• 19 May, 2024

মুরালির চোখে বিশ্বকাপের সেমিফাইনালিস্ট কারা

মুরালির চোখে বিশ্বকাপের সেমিফাইনালিস্ট কারা

শ্রীলঙ্কান ক্রিকেটে কিংবদন্তি কুমার সাঙ্গাকারা। উইকেটের পেছনে তো বটেই, ব্যাট হাতেও দুর্দান্ত ছিলেন সাঙ্গা। ২০১১ বিশ্বকাপে লঙ্কানদের অধিনায়কও ছিলেন তিনি। সেই সাঙ্গাকারার ভাষ্য, লঙ্কান দলে ক্রিকেট নাকি সবচেয়ে ভালো বুঝতেন মুত্তিয়া মুরালিধরন। টেস্ট ক্রিকেটে ৮০০ উইকেট শিকার করা মুরালি মাঠে বেশ চুপচাপ থাকলেও, ড্রেসিংরুম নাকি মাতিয়ে রাখতেন সারাক্ষণ।

মুরালির এমন গুণ অবশ্য প্রকাশ পেয়েছে পরে। যখন তিনি খেলা ছেড়ে দিয়েছেন। বর্তমানে তিনি সেই ক্রিকেট বিশ্লেষণ আর ধারাভাষ্য নিয়েই দিন পার করছেন। ভারতের মাটিতে বিশ্বকাপ উপলক্ষ্যে বর্তমানে এই লঙ্কান গ্রেট আছেন সেখানেই। একইসঙ্গে প্রচারণা চালাচ্ছেন নিজের বায়োপিক ‘৮০০’ নিয়ে। 

তবে চলচ্চিত্র নিয়ে কথা হলে কী হবে, মুরালি মানেই তো ক্রিকেট। নিজের চলচ্চিত্রের প্রচারণায় কলকাতায় এসেও তাই কথা বলতে হল সেই ক্রিকেট নিয়েই। এবারের বিশ্বকাপের সেরা চারে থাকবেন কারা? এমন প্রশ্নের উত্তরে মুরালি বেছে নিয়েছেন তিন দেশকে।  

 
অফস্পিনের এই জাদুকর বলেন, ‘ঘরের মাঠে যে দল খেলে, বিশ্বকাপে সে তো সুবিধা পাবেই। ভারতকে তাই রাখতেই হবে। ইংল্যান্ড এখন খুব ভাল খেলছে। ওরাও বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে ওঠার ক্ষমতা রাখে। আর বিশ্বকাপে কখনও অস্ট্রেলিয়াকে বাতিল করে দেওয়া যায় না। এই তিন দলের সঙ্গে চতুর্থ দল কে হবে সেটাই দেখার। অনেক দলই ক্ষমতা রাখে। তবে শ্রীলঙ্কাকে সেমিফাইনালে উঠতে হলে অনেক পরিশ্রম করতে হবে।’ 

৯৬ সালে বিশ্বকাপ জতেছেন। ২০০৭ আর ২০১১ সালে ছিলেন রানারআপ দলের সদস্য। এবার শ্রীলঙ্কার সম্ভাবনাও দেখছেন ভালোভাবেই। শ্রীলঙ্কার বিষয়ে মুরালির পর্যবেক্ষণ, তার দেশের দলে একাধিক তরুণ রয়েছে। সঙ্গে বেশ কিছু অভিজ্ঞ ক্রিকেটাররাও রয়েছেন। তারা নিজেদের যোগ্যতা অনুযায়ী খেলতে পারলে শেষ চারে শ্রীলঙ্কাকে না দেখার মতো কোনও বিষয় নেই।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ভারতীয় ক্রিকেটের দাদা খ্যাত সৌরভ গাঙ্গুলি। ভারতের সাবেক এই গ্রেটের কণ্ঠেও ছিলে ক্রিকেট আলাপন। ভারত ক্রিকেট আর বিশ্বকাপ নিয়ে উচ্ছ্বাসই শোনা গেল প্রিন্স অব ক্যালকাটার কণ্ঠে, ‘এবার বিশ্বকাপটা অনেক বড় হবে। ভারত ভালো খেলছে। এটা সবথেকে আনন্দের। আশা করছি আগামী ৪৫ দিন আরও আনন্দের হবে।’