• 25 Jun, 2024

মেসিবিহীন আরও একবার জয়বঞ্চিত মায়ামি

মেসিবিহীন আরও একবার জয়বঞ্চিত মায়ামি

অল্প সময়ের ব্যবধানে একই মুদ্রার সম্পূর্ণ বিপরীত পিঠ দেখছে আমেরিকান সকার মেজর (এমএলএস) ক্লাব ইন্টার মায়ামি। আর্জেন্টাইন মহাতারকা লিওনেল মেসির হাত ধরে যারা ধারাবাহিকভাবে উড়ছিল, সেই ক্লাবটি এবার জয়ের ধারায় ফেরার পথ ভুলে গেছে! চোট থাকায় আরও একবার মেসিকে ছাড়াই মাঠে নেমেছিল মায়ামি। যেখানে ফ্লোরিডার দলটি নিউইয়র্ক সিটির সঙ্গে ১-১ গোলে ড্র করেছে।

আজ (রোববার) ভোরে এমএলএস-এর ম্যাচে ঘরের মাঠ ডিআরভি পিএনকে স্টেডিয়ামে মুখোমুখি হয় দু’দল। যদিও ফ্লোরিডার বিরূপ আবহাওয়ার কারণে এদিন নির্ধারিত সময়ে খেলা শুরু করা যায়নি। মায়ামির কোচ জেরার্দো মার্টিনো আগেই ঝুঁকি নিয়ে মেসিকে না নেওয়ার আভাস দিয়েছিলেন। তবুও অল্প সময়ের জন্য হলেও তাকে মাঠে দেখার আশায় ছিলেন দর্শকরা। শেষপর্যন্ত সেটি আর সম্ভব হয়নি।

দেরিতে শুরু হওয়া ম্যাচে তেমন প্রভাবও রাখতে পারছিলেন না মেসির সতীর্থরা। বলের নিয়ন্ত্রণ রাখতেই তাদের বেগ পাচ্ছিল। অন্যদিকে তাদের চাপে রেখে নিউইয়র্ক এফসি গোল আদায়ের চেষ্টা চালিয়ে যায়। বেশ কয়েকটি ফ্রি-কিকও আদায় করে নেয় নিউইয়র্ক। যদিও তারা সেসব সুযোগ কাজে লাগাতে না পারায় গোলের দেখা পায়নি।

প্রধমার্ধে ম্যাচের ৩৭ মিনিট পর্যন্ত ইন্টার মায়ামি নিতে পেরেছে মাত্র ২টি শট। ফলে তাদের গোলের আশা করাটা কিছুটা দুরূহ-ই বটে। অবশ্য নিজেরা সুবিধা করতে না পারলেও বিরতিতে যাওয়ার আগ পর্যন্ত নিউইয়র্ক সিটিকে ঠিকই ঠেকিয়ে রাখতে পেরেছে মায়ামি। দুই দলের কেউই লক্ষ্যে কোনো শট রাখতে পারেনি প্রথমার্ধে।

দ্বিতীয়ার্ধে খেলায় কিছুটা গতি বাড়ায় মায়ামি। দারুণ কিছু আক্রমণে তারা সুযোগও তৈরি করেছিল বিরতির পর। সমান লড়াই দেখিয়েছে নিউইয়র্কও। তবে শেষ পর্যন্ত ৭৭ মিনিটে কাঙ্ক্ষিত গোলটিও পেয়ে যায় সফরকারী দলটি। দলের লিড এনে দেওয়া গোলটি করেন সান্তিয়াগো রদ্রিগেজ। পয়েন্ট তালিকার ৮ নম্বরে থাকা দলটি ওই গোলেই জয়ের স্বপ্ন দেখছিল। তবে একেবারে শেষ বাঁশি বাজার আগমুহূর্তে টমাস আভিলেসের গোলে স্বস্তি ফিরে আসে মায়ামি শিবিরে। এরপর মায়ামির একটি শট বারে লাগে ফিরে আসে। জয় না পেলেও, অন্তত হার ঠেকাতে পেরেছে মেসির দল।

জয় না পাওয়ায় ইন্টার মায়ামির প্লে-অফ খেলার পথটা কঠিনই থেকে গেল। ৩০ ম্যাচ শেষে ৯ জয়, ৬ ড্র এবং ১৫ হারে ৩৩ পয়েন্ট নিয়ে তালিকার ১৩ নম্বরে অবস্থান ফ্লোরিডার ক্লাবটির।