• 19 Jun, 2024

তিন মাস বন্ধের পর ডিএসসিসিতে জন্মনিবন্ধন শুরু

তিন মাস বন্ধের পর ডিএসসিসিতে জন্মনিবন্ধন শুরু

সেবার ফি নিয়ে টানাটানির জেরে প্রায় তিন মাস বন্ধ থাকার পর নিজস্ব সার্ভার তৈরি করে জন্মনিবন্ধন সেবা চালু করেছে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন (ডিএসসিসি)।

বুধবার (৪ অক্টোবর) থেকে অধিক গুরুত্বপূর্ণ নাগরিক এ সেবাটি ফের চালু করে ডিএসসিসি। 

সিটি করপোরেশন সূত্রে গেছে, জন্ম ও মৃত্যু নিবন্ধন সেবার ফি সিটি করপোরেশনে নাকি সরকারি কোষাগারে জমা হবে তা নিয়ে তৈরি হয়েছিল সমস্যা। এ সেবার ফি পরিশোধে সম্প্রতি ই-পেমেন্ট ব্যবস্থা চালু করে জন্ম ও মৃত্যু নিবন্ধন রেজিস্ট্রার জেনারেলের কার্যালয়। এর ফলে এই ফি সরাসরি চলে যায় রাষ্ট্রীয় কোষাগারে। এতে ফি নিয়ে টানাটানির ফলে বন্ধ করে রাখা হয় জন্মনিবন্ধন সেবা। দীর্ঘ তিন মাস পর নিজস্ব সার্ভার বানিয়ে এ সেবা চালু করেছে সংস্থাটি।

এর আগে জন্ম নিবন্ধন কার্যক্রম বন্ধ রাখার বিষয়ে ডিএসসিসির পক্ষ থেকে বলা হয়েছিল, লোকবল, সনদের জন্য খরচ, প্রিন্টিং খরচ, কার্যালয়ের খরচ—সব মিলে এ খাতে তাদের আয়ের চেয়ে ব্যয় বেশি। 

জানা গেছে, তবু সিটি করপোরেশন সব কাজ করবে কিন্তু ফি তাদের মাধ্যমে সরকারি কোষাগারে যাবে এটি তারা মেনে নেয়নি। এ নিয়ে সিটি করপোরেশন ও স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের মধ্যে চিঠি চালাচালিও চলেছে। এর মধ্যেই দীর্ঘ তিন মাস বন্ধ ছিল এ সেবা।

গত বুধবার থেকে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনে জন্ম ও মৃত্যু নিবন্ধনের কাজ নিজস্ব সার্ভারে শুরু হয়েছে বলে জানিয়েছেন ডিএসসিসির অঞ্চল-২ এর আঞ্চলিক নির্বাহী কর্মকর্তা সুয়ে মেন জো। 

ডিএসসিসি সূত্রে জানা গেছে, দক্ষিণ সিটিতে সরাসরি জন্ম-মৃত্যু নিবন্ধন সেবা ওয়ার্ড কার্যালয়ে পাওয়া যাবে না। সেক্ষেত্রে দক্ষিণ সিটির আওতাধীন বাসিন্দাদের নিজেদের এলাকা অনুযায়ী আঞ্চলিক কার্যালয়ে যেতে হবে। এছাড়া জন্ম নিবন্ধনের সার্ভারে কোনো ভুল থাকলে অনলাইনেই সংশোধন করা যাবে। 

 

আরও জানা গেছে, আগে ঢাকার দুই সিটি করপোরেশনের আওতাধীন এলাকায় কোনো শিশু জন্মগ্রহণ করলে তার মা-বাবাকে প্রথমে ওয়ার্ড কাউন্সিলর অফিসের মাধ্যমে ক্লিয়ারেন্স নিতে হতো। এরপর যেতে হতো সিটি করপোরেশনের আঞ্চলিক কার্যালয়ে। সেখান থেকে দেওয়া হতো জন্মনিবন্ধন সনদ। কিন্তু কোনো ভুল হলে সেটি আঞ্চলিক কার্যালয় থেকে সংশোধন করা যেত না। সেক্ষেত্রে যেতে হতো ঢাকা জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে। তবে এই ভোগান্তি নিরসন হয়েছে—এখন থেকে আবেদনে কোনো ভুল থাকলে তা আঞ্চলিক কার্যালয় থেকেই সংশোধন করা যাবে।

ডিএনসিসির সার্ভার ডাউনসহ নানান সমস্যা নিরসন 

ঢাকা দক্ষিণ সিটিতে ফি নিয়ে টানাটানির জেরে এ সেবা বন্ধ থাকলেও ঢাকা উত্তর সিটিতে (ডিএনসিসি) ছিল সার্ভার ডাউনসহ বিভিন্ন সমস্যা। যা কাটিয়ে জন্ম নিবন্ধন সেবা এখন ওয়ার্ড পর্যায়ে পৌঁছে দেওয়া হয়েছে বলে জানা গেছে। 

ডিএনসিসি সূত্রে জানা যায়, ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মোট ৫৪টি ওয়ার্ডের মধ্যে পুরনো ৩৬টি ওয়ার্ডের জন্ম নিবন্ধন সেবা এখন ওয়ার্ড কাউন্সিলর কার্যালয়েই পাওয়া যাচ্ছে। তবে নতুন করে যুক্ত হওয়া ৩৭ থেকে ৫৪ নম্বর পর্যন্ত ওয়ার্ডগুলোতে কাউন্সিলর কার্যালয়ের সচিবের পদ শূন্য থাকায় এই সেবা ওইসব ওয়ার্ডগুলোতে এখনও পৌঁছায়নি।