• 01 Mar, 2024

নড়াইলে সংখ্যালঘু হিন্দু হত্যার প্রতিবাদে রাস্তা নামা ও ভোটপ্রদানে বিরত থাকার হুশিয়ারী ঐক্য পরিষদের!

নড়াইলে সংখ্যালঘু হিন্দু হত্যার প্রতিবাদে রাস্তা নামা ও ভোটপ্রদানে বিরত থাকার হুশিয়ারী ঐক্য পরিষদের!

‘নড়াইলে একদিন আগে-পরে দুই দু’টি সংখ্যালঘু হিন্দু হত্যায় স্থানীয় প্রশাসন, ক্ষমতাশীল রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দ ও নির্বাচনী এলাকার সাংসদদ্বয়ের দায়িত্ব অবহেলার অভিযোগ করেছে বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ। ঐক্য পরিষদ দু’টি ঘটনায় জড়িতদের দ্রুত গ্রেফতার ও আইনে সপর্দ্দ না করলে এর প্রতিবাদে সারা দেশে রাস্তা নামার হুশিয়ারী দিয়েছে ঐক্য পরিষদ।’

একদিন আগে পরে নড়াইল জেলায় দুই-দুইজন সংখ্যালঘু হিন্দু পরিবারের মানুষকে নির্মমভাবে হত্যা হয়। গত ১৬ আগস্ট সদরের শেখাহাটি ইউনিয়নের দেবভোগ গ্রামের রাধা পল্লব (৮০)কে পাটকাটা ও জমিজমার বিরোধের জেরে এবং ১৭ আগস্ট লোহাগড়া উপজেলার লাহুড়িয়া ইউনিয়নের কল্যানপুর গ্রামের সুফল বিশ্বাসকে পারিবারিক বিরোধের জেরে হাতুড়ি, দেশিয়অস্ত্র লাঠি দিয়ে পিটিয়ে হত্যা করা হয়।

শনিবার (১৯ আগস্ট) দুপুরে প্রথমে বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের নেতৃবৃন্দ জেলার লোহাগড়া উপজেলার লাহুড়িয়া ইউনিয়নের কল্যানপুর গ্রামে সুফল বিশ্বাস বাড়ির পরিবারের সাথে দেখা করেন এবং শান্তনা দেন। পরে সংক্ষিপ্ত পরিসরে এলাকার মানুষের সাথে এ বিষয়ের উপর মতনিমিয় করেন। এরপর নেতৃবৃন্দ প্রত্যক্ষদর্শিদের কাছ থেকে বক্তব্য শোনেন। প্রত্যক্ষদশর্িী নিহত সুফল বিশ্বাসের ৭ম শ্রেণি পড়–য়া ছেলে সুদেব বিশ্বাস ও নিহতের ভাই ওইদিনের ঘটে যাওয়া ঘটনার বিবরণ ঐক্য পরিষদের নেতৃবৃন্দের সামনে তুরে ধরেন। এ সময় স্থানীয় প্রশাসন, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও এই নির্বাচনী এলাকার সংসদ সদস্যের দায়িত্ব অবহেলার অভিযোগ এনে বক্তব্য রাখেন ঐক্য পরিষদের নেতৃবৃন্দ।  

এরপর বিকাল সাড়ে ৫টায় নড়াইল সদরের শেখাহাটি ইউনিয়নের দেবভোগ গ্রামের রাধা পল্লব (৮০)কে হত্যার প্রতিবাদ সভায় বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের নেতৃবৃন্দ অংশ নেয়। সেখানে নেতৃবৃন্দ স্থানীয় পুলিশ প্রশাসনের গড়িমসি, জনপ্রতিনিধিদের দায়িত্ব অবহেলার অভিযোগ তুলে বক্তব্য দেন। পরে সভা স্থল থেকে একটি প্রতিবাদী মিছিল বের করে। মিছিলটি নিহত রাধা পল্লবের বাড়ির উঠানে গিয়ে শেষ হয়।

এ সময় ঐক্য পরিষদের নেতৃবৃন্দ বলেন, এ দুইটি হত্যাকান্ডের সাথে যারা জড়িত তাদের ২৪ ঘন্টার মধ্যে গ্রেফতার করে আইনে সপর্দ্দ না করলে তারা সারা দেশে এর প্রতিবাদে লাগাতার রাস্তায় নামার হুশিয়ারি দিয়েছেন এবং সামনের নির্বাচনে ভোট প্রদান থেকে রিবত থাকারও অনুরোধ করবে বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান সম্প্রদায়ের ভোটারদের।