• 19 May, 2024

‘সেনারা এগিয়ে যাচ্ছে’, পাল্টা আক্রমণে সাফল্যের দাবি জেলেনস্কির

‘সেনারা এগিয়ে যাচ্ছে’, পাল্টা আক্রমণে সাফল্যের দাবি জেলেনস্কির

রাশিয়ার সেনাদের বিরুদ্ধে চলমান পাল্টা আক্রমণ সাফল্য পাচ্ছে ইউক্রেন এবং সেনারা সামনের দিকে অগ্রসর হচ্ছে বলে দাবি করেছেন ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি।

রাশিয়ার সেনাদের বিরুদ্ধে চলমান পাল্টা আক্রমণ সাফল্য পাচ্ছে ইউক্রেন এবং সেনারা সামনের দিকে অগ্রসর হচ্ছে বলে দাবি করেছেন ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি।

দখলকৃত স্থানগুলো থেকে ইউক্রেনীয় সেনাদের হটিয়ে দিতে গত জুনে বহুল প্রতীক্ষিত পাল্টা আক্রমণ শুরু করে ইউক্রেন। যদিও এ অভিযান আশানুরূপ হয়নি, তবে জেলেনস্কি জানিয়েছেন, তাদের এ পাল্টা আক্রমণ সফলতার মুখ দেখছে।


শনিবার (২ সেপ্টম্বর) মাইক্রো ব্লগিং সাইট এক্সে (সাবেক টুইটার) জেলেনস্কি লিখেছেন, ‘অন্যরা কি বলছে সেটি ব্যাপার নয়, সবকিছু সত্ত্বেও ইউক্রেনের সেনারা এগিয়ে যাচ্ছে।’

তবে জেলেনস্কি কাউকে উদ্দেশ্য বা ইঙ্গিত করে এক্সে এমন কথা লিখেছেন কি না সেটি নিশ্চিত নয়। একাধিক পশ্চিমা নেতা ও যুদ্ধ পর্যবেক্ষকরা বলেছেন, পাল্টা আক্রমণে এখন সেনাদের খুব বেশি ব্যবহার করছেন না ইউক্রেন।

 


জুনে পাল্টা আক্রমণ শুরু হলেও ব্রেকথ্রু বা বড় ধরনের কোনো সাফল্য এখনো ইউক্রেনীয় সেনারা পায়নি।

তবে সাম্প্রতিক সময়ে পশ্চিমাঞ্চলের জাপোরিঝিয়ায় আগের তুলনায় বেশি সেনা মোতায়েন করেছে ইউক্রেন। এরমাধ্যমে বোঝা যাচ্ছে, সেদিকটায় রুশ বাহিনীর কঠোর প্রতিরোধ ভেদ ও দুর্বলতা খুঁজে বের করতে সমর্থ হয়েছে কিয়েভের সেনারা।

ইউক্রেনের সেনাদের অগ্রসর ঠেকাতে তিন ধাপে প্রতিরোধ গড়ে তুলেছে রাশিয়ার সেনারা। প্রথম ধাপে বিস্তৃত অঞ্চলজুড়ে মাইন পুঁতেছে তারা। এরপর দ্বিতীয় ধাপে খুঁড়েছে ট্যাংক আটকানোর পরিখা। আর তৃতীয় ধাপে স্থাপন করেছে কংক্রিটের তৈরি ‘ড্রাগন টিথ’। যেগুলো ট্যাংকের অগ্রসর ঠেকাবে।


এর আগে গতকাল শুক্রবার যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তা পরামর্শক জন কিরবি জানান, গত তিন দিনে দক্ষিণ দিকে ইউক্রেনীয় সেনারা রাশিয়ার প্রতিরোধ ব্যবস্থার দ্বিতীয় ধাপ পেরোতে উল্লেখযোগ্য সাফল্য পেয়েছে।

ইউক্রেনীয় বাহিনী যদি আরও এগিয়ে যেতে পারে তাহলে— রাশিয়া মারিউপোল হয়ে ক্রিমিয়া উপদ্বীপের সঙ্গে যে সংযোগ স্থাপন করেছে— সেটি ভেঙে ফেলতে পারবে তারা।

এর আগে শুক্রবার ইউক্রেনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী দিমিত্রো কুলেবা মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএনকে জানান, তাদের সেনারা সঠিক দিকে এগিয়ে যাচ্ছে এবং অভিযান থেমে নেই।

তবে ইউক্রেনের এসব দাবির সত্যতা যাচাই করতে পারেনি আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমগুলো।