• 24 Feb, 2024

উদ্বোধন হলো দেশের সবচেয়ে বড় বায়ুবিদ্যুৎ কেন্দ্র

উদ্বোধন হলো দেশের সবচেয়ে বড় বায়ুবিদ্যুৎ কেন্দ্র

কক্সবাজারে দেশের সবচেয়ে বড় বায়ুবিদ্যুৎ কেন্দ্রের উদ্বোধন করা হয়েছে। ৬০ মেগাওয়াট ক্ষমতার এই কেন্দ্র থেকে উৎপাদিত বিদ্যুৎ এরই মধ্যে জাতীয় গ্রিডে যুক্ত হয়েছে।

গ্রিডে যুক্ত হওয়া বিদ্যুতের পরিমাণ ৩০ মেগাওয়াট। চীনের অর্থায়নে নির্মিত ৬০ মেগাওয়াট ক্ষমতার কেন্দ্রটি পূর্ণ উৎপাদনে যাবে চলতি বছরের ডিসেম্বর মাস থেকে। গতকাল রাজধানীর ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি বসুন্ধরায় এই বিদ্যুৎ কেন্দ্রের উদ্বোধন করা হয়। এই বায়ুবিদ্যুৎ প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করছে ইউএস-ডিকে গ্রিন এনার্জি বাংলাদেশ লিমিটেড নামের একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠান। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বাংলাদেশে নিযুক্ত চীনের নতুন রাষ্ট্রদূত ইয়াও ওয়েন বলেন, এ ধরনের প্রকল্প ২০৪১ সালের মধ্যে ৪০ শতাংশ নবায়নযোগ্য জ্বালানি উৎপাদনে বাংলাদেশের লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে ভূমিকা রাখবে। চীনের সহযোগিতায় দেশে বেশকিছু সৌরবিদ্যুৎ প্রকল্পও চলমান আছে।

 তিনি আরও বলেন, বিদ্যুৎ জ্বালানি খাতে বাংলাদেশ ও চীনের সম্পর্ক আরও জোরদার হবে। এই বিদ্যুৎ কেন্দ্র থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদন না করলে কোনো  ক্যাপাসিটি চার্জ দিতে হবে না। ফলে এই বিদ্যুৎ কেন্দ্র থেকে উৎপাদিত বিদ্যুৎ দামে সাশ্রয়ী হবে। কক্সবাজারের খুরুশকুলে অবস্থিত এই বিদ্যুৎ কেন্দ্রটি ১০টি টারবাইনের মাধ্যমে গত ২৬ মে থেকে প্রতিদিন ১৫ থেকে ২৭ মেগাওয়াট হারে বিদ্যুৎ উৎপাদন করে আসছে। প্রকল্প সংশ্লিষ্টরা জানান, আগামী মাসের মাঝামাঝি শুরু হবে বায়ুবিদ্যুৎ কেন্দ্রটির বাণিজ্যিক উৎপাদন। আর নতুন ১২টি টারবাইনের কার্যক্রম শুরু হলে চলতি বছরই কেন্দ্রটি সক্ষম হবে পুরো ৬০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদনে। উল্লেখ্য ২০২২ সালের  ৩১ মার্চ এই বিদ্যুৎ প্রকল্পের কাজ শুরু হয়। এর প্রকল্প ব্যয় ধরা হয়েছে ৯০০ কোটি টাকা।