হার্ট অ্যাটাকে না ফেরার দেশে ঢাকা কলেজ শিক্ষার্থী আরাফাত

21

হার্ট অ্যাটাক করে না ফেরার দেশে পাড়ি জমিয়েছেন ঢাকা কলেজের গণিত বিভাগের আবাসিক শিক্ষার্থী মো. আরাফাত ইসলাম প্রিন্স। বৃহস্পতিবার (১৯ জানুয়ারি) রাত ১টা ৪০ মিনিটে নেত্রকোনায় নিজ বাড়িতে হার্ট অ্যাটাক করে মারা যান তিনি।

শুক্রবার (২০ জানুয়ারি) সকালে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ঢাকা কলেজের হিসাববিজ্ঞান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ও শহীদ ফরহাদ হোসেন ছাত্রাবাসের তত্ত্বাবধায়ক মোহাম্মদ নাসির উদ্দিন।

তিনি বলেন, আরাফাত ১ম বর্ষ থেকেই শহীদ ফরহাদ হোসেন ছাত্রাবাসের ১০১ নম্বর কক্ষের আবাসিক শিক্ষার্থী ছিল। কলেজের গণিত বিভাগের তৃতীয় বর্ষে পড়াশোনা করত। তার মতো মেধাবী, স্বল্পভাষী এবং বিনয়ী শিক্ষার্থীর মৃত্যুতে আমরা গভীরভাবে শোকাহত। গত দুই দিন আগেই সে বাড়িতে গিয়েছে। যতটুকু জানি তার বাবা নেই। পরিবারে মা এবং ছোট বোন রয়েছেন। মৃত্যুর খবর শোনার সাথে সাথে তার কক্ষে ছুটে গিয়েছি। সেখানে সহপাঠীদের সাথে কথা বলেছি। তারাও অত্যন্ত ব্যথিত। আমরা সবাই মিলে আরাফাতের জন্য প্রার্থনা করি। শুক্রবার জুমার নামাজের পর ঢাকা কলেজের মসজিদে তার বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করে দুআ করা হবে। একইসঙ্গে ঢাকা কলেজ পরিবার পক্ষ থেকে তার শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর শোক ও সমবেদনা প্রকাশ করছি।

বিভাগের শিক্ষার্থীর হঠাৎ মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেন ঢাকা কলেজের গণিত বিভাগের বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক অখিল চন্দ্র বিশ্বাস। তিনি বলেন, প্রতিটি মৃত্যুই কষ্টের। যারা প্রিয়জন হারায় তারাই বুঝতে পারেন এর বেদনা। আমার শিক্ষার্থী অল্প বয়সে মারা গিয়েছে খবরে খুব কষ্ট পেয়েছি। আমি তার বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করি। একইসাথে আরাফাতের শোকসন্তপ্ত পরিবার প্রতি গভীর শোক ও সমবেদনা প্রকাশ করছি।

বন্ধুবৎসল এবং স্বল্পভাষী আরাফাতের মৃত্যুর খবরে শোকে হতবিহবল তার সহপাঠী ও ছাত্রাবাসের অন্যান্য শিক্ষার্থীরা।

এনামুল হক নামে এক শিক্ষার্থী বলেন, সম্পূর্ণ সুস্থ এবং স্বাভাবিক অবস্থায় বাড়িতে বেড়ানোর জন্য গিয়েছিল। গতকাল রাতে হঠাৎ করেই এমন দুঃসংবাদ পেলাম। আসলে কিছু মৃত্যু মেনে নেওয়া খুবই কষ্টের। ব্যক্তি জীবনে আরাফাত স্বল্পভাষী, অনেক বিনয়ী ও নম্র ভদ্র স্বভাবের মানুষ ছিল। ছাত্রাবাসের শিক্ষার্থীরা তার মৃত্যুর সংবাদে শোকে স্তব্ধ হয়ে গেছেন।