• 22 Apr, 2024

ক্রীড়া প্রতিযোগিতার মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের মধ্যে নেতৃত্বের বিকাশ ঘটবে-এম এ মান্নান মনির

ক্রীড়া প্রতিযোগিতার মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের মধ্যে নেতৃত্বের বিকাশ ঘটবে-এম এ মান্নান মনির

প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান ঢাকা আইডিয়াল ক্যাডেট স্কুল ঢাকা আইডিয়াল ক্যাডেট স্কুলের বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা, পুরুস্কার বিতরণী ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে।

 শনিবার সকাল ৮:০০টায় শুরু হয়ে সন্ধ্যা ৬:০০ পর্যন্ত রায়ের বাজার বৈশাখী খেলার মাঠে ঢাকা আইডিয়াল ক্যাডেট স্কুলের উদ্যোগে সুস্থ দেহে, সুন্দর মন বিরাজ করে সারাক্ষণ। ক্রীড়া শক্তি, ক্রীড়াই বল, শিক্ষা নিয়ে গড়বো দেশ, শেখ হাসিনার বাংলাদেশ এই স্লোগোনে বিদ্যালয়ের বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। ঢাকা আইডিয়াল ক্যাডেট স্কুলের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান এম এ মান্নান মনিরের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন জনাব শেখ মোহাম্মদ হোসেন খোকন, সম্মানিত কাউন্সিলর, ৩৪ নং ওয়ার্ড, ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন । অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন বীরমুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল ইসলাম খন্দকার, সাবেক শিক্ষা কর্মকর্তা। অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন জনাবা মোছা: মমতাজ বেগম, থানা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার, মোহাম্মদপুর, ঢাকা। অনুষ্ঠানে প্রধান আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জনাব মো: রাজু আহম্মেদ, থানা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার, মোহাম্মদপুর, ঢাকা। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মাহবুবাহ্ বেগম, সহকারী থানা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার, মোহাম্মদপুর, ঢাকা। জনাব মো: আনোয়ারুল ইসলাম, সহকারী থানা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার, মোহাম্মদপুর, ঢাকা। জনাব মো: হাবিবুর রহমান, প্রক্টর পিপলস্ ইউনিভার্সিটি অফ বাংলাদেশ, প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ঈঝডচউ ঋড়ঁহফধঃরড়হ । জনাব প্রফেসর মো: হুমায়ুন কবির, অধ্যক্ষ, মিশন ইন্টারন্যাশনাল কলেজ। জনাব প্রফেসর মো: সফিকুল ইসলাম স্বপন, অধ্যক্ষ, ইনস্টিটিউট অব বিজনেস এন্ড টেকনোলজি। জনাব রেজাউল করিম, প্রোগ্রাম ম্যানেজার যাকাত ফাউন্ডেশন অফ আমেরিকা। জনাব জহুরুল আলম জাবেদ, ব্যবস্থাপনা সম্পাদক, আপনার স্বাস্থ্য। জনাব শাহীদ আলম চৌধুরী প্রোগ্রাম কো অর্ডিনেটর, ইউগ্লোনা কর্পোরেশন লিমিটেড,। জনাব মো: আলাউদ্দিন, সাংগঠনিক সম্পাদক, বাংলাদেশ কিন্ডারগার্টেন স্কুল এন্ড কলেজ এসোসিয়েশন। জনাব তকবির আহমেদ, আহবায়ক, বাংলাদেশ ফ্রেন্ডশীপ কিন্ডারগার্টেন সোসাইটি। জনাবা গাউস পিয়ারী পরিচালক, ওয়ার্ক ফর এ ব্যাটার বাংলাদেশ ট্রাস্ট। ফারুক আহম্মেদ, মহাসচিব, বাংলাদেশ ফ্রেন্ডশীপ কিন্ডারগার্টেন সোসাইটি। জনাব গোলাম কিবরিয়া অপু, প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি, শৈশবমেলা বাংলাদেশ। জনাবা ইফফাত আরা আরজু, প্রোগ্রাম অফিসার, এস এম ডি এফ। