• 24 May, 2024

গাজায় নিহতের সংখ্যা পৌঁছেছে ১৭ হাজার ৭০০ জনে

গাজায় নিহতের সংখ্যা পৌঁছেছে ১৭ হাজার ৭০০ জনে

গাজা ‍উপত্যকায় ইসরায়েলি বাহিনীর গত দুই মাসের অভিযানে এ পর্যন্ত নিহত হয়েছেন অন্তত ১৭ হাজার ৭০০ জন ফিলিস্তিনি এবং আহত হয়েছেন আরও ৪৮ হাজার ৭৮০ জন।

হামাস নিয়ন্ত্রিত গাজার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র আশরাফ আল কিদরা বার্তাসংস্থা রয়টার্সকে এই তথ্য নিশ্চিত বলেছেন, রোববার একটি অ্যাম্বুলেন্সে ইসরায়েলি বাহিনীর বোমায় গুরুতর আহত হয়েছেন দুই স্বাস্থ্যকর্মী। এই স্বাস্থ্য কর্মীরা গাজার ইউরোপিয়ান হাসপাতাল থেকে রোগীদের নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নেওয়ার কাজ করছিলেন।

গত ৭ অক্টোবর ফিলিস্তিনের গাজা উপত্যকার নিয়ন্ত্রণকারী গোষ্ঠী হামাসের যোদ্ধারা ইসরায়েলের ভূখণ্ডে অতর্কিত হামলা চালানোর পর ওই দিন থেকেই গাজায় অভিযান শুরু করে ইসরায়েলি বিমান বাহিনী। পরে ১৬ অক্টোবর থেকে অভিযানে যোগ দেয় ইসরায়েলের স্থল বাহিনীও।

ইসরায়েলি বাহিনীর টানা দেড় মাসের অভিযানে কার্যত ধ্বংসস্তুপে পরিণত হয়েছে গাজা উপত্যকা, নিহত হয়েছেন ১৭ হাজারেরও বেশি ফিলিস্তিনি। নিহত এই ফিলিস্তিনিদের মধ্যে নারী ও শিশুর সংখ্যা ১২ হাজারেরও বেশি।

অন্যদিকে, হামাস যোদ্ধাদের হামলায় ইসরায়েলে নিহত হয়েছিলেন ১ হাজার ২০০ জন ইসরায়েলি ও অন্যান্য দেশের নাগরিক। পাশাপাশি, ইসরায়েলের ভূখণ্ড থেকে ২৪২ জন ইসরায়েলি ও অন্যান্য দেশের নাগরিকদের ধরে নিয়ে গিয়েছিল হামাস যোদ্ধারা।

হামাসের হাতে থাকা অবশিষ্ট জিম্মিদের ভাগ্যে কী ঘটছে, তা এখনো অজানা।

গাজায় ইসরায়েলি বাহিনীর অভিযান থেকে বাদ যায়নি স্কুল-হাসপাতালের মতো প্রতিষ্ঠানও। ইসরায়েলের প্রতিরক্ষা বাহিনী (আইডিএফ) এ প্রসঙ্গে জানিয়েছে, আত্মরক্ষার রণকৌশল হিসেবে এসব প্রতিষ্ঠানে নিজেদের গোপন ঘাঁটি করেছে হামাস।

তবে হামাস আইডিএফের এই বক্তব্য বরাবরই অস্বীকার করে আসছে।

সূত্র : রয়টার্স