• 21 May, 2024

নির্বাচন সামনে রেখে পুঁজিবাজার নিয়ে সতর্ক ডিএসই-সিএসই

নির্বাচন সামনে রেখে পুঁজিবাজার নিয়ে সতর্ক ডিএসই-সিএসই

পুঁজিবাজার বর্তমানে এক সংকটময় সময় পার করছে। এই সংকট থেকে উত্তরণে দেশের উভয় স্টক এক্সচেঞ্জকে একসঙ্গে কাজ করতে হবে। নির্বাচনকে সামনে রেখে কেউ যেন বাজারকে অস্থিতিশীল করতে না পারে সেদিকে সতর্ক দৃষ্টি রাখার আহ্বান জানিয়েছেন ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) চেয়ারম্যানের অধ্যাপক ড. হাফিজ মুহম্মদ হাসান বাবু।

তিনি বলেন, এক শ্রেণির অসৎ ব্যক্তি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিভিন্ন গ্রুপ বা ফেসবুক পেজের মাধ্যমে পুঁজিবাজার নিয়ে বিভিন্ন গুজব ছড়াচ্ছে। বিভিন্ন ইস্যুতে এসব গ্রুপ বা পেজ ভিত্তিহীন তথ্য ছড়িয়ে পুঁজিবাজারকে অস্থিতিশীল করার চেষ্টা করছে।


সোমবার (২১ আগস্ট) চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) চেয়ারম্যান আসিফ ইব্রাহিমের সঙ্গে ডিএসইর চেয়ারম্যানের সঙ্গে আলোচনার সময় এই আহ্বান জানান অধ্যাপক ড. হাফিজ মুহম্মদ হাসান বাবু। এ সময় উপস্থিত ছিলেন সিএসইর সাবেক পরিচালক মেজর মো. (অব.) ইমদাদুল ইসলাম।

হাসান বাবু বলেন, বর্তমানে বিনিয়োগকারীদের মধ্যে যে আস্থার সংকট চলছে, সে অবস্থা থেকে উত্তরণ ঘটাতে হবে। এজন্য একটি কর্মপরিকল্পনা নিয়ে আমাদের একসঙ্গে কাজ করতে হবে। যেকোনো মূল্যেই হোক বিনিয়োগকারী তথা পুঁজিবাজার সংশ্লিষ্ট সব পক্ষকেই সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দিয়ে দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নের চালিকা শক্তি পুঁজিবাজারকে গতিময় করে তুলতে হবে। পুঁজিবাজারকে প্রাণবন্ত করার জন্য ভালো কোম্পানি আনার পাশাপাশি ভালো বিনিয়োগকারী নিয়ে আসতে হবে। আমি আশা করি ডিএসই ও সিএসইসহ সংশ্লিষ্ট সবার সমন্বিত প্রচেষ্টায় দেশের পুঁজিবাজার পণ্য বৈচিত্র্যময় হয়ে সবার আস্থা অর্জনে সক্ষম হয়ে দেশের অর্থনৈতিক অবস্থা মজবুত করবে।

চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের চেয়ারম্যান আসিফ ইব্রাহিম বলেন, সামনে নির্বাচন। এ সময়টা পুঁজিবাজারের জন্য বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ। কোনো মহল যেন পুঁজিবাজারের ওপর কোনোরকম প্রভাব বিস্তার করতে না পারে সে বিষয়ে আমরা একসঙ্গে কাজ করব। বর্তমান সংকটময় সময় থেকে উত্তোরণের জন্য উভয় স্টক এক্সচেঞ্জ পুঁজিবাজারে আরো বেশি পরিমাণে ভালো সিকিউরিটিজ লিস্টেড করা এবং আরও নতুন প্রডাক্ট চালু করার ব্যাপারে কাজ করবে। এছাড়াও তথ্য প্রযুক্তির ওপর আমাদের যথেষ্ট জোর দিতে হবে, যাতে আমরা পুঁজিবাজারকে আরও অনেক বিকশিত করতে পারি। আমরা এ বিষয়ে একমত হয়েছি উভয় স্টক এক্সচেঞ্জই একসঙ্গে আলোচনার মাধ্যমে বিভিন্ন সুপারিশ নিয়ে রেগুলেটরের কাছে যাব যাতে বাংলাদেশের পুঁজিবাজারে ভালো একটা পরিবর্তন আনতে পারি।