ষকের বিরুদ্ধে সহকারী শিক্ষিকাকে যৌন হয়রানির অভিযোগ

নড়াইল: নড়াগাতি থানার রামনগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকাকে যৌন হয়রানি করার অভিযোগউঠেছে স্কুলের প্রধান শিক্ষক রফিকুল ইসলামের বিরুদ্ধে।

 ঘটনায় কালিয়া উপজেলা শিক্ষা অফিসে  সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করেছেন।হয়রানির স্বীকার শিক্ষিকা নিরাপত্তার স্বার্থে এখন মাকে সাথে নিয়ে স্কুলে আসেন।প্রধান শিক্ষক রফিকুল ইসলাম বাঐসোনা ইউনিয়নের যোগানিয়া গ্রামের মৃত সাখায়েত হোসেনের ছেলে।

ভূক্তভোগি শিক্ষিকার মা জানানপ্রধান শিক্ষক রফিকুল ইসলাম বিভিন্ন সময় আমার মেয়েকে বিয়ের প্রস্তাবসহ অশ্লীল কথাবার্তা বলে উত্তক্ত করে থাকেন। এমনকি নানা অজুহাতে তার শরীরে হাত দেয়ার চেষ্টা করেন।প্রতিবাদ করলে স্থানিয় প্রভাবশালি লোকদের ভয়ভীতি দেখান। আমার মেয়ে অবিবাহিত হওয়ায় মান-সম্মানের দিকে তাকিয়ে কাউকে কিছু বলতে পারিনি। তাই নিরাপত্তার স্বার্থে আমাকে তার সাথে স্কুলে আসতে হয়।

ভূক্তভোগি শিক্ষিকা বলেনগত ২৭ জুন টিফিনের সময় আমি একা অফিস রুমে থাকায় হেডমাষ্টার আমার সামনে বসে অশ্লীল কথা বলতে থাকে  আমার হাত ধরেন।আমি হাত ছাড়িয়ে অফিস থেকে বেরিয়ে চলে যাই এবং  ঘটনায় প্রধান শিক্ষকের শাস্তি দাবি করে উপজেলা শিক্ষা অফিসার বরাবরে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছি।

 বিষয়ে গত শনিবার( আগস্টদুপুরে প্রধান শিক্ষক রফিকুল ইসলামের কাছে জানতে চাইলে কোন জবাব না দিয়ে দ্রুত স্কুল থেকে বের হয়ে যান। একটু দুরে যেয়ে কার সাথে মোবাইলে কথা বলতে থাকেন।সাংবাদিকরা স্কুল থেকে বেরিয়ে গেলে কিছুক্ষন পর তিনি আবার স্কুলে ফিরে আসেন।পরে আবারো সাংবাদিকরা ঘটনার বিষয় জানতে চাইলে তিনি ইউনিয়নের চেয়ারম্যানের বরাত দিয়ে বলেন চেয়ারম্যান  বিষয়ে আমাকে সাংবাদিকদের সাথে কথা বলতে নিষেধ করেছেন।

কালিয়া উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার স্বপন কুমার দাস জানান শিক্ষিকার একটি লিখিত অভিযোগ আমি পেয়েছি।  বিষয়ে  সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।তদন্ত প্রতিবেদন হাতে পেলে বিধি মোতাবেক ব্যবস্থ নেয়া হবে।