• 18 May, 2024

ভোলায় ২২৫ মিলিমিটার বৃষ্টিপাতের রেকর্ড

ভোলায় ২২৫ মিলিমিটার বৃষ্টিপাতের রেকর্ড

ভোলায় চারদিনের টানা বর্ষণে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে জনজীবন। গত ২৪ ঘণ্টায় জেলায় ২২৫ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে। সোমবার (৭ আগস্ট) রাত ৯টায় এ তথ্য জানান ভোলা আবহাওয়া অফিসের সিনিয়র পর্যবেক্ষক মাহবুবুর রহমান।

তিনি বলেন, জেলায় (২৪ ঘণ্টায়) রোববার রাত ৯টা থেকে সোমবার রাত ৯টা পর্যন্ত ২২৫ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে। আর এখনো বৃষ্টিপাত অব্যাহত রয়েছে। বিরামহীন এ বৃষ্টি মানুষের স্বাভাবিক জীবনযাত্রায় প্রভাব ফেলছে।

নাসির খন্দকার নামে ভোলার এক বাসিন্দা বলেন, টানা কয়েকদিন ধরে বৃষ্টি হচ্ছে। এতে আমার পুকুরসহ এলাকার অনেকের মাছের ঘের তলিয়ে গেছে। অনেক রাস্তাঘাট প্লাবিত হয়ে আছে।

বরিশালে ৫৫ বছরের রেকর্ড ভেঙেছে বৃষ্টিপাত

পরানগঞ্জ বাজারের অটোরিকশা চালক সিরাজ বলেন, কয়দিন ধরে মুষলধারে বৃষ্টিতে গাড়ি চালাতে পারিনি। এখন পেটের টানে বৃষ্টির মধ্যে ভিজে রাস্তায় নেমেছি। বাচ্চা, সংসার নিয়ে খুব দুশ্চিন্তায় আছি।

সদর রাজাপুর ইউনিয়নের তাইজুল হক  জানান, টানা বৃষ্টির ফলে জমিতে ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। আমনের জন্য যে বীজতলা করেছি তা নষ্ট হয়ে যাবে। আমাদের গরু, ছাগল পালনেও সমস্যা হচ্ছে।

নিম্নচাপের কারণে বৃষ্টিপাতের পরিমাণ বেড়ে গেছে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অফিস। আরও চার-পাঁচ দিন এ বৃষ্টিপাত অব্যাহত থাকবে বলেও আভাস পাওয়া গেছে।

এছাড়া গত পাঁচদিন ধরে নিম্নচাপের প্রভাবে উপকূলীয় জেলার মেঘনা, তেঁতুলিয়া নদীর পানি বিপৎসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। এর ফলে তলিয়ে গেছে রাস্তাঘাটসহ নদী তীরবর্তী প্রায় ১৫ গ্রাম। ডুবে গেছে ফসলের মাঠ, অনেক মাছের ঘেরও ভেসে গেছে। সবমিলিয়ে স্থবির হয়ে পড়েছে জনজীবন।

অপরদিকে বৈরী আবহাওয়া এবং উপকূলীয় এলাকায় ৩ নম্বর সতর্কতা সংকেত দেখিয়েছে আবহাওয়া অফিস। এছাড়া নদী উত্তাল থাকায় ভোলার কয়েকটি নৌরুটে সকাল থেকে লঞ্চ চলাচল সাময়িক বন্ধ রয়েছে।

ভোলার ইলিশা-মজুচৌধুরীরহাট (লক্ষ্মীপুর), বরিশাল-ভোলা-মজুচৌধুরীর হাট, হাকিমউদ্দিন-আলেকজান্ডার (লক্ষ্মীপুর), বেতুয়া (চরফ্যাশন, ভোলা)-ঢাকা ও হাতিয়া (নোয়াখালী)-মনপুরা (ভোলা)-ঢাকা নৌরুটে লঞ্চ চলাচল বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। তবে ভোলা-ঢাকা, ইলিশা-ঢাকা নৌপথে লঞ্চ চলাচল করছে।