• 24 Feb, 2024

‘বিগ ব্যাং’ ক্যাম্পেইনে ৮০ হাজার অর্ডার পেল ইভ্যালি

‘বিগ ব্যাং’ ক্যাম্পেইনে ৮০ হাজার অর্ডার পেল ইভ্যালি

দীর্ঘ বিরতির পর নতুন করে ‘বিগ ব্যাং’ ক্যাম্পেইনে প্রথম দিনেই ৮০ হাজার অর্ডার পেয়েছে ই-কমার্স মার্কেট প্লেস- ইভ্যালি। ক্যাম্পেইন চলাকালীন মাত্র ২০ ঘণ্টায় মধ্যে ৮০ হাজারেরও বেশি ইনভয়েসে ২ লাখের বেশি পণ্যের অর্ডার পায় প্রতিষ্ঠানটি।


শুক্রবার (২৯ ডিসেম্বর) রাতে শুরু হওয়া ‘বিগ ব্যাং’ ক্যাম্পেইনের আওতায় শনিবার (৩০ ডিসেম্বর) দুপুর ২টা পর্যন্ত এসব পণ্যের অর্ডার হয়েছে। তবে আগের মতো এবার কোনো বিজ্ঞাপন ব্যয় নেই ইভ্যালির।

ইভ্যালির পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, প্রতিষ্ঠানটির সঙ্গে ব্যবসা পুনরায় শুরু করতে প্রায় দেড় হাজার বিক্রেতা তাদের পণ্য সরবরাহ করছেন। মূলত, এসব বিক্রেতাদের নিয়েই ‘বিগ ব্যাং’ ক্যাম্পেইনের ঘোষণা দেয় ইভ্যালি। শুক্রবার রাত ১০টা থেকে ক্যাম্পেইন শুরু হওয়ার কথা থাকলেও সামাজিকমাধ্যমে গ্রাহকের আগ্রহ দেখে সন্ধ্যা থেকেই অর্ডার উন্মুক্ত করা হয়। এরপর রাত ৮টায় ফেসবুক লাইভে আসেন প্রতিষ্ঠানটির প্রধান মোহাম্মদ রাসেল।

জানানো হয়, রাত ১০টায় ক্যাম্পেইনের সময় শুরু হওয়ার আগেই প্রায় ৩৫ হাজার ইনভয়েসে ৮০ হাজারের বেশি পণ্যের অর্ডার করেন গ্রাহকরা। এর কিছু সময় পর গ্রাহকের চাপে ইভ্যালির নতুন মোবাইল অ্যাপ্লিকেশনের সার্ভার ডাউন হয়ে যায়। পরে সার্ভার ঠিক করলে নতুন অর্ডার আসতে শুরু করে। শনিবার দুপুর ২টায় ইভ্যালির ‘বিগ ব্যাং’ ক্যাম্পেইন শেষ হয়।

দুপুর ২টা পর্যন্ত মোট ৮০ হাজারের কিছু বেশি ইনভয়েস হয়েছে। প্রতিটি ইনভয়েসে গড়ে ২ থেকে ৩টি করে পণ্যের অর্ডার রয়েছে। এ হিসেবে মাত্র ২০ ঘণ্টায় ইভ্যালি প্রায় ২ লাখ পণ্য বিক্রির অর্ডার পড়েছে।

প্রতিষ্ঠানটির পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে, আগের ক্যাম্পেইনের তুলনায় এবার বেশ কিছু পার্থক্য রয়েছে। আগে ব্যাপক বিজ্ঞাপন প্রচার করা হলেও এবার এক টাকাও বিজ্ঞাপন ব্যয় করা হয়নি। আগে বেশিরভাগ পণ্যই লোকসানে বিক্রি করা হতো। তবে এবার প্রায় সব পণ্যে খুব সামান্য পরিমাণ লাভ রাখা হয়েছে। এই লাভের অর্থ দিয়েই কোম্পানির মাসিক ব্যয় মেটানো সম্ভব হবে। এজন্য ইভ্যালিকে নতুন করে কোনো দেনায় পড়তে হবে না।

ইভ্যালির প্রধান মোহাম্মদ রাসেল বলেন, গ্রাহককে এখন আর বিশ্বাসের ওপর টাকা দিতে হচ্ছে না। পণ্য হাতে পেয়ে টাকা দেবেন। এজন্য ইভ্যালিতে গ্রাহকের সংখ্যা দ্রুত বাড়ছে। আমরা খুব সামান্য লাভ করছি যেন কোম্পানির খরচ চালিয়ে নেওয়া যায়। আর যেসব পণ্যে ছাড় দেওয়া হচ্ছে এটা বিক্রেতা নিজের পক্ষ থেকে দিচ্ছেন। এজন্য ইভ্যালির আর লোকসানের সুযোগ নেই বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

আরএইচটি/এমএসএ