ছাত্রলীগের সম্মেলন: পদপ্রত্যাশীদের দৌড়ঝাঁপ শুরু

19

ঢাকা মহানগর  উত্তর ও দক্ষিন ছাত্রলীগের সম্মেলন ঘিরে নগরী জুড়ে সাজ সাজ রব। পদপ্রত্যাশী ও তাদের সমর্থকদের পোস্টার, ফেস্টুন ও তোরণে ছেয়ে গেছে পথঘাট-অলিগলি। সম্মেলনের অতিথি কেন্দ্রীয় নেতাদের নজর কাড়তে নানা রঙ বেরঙের এসব ব্যানার-ফেস্টুন করা হয়েছে। ছাত্রলীগের নতুন সম্মেলনের খবরে উচ্ছ্বাস বিরাজ করছে নেতাকর্মীদের মধ্যে। একই সঙ্গে শুরু হয়েছে পদপ্রত্যাশীদের দৌড়ঝাঁপ। ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের আড্ডার বিষয়বস্তু এখন ডিসেম্বরে অনুষ্ঠিতব্য ৩০তম সম্মেলনকে ঘিরে। বয়সের কারণে যারা প্রার্থী হতে পারবেন না তাদের মধ্যে দেখা দিয়েছে সাবেক হওয়ার ক্ষণ গণনা। রাজনীতিতে  ক্যারিয়ার গড়তে না পেরে চাকরির বয়স পার করে আবার অনেকে ডুবছেন হতাশায়। ঢাকা মহানগর  উত্তর ও দক্ষিন ছাত্রলীগের সম্মেলন (২ ডিসেম্বর ২০২২)। ২০১৮ সালের ৩১ জুলাই  মোঃ ইব্রাহিম হোসেন কে সভাপতি এবং সাইদুর রহমান হৃদয়কে সাধারণ সম্পাদক করে ঢাকা মহানগর উত্তর ছাত্রলীগের কমিটি ঘোষণা করা হয় এবং ঢাকা মহানগর দক্ষিন ছাত্রলীগের সভাপতি মোঃ মেহেদী হাসান এবং জুবায়ের কে সাধারণ সম্পাদক করে কমিটি ঘোষণা করা হয়।

সম্মেলন ঘিরে পুরো শহর রঙিন পোস্টার, বিলবোর্ড, ব্যানার, ফেস্টুন ও তোরণে ছেয়ে গেছে। সম্ভাব্য প্রার্থীরা কেন্দ্রীয় নেতাদের আগমন উপলক্ষ্যে স্বাগত জানাতে তোরণ নির্মাণের প্রতিযোগিতা করছেন। শহরে প্রবেশ পথের বিভিন্ন সড়কে কয়েক কিলোমিটার জুড়ে ২০-৫০ গজ অন্তর অন্তর এসব তোরণ নির্মিত হয়েছে।

২০২২ সালের সম্মেলনে কে ঘিরে সভাপতি /সাধারণ সম্পাদক পদে কমিটিতে আসতে অনেক প্রার্থীর নাম জোরেশোরে শোনা যাচ্ছে।  এদের মধ্যে ঢাকা মহানগর উত্তর ছাত্রলীগের বর্তমান কমিটির সহ সভাপতি  মো. শাহাবুদ্দিন আহমেদ সুমন ।

প্রার্থী হিসেবে মো. শাহাবুদ্দিন আহমেদ সুমন কে প্রশ্ন করলে তিনি বলেন, থাকতে পারে এর জন্য আমার কি করার আছে।

এ নিয়ে স্থানীয় নেতাকর্মী ও রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা নানা সমীকরণ কসছেন। ঢাকা মহানগর  উত্তর ও দক্ষিন ছাত্রলীগের নতুন নেতৃত্বে কারা আসছেন সেটি জানতে সম্মেলন পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে এবং তিনি আরো বলেন ছাত্রলীগের একমাত্র অভিভাবক মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার সিদ্ধান্তই চুড়ান্ত।