• 23 Jul, 2024

জাতীয় নির্বাচনে ভোটগ্রহণ ৭ জানুয়ারি, মনোনয়ন জমা ৩০ নভেম্বর

জাতীয় নির্বাচনে ভোটগ্রহণ ৭ জানুয়ারি, মনোনয়ন জমা ৩০ নভেম্বর

মনোনয়নপত্র জমা দেয়া যাবে ৩০ নভেম্বর পর্যন্ত। মনোনয়নপত্র বাছাই ১ থেকে ৪ ডিসেম্বর। আপিল নিষ্পত্তি ৬ থেকে ১৫ ডিসেম্বর। মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ তারিখ ১৭ ডিসেম্বর। ১৮ ডিসেম্বর প্রতীক বরাদ্দের মধ্য দিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে ‌প্রচার শুরু হবে। চলবে ২০২৪ সালের ৫ জানুয়ারি পর্যন্ত।

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন ৭ জানুয়ারি, রোববার। প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কাজী হাবিবুল আউয়াল নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করে ভোটগ্রহণের এই তারিখ জানিয়েছেন।

রাজধানীর আগারগাঁওয়ে নির্বাচন ভবনে বুধবার সন্ধ্যা ৭টায় জাতীয় নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করেন সিইসি। বাংলাদেশ টেলিভিশন ও বাংলাদেশ বেতার তা সরাসরি প্রচার করে।


নির্বাচন ভবনে বিকেল ৫টায় কমিশনের সভা অনুষ্ঠিত হয়। সিইসির নেতৃত্বে ওই সভায় সব নির্বাচন কমিশনার উপস্থিত ছিলেন।

কমিশনের ওই সভা শেষে তফসিল ঘোষণা করেন সিইসি কাজী হাবিবুল আউয়াল।

ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী, দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মনোনয়নপত্র জমা দেয়া যাবে ৩০ নভেম্বর পর্যন্ত। মনোনয়নপত্র বাছাই হবে ১ থেকে ৪ ডিসেম্বর। আপিল নিষ্পত্তি ৬ থেকে ১৫ ডিসেম্বর। মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ তারিখ ১৭ ডিসেম্বর। ‌আর প্রতীক বরাদ্দের মধ্য দিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে নির্বাচনের প্রচার শুরু হবে ১৮ ডিসেম্বর। নির্বাচনী প্রচারণা শেষ করার তারিখ ২০২৪ সালের ৫ জানুয়ারি।

একাদশ সংসদের যাত্রা শুরু হয়েছিল ২০১৯ সালের ৩০ জানুয়ারি। সেই সংসদের মেয়াদ শেষ হচ্ছে আগামী বছরের ২৯ জানুয়ারি। মেয়াদ শেষের আগে ৯০ দিনের মধ্যে নতুন নির্বাচন অনুষ্ঠানের সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতা রয়েছে। সে অনুসারেই তফসিল ঘোষণা করলো নির্বাচন পরিচালনাকারী সাংবিধানিক সংস্থাটি।

এদিকে নির্বাচন কমিশন এমন সময়ে জাতীয় নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করল যখন নির্দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনের দাবিতে বিএনপি ও সমমনা দলগুলোর ডাকে সারা দেশে অবরোধ চলছে।

নির্বাচন নিয়ে প্রধান দুই রাজনৈতিক জোটে মতানৈক্য চলার মধ্যেই তফসিল ঘোষণা ঘিরে যাতে আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি না ঘটে সে লক্ষ্যে পুলিশসহ আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীগুলো সতর্ক অবস্থানে রয়েছে।

বুধবার সকাল থেকেই কঠোর নিরাপত্তার ব্যবস্থা নেয়া হয় আগারগাঁও এলাকায়। এখানে নির্বাচন ভবন ও সংশ্লিষ্ট এলাকার মূল সড়কে সকাল থেকেই অবস্থান নিয়েছে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি), র‍্যাব ও পুলিশ।

নির্বাচন ভবনের ভেতরে দর্শনার্থী প্রবেশেও চলছে কড়াকড়ি। পুলিশের পাশাপাশি আনসার সদস্যরা নিয়োজিত রয়েছেন নির্বাচন ভবনের ভেতরে।

নির্বাচন ভবন এলাকায় র‌্যাবের কয়েকটি টহল গাড়ি দেখা যায়। প্রবেশপথে দেখা গেছে পুলিশের এপিসি ও জলকামানের গাড়ি।

নির্বাচন ভবনের প্রবেশ পথে ব্যারিকেড দেয়া হয়েছে। সেখানে সবার পরিচয় জেনে তারপর ভেতরে যাওয়ার অনুমতি দেয়া হচ্ছে।

দুপুরের পর থেকে রাজধানীর বিভিন্ন পয়েন্টেও পুলিশের নজরদারি বাড়ানো হয়েছে। নগরের মোড়ে মোড়ে পুলিশের সাঁজোয়া যান ও ব্যাপকসংখ্যক সদস্য অবস্থান নিয়েছেন।

তফসিল ঘোষণাকে কেন্দ্র করে কমিশন ভবনে এনআইডি সংশোধনের জন্য ব্যক্তিগত শুনানি মঙ্গলবার থেকে বন্ধ রয়েছে।

দেশে মোট ভোটার ১১ কোটি ৯৬ লাখ ৯১ হাজার ৬৩৩ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ৬ কোটি ৭ লাখ ৭১ হাজার ৫৭৯ জন। নারী ভোটার ৫ কোটি ৮৯ লাখ ১৯ হাজার ২০২ জন। এছাড়া তৃতীয় লিঙ্গের ভোটার রয়েছেন ৮৫২ জন।

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের জন্য ৩০০ আসনভিত্তিক ভোটার তালিকা চূড়ান্ত করেছে ইসি। এ তালিকা অনুযায়ী সংসদ নির্বাচনের ভোট গ্রহণ করা হবে।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের সময় ভোটার ছিল ১০ কোটি ৪২ লাখ ৩৮ হাজার ৬৭৭ জন। সে হিসাবে ৫ বছরে দেশে ভোটার বেড়েছে ১ কোটি ৫৪ লাখ ৫২ হাজার ৯৫৬ জন।