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি প্রধান অতিথির বক্তব্যে ৩৪ নং ওয়ার্ডের সম্মানিত কাউন্সিলর জনাব শেখ মোহাম্মদ হোসেন খোকন বলেন- শিক্ষার্থীদের লেখাপড়ার পাশাপাশি বিভিন্ন সহশিক্ষা কার্যক্রম ও সৃজনশীল কাজে অংশগ্রহণ, চারিত্রিক বিকাশ ও মানবিক মূল্যবোধসম্পন্ন নাগরিক হিসেবে গড়ে ওঠার ওপর গুরুত্বারোপ করেন। তথ্যপ্রযুক্তিতে জ্ঞান ও দক্ষতা অর্জন করে আধুনিক বিশ্বের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করার জন্য শিক্ষার্থীদের উপদেশ দেন তিনি। তিনি মাদক ও কিশোর গ্যাং এর সাথে যাথে করে শিক্ষার্থীরা যুক্ত না হতে পারে সে জন্য অভিভাবকগণকে সচেতন হবার আহবান জানান। তিনি ঢাকা আইডিয়াল ক্যাডেট স্কুলের সার্বিক উন্নতি কামনা করেন এবং শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটিকে স্থায়ীভাবে নিজস্ব জায়গায় পরিচালনা করার জন্য সহায়তার আশ্বাস দেন। অনুষ্ঠানের উদ্বোধক বীবমুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল ইসলাম খন্দকার, সাবেক শিক্ষা কর্মকর্তা বলেন মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় নতুন প্রজন্মকে গড়ে তুলতে হবে। তাই তিনি প্রত্যেক বাবা মাকে সন্তানদের মানবিক মূল্যবোধ সম্পন্ন হিসেবে গড়ে তোলার আহবান জানান। থানা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মোছা: মমতাজ বেগম বলেন সরকারী শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পাশাপাশি বেসরকারী শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো শিক্ষার জন্য যথেষ্ট অবদান রেখে চলছে। মেধাবী শিক্ষার্থীদের লেখা পড়ার পাশাপাশি নৈতিকমূল্যবোধ সম্পন্নভাবে গড়ে তোলার জন্য তিনি আহবান জানান। তাই মেধাবী শিক্ষার্থীদের শিক্ষার পাশাপাশি মেধার বিকাশ ঘটাতে খেলাধুলা ও বিনোদনের প্রয়োজন রয়েছে বলে মন্তব্য করেন। থানা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার জনাব মো:রাজু আহম্মেদ বলেন আজকের শিশুরাই আগামীতে নেতৃত্ব দেবে। ভাল ফলাফলের জন্য লেখা পড়ার পাশাপাশি সহশিক্ষা কার্যক্রমে অংশ গ্রহণ ও চারিত্রিক উন্নতির জন্য বর্তমান প্রজন্মকে শারিরীক ও মানসিকভাবে প্রস্তুত করে গড়ে তুলার বিকল্প নেই। তিনি শিক্ষার্থীদের মা বাবাকে সন্তানের লেখাপড়ার প্রতি যত্ন নেবার জন্য বিশেষভাবে অনুরোধ জানান। তিনি বলেন নতুন শিক্ষা কারুকুলাম অনুযায়ী ঢাকা আইডিয়াল ক্যাডেট স্কুলের শিক্ষকদের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করবেন। অনুষ্ঠানের সভাপতি এম এ মান্নান মনির বলেন- নেপোলিয়ন বলেছিলেন তুমি আমাকে একটি শিক্ষিত মা দাও, আমি তোমাকে শিক্ষিত জাতি দেব। আমাদের সন্তানরা একদিন মা হবে তারা যদি সুশিক্ষা শিক্ষা গ্রহন করে, তবে তারা একটি শিক্ষিত জাতি দেবে ও তবেই আমরা সোনার বাংলা গড়ে তুলতে পারব। যেটা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান স্বপ্ন দেখেছিলেন। শিক্ষার্থীদেরকে প্রথমেই ভালো মানুষ হতে হবে। দেশের সেবা করতে হবে। শিক্ষকদের মান্য করতে হবে। নৈতিক মূল্যবোধ সম্পন্ন সুনাগরিক হিসেবে গড়ে তুলতে হবে। তিনি আর বলেন- শিক্ষাই জাতির মেরুদণ্ড, জাতির এই মেরুদণ্ড যদি সোজা থাকে তাহলে জাতি অনেক বেশি সোজা হয়ে হাঁটতে পারবে।আর সে জন্যই বর্তমান সরকার প্রাথমিক শিক্ষার প্রতি অনেক বেশি গুরুত্ব দিচ্ছে। তিনি তার প্রতিষ্ঠানটিকে কলেজে রূপান্তরিত করার জন্য সরকারের নিকট সহায়তা কামনা করেন। আলোচনা শেষে শিক্ষার্থীদের মাঝে পুরষ্কার তুলে দেন প্রধান অতিথিসহ আমন্ত্রিত অতিথিরা। অনুষ্ঠান শেষে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।