• 16 Jul, 2024

বিনিয়োগকারীদের পুঁজি ফিরেছে চার’শ কোটি টাকা

বিনিয়োগকারীদের পুঁজি ফিরেছে চার’শ কোটি টাকা

দু’দিন পতন আর তিন উত্থানের মধ্যদিয়ে অক্টোবরের দ্বিতীয় সপ্তাহ পার করলো দেশের পুঁজিবাজার।

আলোচিত সপ্তাহে (৮ থেকে ১২ অক্টোবর) সূচক বাড়লেও কমেছে লেনদেন। সূচকের পাশাপাশি আগের সপ্তাহের তুলনায় লেনদেন হওয়া কোম্পানির শেয়ারের দাম বাড়ায় বিনিয়োগকারীদের মূলধন অর্থাৎ পুঁজি ফিরেছে চার’ শ কোটি টাকার বেশি।

বাজার বিশ্লেষণে দেখা গেছে, আলোচিত সপ্তাহে ৫৭টি কোম্পানির শেয়ারের দাম বেড়েছে, বিপরীতে কমেছে ৯১টি কোম্পানির শেয়ারের দাম। তারপরও দেশের প্রধান পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) বিনিয়োগকারীদের পুঁজি বা বাজার মূলধন বেড়েছে ৪০৮ কোটি ৬২ লাখ ৯৮ হাজার ৪৬টাকা। একই অবস্থা অপর পুঁজিবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই)।

ডিএসইর তথ্য মতে, গত ৮ অক্টোবর বিদায়ী সপ্তাহের প্রথম কর্মদিবসে লেনদেনের শুরুতে ডিএসইর মূলধন ছিল ৭ লাখ ৭৬ হাজার ৭৭৭ কোটি ১৭ লাখ ৮৪ হাজার ৮২২ টাকা। আর শেষ কর্মদিবস বৃহস্পতিবার দিন (১২ সেপ্টেম্বর) লেনদেন শেষে মূলধন দাঁড়ায় ৭ লাখ ৭৭ হাজার ১৮৫ কোটি ৮০ লাখ ৮২ হাজার ৮৬৮ টাকা। অর্থাৎ ৪০৮ কোটি ৬২ লাখ ৯৮ হাজার ৪৬ টাকা মূলধন বেড়েছে।

বিদায়ী সপ্তাহে ডিএসইতে লেনদেন হয়েছে মোট ৩৬৬টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট। এর মধ্যে দাম বেড়েছে ৫৬টির, কমেছে ৯১টির, আর অপরিবর্তিত ছিল ২১৯টির দাম।

এর আগের সপ্তাহে লেনদেন হওয়া কোম্পানিগুলোর মধ্যে দাম বেড়েছিল ৩৭টির, কমেছিল ১২০টির, আর অপরিবর্তিত ছিল ২০৫টি কোম্পানির শেয়ারের দাম। সে হিসেবে আগের সপ্তাহের চেয়ে১৯টি কোম্পানির শেয়ারের দাম বেড়েছে।

শেয়ারের দাম বাড়ায় বিদায়ী সপ্তাহে ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স আগের সপ্তাহের চেয়ে ২ দশমিক ৪৭ পয়েন্ট বেড়ে ৬ হাজার ২৫৮ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। ডিএসইর অপর দুই সূচকের মধ্যে ডিএসইএস সূচক ৭ পয়েন্ট ও ডিএস-৩০ সূচক আগের সপ্তাহের চেয়ে ৩ পয়েন্ট বেড়েছে।

গত সপ্তাহে ডিএসইতে মোট লেনদেন হয়েছে ২ হাজার ১৫ কোটি ৪ লাখ ৬০ হাজার টাকা। এর আগের সপ্তাহে লেনদেন হয়েছিল ২ হাজার ৩৩৫ কোটি ৭০ লাখ ৮০ হাজার টাকা। অর্থাৎ ৩২০ কোটি ৬৬ লাখ ২ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন কমেছে, শতাংশের হিসাবে যা ১৩ দশমিক ৭৩ শতাংশ।

 

গত সপ্তাহে সবচেয়ে বেশি লেনদেন হয়েছে রয়েল টিউলিপ সী পার্ল বিচ রিসোর্ট অ্যান্ড স্পার শেয়ার। এরপর যথাক্রমে লেনদেন হয়েছে ফুওয়াং ফুড,লাফার্জহোলসিম, জেমিনি সি ফুড, দেশবন্ধু পলিমার, বাংলাদেশ শিপিং করপোরেশন, রিপালিক ইন্স্যুরেন্স, ইউনিয়ন ইন্স্যুরেন্স, এমারেল্ড অয়েল এবং সোনালী আশ ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের শেয়ার।

দেশের অপর পুঁজিবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সার্বিক সূচক ১৪ পয়েন্ট বেড়ে ১৮ হাজার ৫৪৫ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে।

এসময়ে লেনদেন হয়েছে ১১০ কোটি ৬০ লাখ ৫১ হাজার ৯১৯ টাকা। লেনদেন হওয়া কোম্পানিগুলোর মধ্যে দাম বেড়েছে ৪৪টির, কমেছে ৬৭টির আর অপরিবর্তিত রয়েছে ১১৭টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ারের দাম।