• 16 Jul, 2024

লোহাগড়ার ব্রাক্ষ্মণডাঙ্গা বাজারে তাইজেল-নাজির গ্রুপের মধ্যে মারামারি

লোহাগড়ার ব্রাক্ষ্মণডাঙ্গা বাজারে তাইজেল-নাজির গ্রুপের মধ্যে মারামারি

নড়াইলে লোহাগড়ার ব্রাক্ষ্মণডাঙ্গা বাজারে আধিপত্য নিয়ে তাইজেল-নাজির গ্রুপের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে।

বৃহস্পতিবার (২০ এপ্রিল) দুপুরে ব্রাক্ষ্মণডাঙ্গা বাজারে আধিপত্য নিয়ে তাইজেল-নাজির গ্রুপের মধ্যে এ মারামারি হয়। এ ঘটনায় কমপক্ষে ১২/১৩ জন আহত হয়েছে। আহতদের মধ্যে আনিস ওরপে কানু ও মটুক নামে দুইজন মারাত্বক আহত হয়। আহতদের নড়াইল সদর হাসপাতালে নেয়া হয়েছে।

 

এলাকার সূত্র মতে, ব্রাক্ষ্মণডাঙ্গা, চর ব্রাক্ষ্মণডাঙ্গা, বাড়িভাঙ্গা ও হান্দলা এই চার গ্রামের গ্রুপিং/দলাদলি কছেশ যুগ ধরে চলে আসছে। এই চার গ্রামের মধ্যে দুটি গ্রুপ রয়েছে। সূত্রমতে জানা যায়, ঈদ ও পাট মাথা সমান হলেই এলাকার মানুষের মাথা চাঙ্গা হয়ে উঠে। মাথায় গামছা বেধে ঢাল-সড়কি হাতে নিয়ে কাইজে করতে মাঠে নেয়ে যায়। এতে জানমালের ব্যাপক ক্ষতিও হয় প্রতিবছর।

নাম প্রকাশে অনইচ্ছুক এমন সূত্র থেকে জানাযায়, এই চার গ্রামে এ যাবতকাল যত দাঙ্গা-মারামারি, খুন-জখম, লুট-পাট, বাড়ি-ঘর ভাঙ্গচুর হয়েছে তার বেশিরভাগই নিরিহ মানুষরা তার শিকার। কিন্তু যারা এই দুটি গ্রুপকে লিড দেয় তাদের কোন একটি বাড়ির একটি বেড়ায় দাগ পড়েনি। বরং তাদের এমন একটি দিনের অপেক্ষায় থাকে। এ থেকে তাদেরও বাণিজ্য হয় বলে ওই সূত্র মনে করেন।  

তিনি জানান, প্রয়োজন হলে আপনারা খোঁজখবর নিয়ে দেখতে পারেন। আর এই ৪টি গ্রামে যারা নেতৃত্ব দেয় তারা হলো- ব্রাক্ষ্মণডাঙ্গা গ্রামের তাইজুল, জনি মোল্যা, মাহাবুর, হুমায়ূন, চর ব্রাক্ষ্মণডাঙ্গার আহাদ, নাজির মোল্যা, শিপন, আবু মেম্বর (সাবেক ইউপি মেম্বর), বাড়িভাঙ্গা গ্রামের সাখাওয়াৎ , এনায়েত ও লাভলু, হান্দলা গ্রামের বোরাক (সাবেক ইউপি মেম্বর), জাকির, আকছির (বর্তমান মেম্বর)।  

এলাকা ঘুরে আরও জানাযায়, ঈদকে সামনে রেখে তাইজেল-নাজির গ্রুপের আধিপত্য বিস্তার আরও তুঙ্গে উঠার সমূহ সম্ভাবনা রয়েছে।