• 25 Jun, 2024

শুধু আইন দিয়ে ভোক্তার অধিকার নিশ্চিত হবে না : বাণিজ্যমন্ত্রী

শুধু আইন দিয়ে ভোক্তার অধিকার নিশ্চিত হবে না : বাণিজ্যমন্ত্রী

ভোক্তার অধিকার নিশ্চিত করতে শুধুমাত্র আইন দিয়ে হবে না মূল্যবোধও লাগবে বলে জানিয়েছেন বাণিজ্যমন্ত্রী বীর মুক্তিযোদ্ধা টিপু মুনশি। তিনি বলেন, শুধু আইন দিয়ে নয় মূল্যবোধেরও প্রয়োজন আছে। একইসঙ্গে পণ্যের সাপ্লাই আর ডিমান্ড ঠিক রাখতে হবে।

শুক্রবার (১১ আগস্ট) সকালে রাজধানীর তেজগাঁওয়ে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উন্নয়ন কর্পোরেশনে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ বিষয়ক ছায়া সংসদ বিতর্ক প্রতিযোগিতার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর ও ডিবেট ফর ডেমোক্রেসি যৌথভাবে এ প্রতিযোগিতার আয়োজন করে।

তিনি বলেন, ডিম আমাদের মন্ত্রণালয়ের না, ডিমের দাম আমরা ঠিক করতে পারি না। আমাদের জানার দরকার যে ডিমের সঠিক দামটা কত? সেটা জানতে আমাদের ভোক্তা অধিকার মাঠে নামতে পারে। ধরেন, আমরা চারটা সিন্ডিকেট বন্ধ করে দিলাম তারা বাজারে পণ্য দেওয়া বন্ধ করে দিল। তখন আমার ভোক্তারা পণ্য পেল না। এজন্য আমাদের সবদিকে খেয়াল রাখতে হবে।

তিনি আরও বলেন, সাপ্লাই স্মুথ করা গেলে সিন্ডিকেটের প্রভাব থেকে আমরা মুক্তি পেতাম। আমরা সর্বোচ্চ শক্তিতে চেষ্টা করব যেন সিন্ডিকেটের প্রভাব না পড়ে।

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, ভোক্তা অধিকারের লোকবল অনেক কম, আমরা চেষ্টা করছি তাদের লোকবল বাড়াতে।

তিনি বলেন, আমাদের দেশে তেল উৎপাদন হয় ১০ শতাংশ। ৯০ শতাংশ আমদানি করতে হয়। বড় বড় কয়েকটি প্রতিষ্ঠান আমদানি করে থাকে। তেলের যে দাম ঠিক করা হয় অনেক সময় সেই দাম মানা হয় না। আমরা বাণিজ্য মন্ত্রণালয় চেষ্টা করছি। কিছু অসাধু ব্যবসায়ী আছে, তাদেরকে আইন দিয়েই নিয়ন্ত্রণ করতে হবে।

টিপু মুনশি বলেন, আজকে ২০ টাকা, ২৫ টাকা, ৩০ টাকা দরে পেঁয়াজ হলে ভোক্তারা খুশি হবে। কিন্তু আমাদের কৃষকদের কি হবে? তাদের উৎপাদন খরচ ১৮ থেকে ২২ টাকা। এ খরচের উপর তারা কিছু প্রফিট করবে। তা না হলে তারা উৎপাদন করবে না। দাম বাড়লে তারা উৎপাদনে উৎসাহিত হয়। কমপক্ষে ৪৫ থেকে ৫০ টাকা দরে পেঁয়াজ হলে ভোক্তারাও খুশি হবে, কৃষকরাও স্যাটিসফাইড হবে।

ডিবেট ফর ডেমোক্রেসির চেয়ারম্যান হাসান আহমেদ চৌধুরী কিরণের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় ভোক্তা-অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক (অতিরিক্ত সচিব) এ. এইচ. এম সফিকুজ্জামান।

"শুধু আইন দিয়ে ভোক্তা অধিকার নিশ্চিত করা সম্ভব নয়” শীর্ষক ছায়া সংসদের উদ্বোধনী প্রতিযোগিতায় প্রস্তাবের পক্ষে ইডেন মহিলা কলেজ এবং বিপক্ষে শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের বিতার্কিকরা অংশগ্রহণ করেন। প্রতিযোগিতায় শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়কে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয় ইডেন মহিলা কলেজ।