• 17 Jun, 2024

কোচ ছাড়াই ইমরান-শিরিনদের ইরান যাত্রা

কোচ ছাড়াই ইমরান-শিরিনদের ইরান যাত্রা

এশিয়ান ইনডোর অ্যাথলেটিক্স চ্যাম্পিয়নশীপে অংশ নিতে আজ সকালে ইরানের রাজধানী তেহরানের উদ্দেশে দেশ ছেড়েছেন বাংলাদেশের অ্যাথলেটরা।

 দ্রুততম মানব-মানবী ইমরানুর রহমান, শিরিন আক্তারের সঙ্গে রয়েছেন আরও দুই স্প্রিন্টার রাকিবুল হাসান ও জহির রায়হান। চার স্প্রিন্টারের সঙ্গে একমাত্র হাই জাম্পার মাহফুজুর রহমান। পাঁচ অ্যাথলেটের সঙ্গে যাচ্ছেন দুই কর্মকর্তা-ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক ও কোষাধ্যক্ষ অথচ নেই কোনো কোচ। 

দেশ ছাড়ার আগে ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট আব্দুর রকিব মন্টু কোচ না থাকার বিষয়টি ব্যাখ্যা দিয়েছিলেন এভাবে, ‘আসলে এই টুর্নামেন্টে মূলত ইমরানের একাই অংশগ্রহণের কথা ছিল। পরবর্তীতে বাংলাদেশ নৌবাহিনীর কয়েকজন অ্যাথলেটের অংশগ্রহণের বিষয়টি নিশ্চিত হয়। এখানে অংশগ্রহণকারী সবাই অভিজ্ঞ খেলোয়াড়। কোচ না থাকায় সমস্যা হবে না।’

যদি ইমরান একাই অংশগ্রহণ করতেন সেক্ষেত্রে বিষয়টি আরো দৃষ্টিকটু হতো। তখন একজন অ্যাথলেট এবং কর্মকর্তা থাকতেন দু’জন। সেই প্রসঙ্গে ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘অনেক টুর্নামেন্টে ইমরান একাই অংশ নেন। কোনো কোচ-কর্মকর্তাও থাকেন না। এই টুর্নামেন্টে একজন অফিসিয়াল প্রয়োজন রয়েছে তাই ফেডারেশনের কোষাধ্যক্ষ যাচ্ছেন। সভা থাকায় আমি ডেলিগেট হিসেবে যাচ্ছি।’ 

টানা দ্বিতীয় মেয়াদে অ্যাথলেটিক্স ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছেন অ্যাডভোকেট আব্দুর রকিব মন্টু। আগের মেয়াদে সাধারণ সম্পাদকের সঙ্গে কমিটির কয়েকজন সাবেক অ্যাথলেট ও পরীক্ষিত সংগঠকের মত বিরোধ হয়। সম্প্রতি অনুষ্ঠিত ফেডারেশনের নির্বাচনে তাদের বাইরে রেখে প্যানেল করা এবং নির্বাচনের নিয়ন্ত্রক জেলা-বিভাগীয় সংগঠক পরিষদকে নিয়ন্ত্রণে সাধারণ সম্পাদক মন্টুর সবচেয়ে বড় সহযোগী ছিলেন কোষাধ্যক্ষ জামাল হোসেন। তাই ইরানে এশিয়ান ইনডোর অ্যাথলেটিক্স চ্যাম্পিয়নশীপে সাধারণ সম্পাদকের সফরসঙ্গী কোষাধ্যক্ষ এমনটাই আলোচনা অ্যাথলেটিক্স অঙ্গনে। 

বাংলাদেশের অ্যাথলেটিক্সের ইতিহাসে সেরা সাফল্য এসেছিল ইনডোর চ্যাম্পিয়নশীপ থেকেই। গত বছর কাজাখস্তানে এই ফেব্রুয়ারিতেই ইমরান ৬০ মিটার স্প্রিন্টে প্রথম হয়েছিলেন। যা বাংলাদেশের অ্যাথলেটিক্স তো বটেই ক্রীড়াঙ্গনে বিশেষ রেকর্ড ছিল। বাংলাদেশের দ্রুততম মানব আবার প্রথম হওয়ার লক্ষ্যে দৌড়াবেন। একই ইভেন্টে অংশ নেবেন রাকিবুল ও শিরিন আক্তারও। জহির রায়হানের ইভেন্ট ৪০০ মিটার আর মাহফুজুর হাইজাম্পে।