• 02 Mar, 2024

মাইজপাড়ায় হাফেজ কামরুজ্জমানের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবীতে মানববন্ধন

মাইজপাড়ায় হাফেজ কামরুজ্জমানের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবীতে মানববন্ধন

নড়াইলকণ্ঠ ॥ নড়াইল সদরে মাইজপাড়া বলরামপুর হাফেজিয়া নূরানী মাদরাসার প্রধান হাফেজ মাওলানা মো: কামরুজ্জামানের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার ও মামলাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবীতে মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়েছে।

রবিবার (০৭ মে) বিকাল সাড়ে ৫টায় মাদরাসার ছাত্র/ছাত্রী, অভিভাবক ও এলাকার সর্বস্তরের অংশগ্রহণে মাঠপ্রাঙ্গনে এ মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, ভুক্তভোগী ওই ছাত্রী মাদ্রাসার সামনে তার খালা বাড়ি থেকে লেখাপড়া করে। সে ইতোপূর্বে বখাটে এক ছেলের সাথে পালিয়ে যায়। তাকে ধরে এনে মাদরাসায় রাখা হয়। তার বেপরোয়া চলাফেরার কারণে একাধিকবার মাদরাসার প্রধান কামরুজ্জামান তাকে শাসন করেছেন। সংশোধন না হলে তাকে মাদরাসা হতে বহিস্কার করার হুমকি দেন। এতে ওই ছাত্রী মারাত্মক ক্ষুব্ধ ছিল ওই শিক্ষকের ওপর। প্রতিশোধ নিতেই সে পরিকল্পিতভাবে নাটক সাজিয়েছে বলে দাবি করেন ওই এলাকার একাধিক ব্যক্তি ও মাদরাসার শিক্ষার্থীরা। মাদরাসার প্রধান হাফেজ মাওলানা কামরুজ্জামান এ প্রতিষ্ঠানে দীর্ঘ ২৫ বছর ধরে শিক্ষকতা করছেন। তার বিরুদ্ধে এ রকম কোন অভিযোগ কেউ কোন দিন করেনি।

বক্তরা আরও জানান, মাদরাসার প্রধান হাফেজ মাওলানা কামরুজ্জামান তিনি পরিবার নিয়ে অত্যন্ত সুনামের সাথে এতোকাল এ এলাকায় রয়েছেন। তিনি সকলের কাছেই শ্রদ্ধেয়। তিনি পরিবার নিয়ে মাদরসা সংলগ্ন বাসায় বসবাস করেন। ইসলাম বিদ্বেষী ওই এলাকার কয়েকজন ধান্দাবাজ লোক মাদরাসার শিক্ষার পরিবেশ নষ্ট করে নিজেরদেও স্বার্থ হাছিলের জন্য বেশ কিছু দিন ধরে কুটকৌশল করে আসছিলেন। তারাও এ ষড়যন্ত্রের সাথে থাকতে পারেন বলে সচেতন মহলের ধারণা।  

দ্রুত এই মাদরাসার প্রধান হাফেজ মাওলানা কামরুজ্জামানের বিরুদ্ধে মিথ্যা প্রত্যাহারের দাবী জানা এলাকাবাসি। তা নাহেল বৃহত্তর আন্দোলনে যাওয়ার হুশিয়ারি দেন।  

এ সময় বক্তব্য রাখেন, বলরামপুর হাফেজিয়া নূরানী মাদরাসার ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ইউপি সদস্য টিক্কা

জানাগেছে গত মঙ্গলবার ০২ মে দিবাগত রাতে ওই ছাত্রী ওয়াশরুমে যাতায়াতের সময় শিক্ষক কামরুজ্জামান  তার শ্লীলতাহানি ঘটায়। এমন অভিযোগের প্রেক্ষিতে গত শনিবার বিকালে মাইজপাড়া বলরামপুর হাফেজিয়া নূরানী মাদরাসার এক ছাত্রীকে শ্লীলতাহানীর অভিযোগে ওই প্রতিষ্ঠানের প্রধান হুজুর হাফেজ মাওলানা কামরুজ্জামানকে প্রথমে আটক, পরে তার নামে নারী ও শিশু নির্যাতন ২০০০ এর ১০ ধারায় যৌন নিপিড়নের অপরাধে তাকে গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতে প্রেরণ করা হয়। বিয়ষটি নড়াইল সদর থানার ওসি ওবাইদুর রহমান নিশ্চিত করেছেন। মামলা নং-৭/১২১, তারিখ-৬/০৫/২০২৩ইং।