• 15 Jun, 2024

শুক্রবার ইন্ডিয়ান ওশান কনফারেন্স উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী

শুক্রবার ইন্ডিয়ান ওশান কনফারেন্স উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী

২৫ দেশের মন্ত্রীপর্যায়ের প্রতিনিধিরা যোগ দিচ্ছেন এই সম্মেলনে। আগামিকাল (১২ মে ২০২৩) শুক্রবার ইন্ডিয়ান ওশান কনফারেন্স উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন জানিয়েছেন, স্থিতিশীল ভবিষ্যতের জন্য শান্তি, সমৃদ্ধি এবং অংশীদারত্ব নিশ্চিত করার লক্ষ্যে ঢাকায় আগামী ১২-১৩ মে ইন্ডিয়ান ওশান কনফারেন্স অনুষ্ঠিত হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এই সম্মেলন উদ্বোধন করবেন। বুধবার (১০ মে) এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ তথ্য জানান। 

ঢাকায় ১২-১৩ মে ইন্ডিয়ান ওশান কনফারেন্স আয়োজন নিয়ে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। 

সংবাদ সম্মেলনে ড. মোমেন জানান, বাংলাদেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অধিভুক্ত আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন গবেষণা প্রতিষ্ঠান ইন্ডিয়া ফাউন্ডেশন আগামী ১২-১৩ মে ঢাকায় হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টালে ইন্ডিয়ান ওশান কনফারেন্স আয়োজন করতে যাচ্ছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এই সম্মেলন আয়োজনের ব্যাপারে নীতিগত অনুমোদন দিয়েছেন। তিনি সম্মেলনের শুভ উদ্বোধন করবেন এবং সম্মেলনে আগত অতিথিদের সম্মানে তার পক্ষ থেকে একটি নৈশভোজের আয়োজন করা হবে। 

এবারের সম্মেলনের প্রতিপাদ্য ‘স্থিতিশীল ভবিষ্যতের জন্য শান্তি, সমৃদ্ধি এবং অংশীদারত্ব’। সম্মেলনে মরিশাসের রাষ্ট্রপতি, মালদ্বীপের উপণ্ডরাষ্ট্রপতি এবং আনুমানিক আরো ২৫টি দেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রী ও উচ্চপর্যায়ের প্রতিনিধিসহ আরো প্রায় দেড় শতাধিক প্রতিনিধি অংশগ্রহণ করবেন। 

এতে ভারত, নেপাল, ভুটান ও সিঙ্গাপুরের পররাষ্ট্র মন্ত্রী যোগ দেবেন। ড. মোমেন জানান, কোভিড এবং রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ-পরবর্তী সময়ে এই প্রতিপাদ্যটি খুবই যুক্তিযুক্ত ও প্রাসঙ্গিক হয়ে দাঁড়িয়েছে। আমরা আশা করছি যে, এই সম্মেলনের মাধ্যমে ভারত মহাসাগরীয় অঞ্চলের সমস্যা ও চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় অনেক সুপারিশ ও মতামত উঠে আসবে, যা এই অঞ্চলের ভবিষ্যৎ কর্মণ্ডপরিকল্পনা নির্ধারণে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। 

এর আগে পাঁচটি সম্মেলন যথাক্রমে ২০১৬ সালে সিঙ্গাপুরে, ২০১৭ সালে শ্রীলংকায়, ২০১৮ সালে ভিয়েতনামে, ২০১৯ সালে মালদ্বীপে এবং ২০১১ সালে সংযুক্ত আরব আমিরাতে অনুষ্ঠিত হয়েছে। 

এবারের ৬ষ্ঠ সম্মেলন ঢাকায় অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মেরিটাইম অ্যাফেয়ার্স ইউনিটের প্রধান রিয়ার অ্যাডমিরাল (অব.) খুরশেদ আলম ও ফরেন সার্ভিস একাডেমির রেক্টর মাশফি বিনতে শামস।