• 15 Jun, 2024

তামিমের অনুপুস্থিতি দলে কোন বিরূপ প্রভাব ফেলবে না : লিটন

তামিমের অনুপুস্থিতি দলে কোন বিরূপ প্রভাব ফেলবে না : লিটন

গতকাল হঠাৎ করেই  আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে  অবসরের ঘোষনা দেন তামিম ইকবাল।  তবে  আজ প্রধানমন্ত্রীর  সাথে সাক্ষাৎ শেষে  তাঁর  নির্দেশে  অবসরের  সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসেন বাংলাদেশ ওয়ানডে দলের  নিয়মিত  অধিনায়ক তামিম।  অবশ্য  এশিয়া কাপ দিয়ে  পুনরায়  দলের  নেতৃত্বভার গ্রহণ করবেন  তামিম।

আফগানিস্তানের বিপক্ষে প্রথম ওয়ানডের পর বৃহস্পতিবার আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসরের ঘোষণা দেন তামিম। বৃষ্টি আইনে ঐ ম্যাচটি ১৭ রানে হারে টাইগাররা। হঠাৎ অবসরের পেছনের কারন পরিষ্কার করেননি তামিম।

আফগানিস্তানের বিপক্ষে দ্বিতীয় ওয়ানডের আগে আজ চট্টগ্রামে লিটন বলেন, ‘সে আগের ম্যাচে ছিল। যদি সে ইনজুরিতে পড়তো তাহলে তাকে ছাড়া আমরা খেলতাম। আমি মনে করি না, এ কারনে কোন পরিবর্তন (পরিবেশে) হবে। সবকিছু আগের মতোই থাকবে।’

ম্যাচের চেয়ে তামিমের অবসরের ইস্যু নিয়ে প্রশ্ন এত বেশি ছিলো যে এক পর্যায়ে বিরক্ত হয়ে পড়েন লিটন। তামিম ইকবাল সম্পর্কে কোনও প্রশ্ন থাকলে বিসিবি সভাপতি বা প্রধান কোচের সাথে কথা বলার জন্য সাংবাদিকদের অনুরোধ করেন তিনি।
লিটন বলেন, ‘আগামীকাল একটা ম্যাচ আছে। সিরিজে টিকে থাকার জন্য আমাদের জন্য কালকের ম্যাচটি অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ, ঐ ম্যাচ নিয়ে যদি কোন প্রশ্ন না থাকে, তাহলে আমি মনে করি আমার এখানে থাকা উচিত নয়। এরচেয়ে ভালো আপনি বিসিবি সভাপতি বা প্রধান কোচের সাথে কথা বলুন।’
লিটন জানান, তাড়াহুড়া করে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনের কয়েক মিনিট আগে খেলোয়াড়দের কাছে নিজের অবসরের কথা জানিয়েছিলেন তামিম।
তামিমকে দুর্দান্ত খেলোয়াড় হিসেবে অভিহিত করে লিটন জানান, তামিমের সিদ্ধান্তকে সম্মান করেন তারা।
তিনি বলেন, ‘আপনি যদি তাকে মিস করার কথা বলেন, হ্যাঁ আমরা তাকে মিস করবো। কিন্তু এটা খুবই স্বাভাবিক বিষয়। আমি অবসরে গেলে আমার পরে নতুন কেউ আসবে। এভাবেই চলতে থাকবে। এটা নিয়ে ভাবার কিছু নেই। সে যদি থাকতো তবে ভালো হতো বা কে বলতে পারে এটা ভালো না-ও হতো।’
তিনি আরও বলেন, ‘কিন্তু সে এখন এখানে নেই, তাই এ বিষয়ে কথা না বলাই ভালো। তামিম ভাই নিজেই বলেছেন, যেকোন কিছুর উর্ধ্বে দল। এবার সিরিজের দিকে মনোযোগ দেয়া যাক। যা হয়ে গেছে তা নিয়ে কথা বলে লাভ নেই। আমরা ইতোমধ্যেই সিরিজে ১-০ ব্যবধানে পিছিয়ে আছি।’
যেহেতু আগামীকালের ম্যাচটি দলের জন্য ‘মরা-বাঁচার লড়াই’ তাই তামিম ইস্যুকে একপাশে রেখে নিজেদের সেরাটা দিতে চান লিটন।
তিনি বলেন, ‘এখানে সব ক্রিকেটারই ভালো সতীর্থ। দীর্ঘদিন ধরে আমরা একসাথে খেলছি বলে দলের মধ্যে ভালো বন্ডিং আছে। আমি তামিমের কাছ থেকে এই জিনিস নিবো বা নিবো না এমন কিছু নেই। সে যেভাবে ম্যানেজ করেছে আমি সেভাবে ম্যানেজ করার চেষ্টা করবো।’