• 25 Apr, 2024

স্বর্ণপদক জয়ী রূপালীকে নড়াইলের এসপি'র সংবর্ধনা

স্বর্ণপদক জয়ী রূপালীকে নড়াইলের এসপি'র সংবর্ধনা

স্পেশাল অলিম্পিকস ওয়ার্ন্ড গেমস্ বার্লিন (জার্মানি)-২০২৩ এ সাঁতারে স্বর্ণ ও ব্রোঞ্জ পদক অর্জন করায় রূপালী খাতুনকে নড়াইল জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে সংবর্ধনা দেওয়া হয়েছে। মঙ্গলবার (১১ জুলাই) দুপুরে পুলিশ সুপারের কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে এই সংবর্ধনা দেওয়া হয়।

রূপালী খাতুন (১৬) নড়াইল সদর উপজেলার মাইজপাড়া ইউনিয়নের তারাশী (দক্ষিণপাড়া) গ্রামের টুকু মিয়ার মেয়ে। চার ভাই-বোনের মধ্যে রূপালী ছোট। সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি পুলিশ সুপার মোসা. সাদিরা খাতুন স্বর্ণপদক জয়ী রূপালী খাতুনকে ফুলের শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানান। এ সময় নড়াইল জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে পুলিশ সুপার তাকে উপহার সামগ্রী, ক্রেস্ট ও অর্থ পুরস্কার প্রদান করেন।

পুলিশ সুপার সাদিরা খাতুন বলেন, নড়াইল ক্রীড়া ও সংস্কৃতির ঐতিহ্যে সমৃদ্ধ একটি জেলা। এখানেই বিশ্বখ্যাত ক্রিকেটার মাশরাফি বিন মর্তুজা ও রূপালীর মত তারকাদের জন্ম। ক্রিকেটের কিংবদন্তী যেমন বিশ্বে বাংলাদেশকে উচ্চ জায়গায় নিয়ে গেছে তেমনি রূপালী নড়াইলবাসী তথা সমগ্র দেশের জন্য আন্তর্জাতিক খ্যাতি বয়ে এনেছে। রূপালীর এই অবদান নড়াইল তথা সমগ্র বাংলাদেশ মনে রাখবে। রূপালী সৎ রিকশাচালক বাবার এক যোগ্য সন্তান। রূপালীর এই আন্তর্জাতিক খ্যাতি অর্জনে তার পরিবার অপরিমেয় শ্রম দিয়েছে, তাদের অবদান অনস্বীকার্য।

তিনি আরও বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কন্যা সায়মা ওয়াজেদ পুতুল প্রতিবন্ধী শিশুদের নিয়ে কাজ করছে। বাংলাদেশ পুলিশের প্রতিটি থানায় নারী, শিশু, বয়স্ক ও প্রতিবন্ধী হেল্প ডেস্ক খোলা হয়েছে এবং তাদের সেবা প্রদান করা হচ্ছে। এসময় তিনি নড়াইলের শিকদার ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক শিকদার মনজুরুর রহমান পান্নুকে রূপালীর মতো প্রতিবন্ধীদের পৃষ্ঠপোষকতা করার জন্য ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন এবং উৎসাহ দেন।

রুপালির বাবা টুকু মিয়া বলেন, মেয়েটা কথা বলতে পারে না। তবে ইশারা ইঙ্গিতে বুঝাতে পারে। ইশারা ইঙ্গিতে বোঝায় সে মাশরাফির মত বড় হতে চায়। এমন সংবর্ধনা পেয়ে খুশিতে আত্মহারা রূপালীর বাবা ও তার পরিবারবর্গ। তিনি পুলিশ সুপারের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ক্রাইম অ্যান্ড অপস্) তারেক আল মেহেদী, নড়াইল সদর থানার অফিসার ইনচার্জ মো. ওবাইদুর রহমান, জেলা গোয়েন্দা শাখা পুলিশ পরিদর্শক সাজেদুল ইসলাম, অপরাধ শাখা পুলিশ পরিদর্শক মো. নাজমুল হুদা, স্বর্ণ ও ব্রোঞ্জ পদক জয়ী রূপালী খাতুনের পরিবারবর্গ, ইলেকট্রনিক, প্রিন্ট ও অনলাইন মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

৭ বছর বয়সে সিকদার ফাউন্ডশনের পান্নু সিকদারের হাত ধরে রূপালীর ক্রীড়াঙ্গনে প্রবেশ। রূপালী ২০২২ সালে জাতীয় পর্যায়ে বিকেএসপি কর্তৃক আয়োজিত সাঁতার প্রতিযোগিতায় ১ম হয়। ২০১৯ রূপালী স্পেশাল অলিম্পিক গেমসে সুযোগ পেয়েও বয়স না হওয়ায় যেতে পারে না। পরবর্তীতে জার্মানির বার্লিনে অনুষ্ঠিত ১৬-তম স্পেশাল অলিম্পিকস ওয়ার্ন্ড গেমস্-২০২৩ এ সাঁতারে স্বর্ণ ও ব্রোঞ্জ পদক অর্জন করে এই রূপালী খাতুন। মোট ১৯১টি দেশের মধ্যে বিভিন্ন গ্রুপে অনুষ্ঠিত সাঁতার প্রতিযোগিতায় একটি গ্রুপে স্বর্ণপদক ও অন্য একটি গ্রুপে ব্রোঞ্জপদক জয় করে। তার এই অর্জনে গর্বিত ও আনন্দিত তার পরিবার তথা নড়াইলবাসী।