• 15 Jun, 2024

কবর বাঁধাই করা ইসলামের দৃষ্টিতে সম্পূর্ণ নিষেধ রয়েছে -মুফতি ওয়াকিউজ্জামান

কবর বাঁধাই করা ইসলামের দৃষ্টিতে সম্পূর্ণ নিষেধ রয়েছে -মুফতি ওয়াকিউজ্জামান

স্টাফ রিপোর্টার ॥ নড়াইল পৌরসভার কেন্দ্রীয় কবরস্থান উন্নয়ন প্রকল্প নিয়ে কবরাবাসী পরিবারের লোকজন নিয়ে এক মতবিনিময় অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১১ মে) বিকাল সাড়ে ৫টায় পৌর সভা সম্মেলন কক্ষে মেয়র আঞ্জুমান আরার সভাপতিত্বে এ মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়।

এ সময় ‘নড়াইল পৌর কেন্দ্রীয় কবরস্থান উন্নয়ন প্রকল্প ও বর্তমান কবরস্থানের সার্বিক অবস্থা তুলে ধরে বক্তব্য দেন  পৌর মেয়র আঞ্জুমান আরা।

তিনি বলেন, বর্তমান এই কবরস্থানে যে অবস্থা তাতে করে আর কিছুদিন পর এখানে আর কোন মৃত্যু ব্যক্তির লাশ দাফন কার্যসম্পূন্ন করা সম্ভব হবে না। এই পরিস্থিতি বিবেচনা করে এবং ইসলাম ধর্মের বিধান অনুসরণ করে নড়াইল পৌর কবরস্থানে কবরের নামখচিত ফলকচিহ্ন অপসন রেখে বাঁধায় করা সকল কবর অপসরণ করে মসৃণ ও সমান্তরল কবরস্থানে রূপান্তর করার লক্ষ্যে একটি প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে। সম্মানিত উপস্থিতির মতামত ও পরামর্শে এই প্রকল্প বাস্তয়ন করা হবে।            

এ সময় কবরবাসী পরিবারের পক্ষ থেকে বক্তব্য রাখেন, নড়াইল শহরের মরহুম নূর মোহাম্মদ মোল্যার ছেলে বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মো: আজহারুল ইসলাম, মরহুম আজিজুর রহমানের ছেলে বিশিষ্ট ব্যবসায়ী সাইফুর রহমান হিট্টু, কাজী ইসমাইল হোসেন লিটন, তারিকুজ্জামান লিটু প্রমুখ।

বক্তারা বলেন, বাঁধাই কবর ভাঙ্গলে আমরা পরিবারের মানুষ ভিষন কষ্ট পাবো। প্রয়োজনে পৌরসভা তার অর্থায়নে কবরস্থানের জন্য বিকল্প জায়গা নেন। শেষ মূহুর্তে বাপ-দাদার কবর নিয়ে টানা-টানি করবেন না। এসব করলে আমরা বাঁধা দেবো তাতে পুলিশ দিয়ে গ্রেফতার করাবেন করাইনে। আমরা পারলেও দেখবো।  

মৃত্যু ব্যক্তির কবর বাঁধাই সম্পর্কে ইসলামের দৃষ্টিতে ব্যাখ্যা প্রদান করেন, নড়াইল কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের খতিব মুফতি মাওলানা ওয়াকিউজ্জামান এবং সদর উপজেলা পরিষদ জামে মসজিদের ইমান মাও. আব্দুর রশীদ আহম্মেদ।

ইসলামী দৃষ্টিতে খতিব মুফতি মাওলানা ওয়াকিউজ্জামান বলেন, ইসলামের দৃষ্টিতে কবর ইট পাথর দিয়ে বাঁধেই করা ইসলামে নিষেধ রয়েছে। নতুন কবরের নিশানা ঠিক রাখতে একটি নামখচিত ফলকচিহ্ন রাখা যেতে পারে। 

অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য দেন, প্যানেল মেয়র কাজী জহিরুল হক, কাউন্সিলর রেজাউল বিশ্বাস, মিসকাত লিটু  প্রমুখ।