• 15 Jun, 2024

‘স্বচ্ছতা, জবাবদিহিতা ও দক্ষতার নিশ্চিত করতে পারলে নড়াইল হবে মডেল পৌরসভা ’-বিশ্বব্যাংক

‘স্বচ্ছতা, জবাবদিহিতা ও দক্ষতার নিশ্চিত করতে পারলে নড়াইল হবে মডেল পৌরসভা ’-বিশ্বব্যাংক

স্টাফ রিপোর্টার ॥ ‘পৌরসভার প্রতিটি কাজ দক্ষতার সাথে করতে হবে। স্বচ্ছতা, জবাবদিহিতা নিশ্চিত করতে হবে। আমরা প্রাতিষ্ঠানিক শক্তিশালীকরণের উপর বেশি জোর দিবো এবং আমরা এটা নিয়েই কাজ করবো। পাশাপাশি পৌরসভার রাজস্ব আদায় বৃদ্ধি করতে হবে এবং নাগরিক সুযোগ-সুবিধা নিশ্চিত করতে হবে।’

বুধবার (১০ মে) বিকেলে নড়াইল পৌরসভার ৪২৫ কোটি টাকার প্রস্তাবিত উন্নয়নমূলক প্রকল্পসমূহ সম্ভাব্যতা যাচাইয়ে সরেজমিন পরিদর্শন শেষে বিশ্বব্যাংকের টেকসই উন্নয়ন প্রকল্পের আঞ্চলিক পরিচালক মি. জন এ রোমি এসব কথা বলেন।  

এদিন বিকেলে বিশ্ব ব্যাংক ও এলজিইডি আরইউটিডিপি (মিউনিসিপ্যাল ইনফ্রাস্ট্রাকচার এন্ড আরবান প্লানিং গ্রুপ)এর একটি প্রতিনিধি দল নড়াইল পৌরসভায় পৌঁছালে ফুলেল শুভেচ্ছা দিয়ে বরণ কওে নেন পৌর মেয়র, কাউন্সিলর ও পরিষদে কর্মকর্তাগণ। এ সময় পৌর মেয়র আজ্ঞুমান আরা, প্যানেল মেয়র কাজী জহিরুল হক ও পৌরসভার নির্বাহী প্রকৌশলী কবির হাসান এ প্রতিনিধি দলের সামনে পৌরসভার প্রস্তাবিত বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্পের যৌক্তিকতা তুলে ধরেন।

এরপর বিশ্ব ব্যাংক ও এলজিইডি আরইউটিডিপি’র প্রতিনিধি দল পৌরসভার প্রস্তাবিত প্রায় ২০টি প্রকল্প এলাকা পরিদর্শন করেন। সরেজমিন পরিদর্শন শেষে পৌর পরিষদ সম্মেলন কক্ষে পুনরায় বিশ্ব ব্যাংক প্রতিনিধি দল পরিদর্শনের ফিডব্যাক দেন বিশ্বব্যাংকের টেকসই উন্নয়ন প্রকল্পের আঞ্চলিক পরিচালক মি. জন এ রোমি।  

মি. জন এ রোমি বলেন, পৌরসভার প্রস্তাবিত প্রকল্প সমূহ ঘুরে দেখলাম এবং পৌরসভার কর্মকর্তাদের ব্যবহার ও কার্যক্রমে আমি খুশি। আমরা আরও কিছু বিষয় আছে সেগুলি দেখবো।    

এ সময় প্রতিনিধি দলের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বিশ্বব্যাংকের টেকসই উন্নয়ন প্রকল্পের আঞ্চলিক পরিচালক মি. জন এ রোমি, প্রোগ্রাম অফিসার মিস গায়েত্রী আচারিয়া, শহর উন্নয়ন বিশেষজ্ঞ মিস ইশিতা আলম অবনি, এলজিইডি’র আরইউটিডিপি-এর প্রোজেক্ট ডিরেক্টর মঞ্জুর আলী প্রমুখ। এ সময় পৌর মেয়র আঞ্জুমান আরা প্রতিনিধিদের ক্রেস্ট প্রদান করেন।

পৌরসভা সূত্রে জানা গেছে, ৪২৫ কোটি টাকার বিভিন্ন প্রকল্পের মধ্যে রয়েছে, সড়ক, ড্রেন ও পয়:নিষ্কাশন, ফুটপথ স্টীট লাইট স্থাপন, চিত্রা নদীর তীরে ওয়াকওয়ে নির্মাণ, কিচেন মার্কেট নির্মাণ, পৌর পার্ক নির্মাণ, বর্জ্য ব্যবস্থাপনা, বিউটিফিকেশন, বাস ও ট্রাক টার্মিনাল নির্মাণ, পাবলিক টয়লেট, কাঁচা বাজার ও পাইকেরি বাজার নির্মাণ,কমিউনিটি সেন্টার নির্মাণ, ফুটওভার ব্রীজ নির্মাণ, কালভার্ট নির্মাণ উন্নয়ন ইত্যাদি।