যশোর হাইটেক পার্কের ডরমেটরিতে অনৈতিক কর্মকান্ডের সত্যতা মিলেছে!

49

নড়াইলকণ্ঠ ॥ অবশেষে যশোর হাইটেক পার্কের ডরমেটরিতে অনৈতিক কর্মকান্ডের সত্যতা পেয়েছে তদন্তে আসা দু’টি টিম। তদন্ত কমিটি ১০দিনের মধ্যে চুড়ান্ত প্রতিবেদন দাখিল করবে স্ব স্ব সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিকট।

যশোর হাইটেক পার্ক এর ডরমেটরিতে নারীঘটিত বিষয়সহ নানা অনৈতিক কর্মকান্ডের ঘটনায় বিভিন্ন স্থানীয় গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশের পর গত ২০ অক্টোবর বৃহস্পতিবার দু’টি তদন্ত কমিটি দিনভর হাইটেক পার্ক অথরিটির পক্ষে ১টি এবং আইসিটি অধিদপ্তরের পক্ষে যশোর জেলা প্রশাসনের ১টি কমিটি এ ঘটনার তদন্ত করে। তদন্ত শেষে কমিটির একজন সদস্য জানিয়েছেন,অভিযোগের সত্যতা তারা পেয়েছে।

তদন্ত কমিটির সদস্যরা যশোর হাইটেক পার্ক এর ডরমেটরির সিসি টিভি ফুটেজ দেখে, স্টাফ ও ইনভেস্টরদের সাথে কথা বলেছেন। পত্রিকায় প্রকাশিত তথ্য ছাড়াও তদন্তের সময় আরও চাঞ্চল্যকর অনেক নতুন তথ্য দিয়েছে পার্ক সংশ্লিষ্টরা।

এদিকে যশোর থেকে প্রকাশিত গ্রামের কাগজে এ খবর প্রকাশের পর দেশজুড়ে আলোচনা হচ্ছে পার্ক ব্যবস্থাপনা প্রতিষ্ঠান টেকসিটির সহকারী ম্যানেজার শাহরিয়াজ ও ডরমেটরি নিয়ে। তদন্ত কমিটির একজন সদস্য জানিয়েছেন, অভিযোগের সত্যতা তারা মিলেছে। আরও খোঁজখবর নিয়ে আগামি ১০ দিনের মধ্যে একটি প্রদিবেদন দাখিল করবে তদন্ত কমিটি।

অব্যহতভাবে নারী কেলেংকারী, ডরমেটরিতে কলগার্ল ব্যবসা, মদ সাপ্লাইসহ নানা কর্মকান্ডে অতিষ্ঠ পার্ক সংশ্লিষ্টদের তথ্যে ১৯ অক্টোবর ও ২০ অক্টোবর বিভিন্ন পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশিত হয় টেকসিটির সহকারী ম্যানেজার শাহরিয়াজের বিরুদ্ধে।

সংবাদ সূত্রে হাইটেক পার্ক অথরিটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক অতিরিক্ত সচিব বিকর্ণ কুমার ঘোষ ও পার্ক ব্যবস্থাপনা প্রতিষ্ঠান টেকসিটি বাংলাদেশ লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক যৌথ তদন্ত কমিটি গঠন করেন।

গত ২০ অক্টোবর বৃহস্পতিবার যশোরে আসেন ওই কমিটির সদস্য হাইটেক পার্ক অথরিটির সংগ্রহ ও অধিশাখার উপ-পরিচালক মাহফুজুল কবীর, টেকসিটির অতিরিক্ত পরিচালক হারুন অর রশিদ এবং মানবসম্পদ বিভাগের প্রধান শওকত হোসেন। তারা দিনভর আইটি পার্ক ডরমেটরিসহ পার্কের সকল শাখায় তদন্ত করেন।

যশোর হাইটেক পার্ক এর ডরমেটরির অনৈতিক ঘটনার প্রকাশিত সংবাদ দৃষ্টিগোচর হলে গতকাল সকালে আইসিটি অধিদপ্তরের সিনিয়র সচিব জিয়াউল আলম যশোরের ডিসি তমিজুল ইসলাম খানকে ফোন করেন। তিনি ঘটনার তদন্ত করে অধিদপ্তরকে জানাতে জেলা প্রশাসককে বলেন।

এঘটনায় গতকাল জেলা প্রশাসকের গঠন করা তদন্ত কমিটির সদস্য অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক শিক্ষা ও আইসিটি মনোয়ার হোসেন, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নুসরাত ইয়াসমিন ও আইসিটি অধিদপ্তরের প্রোগ্রামার আনিসুর রহমান তদন্ত কার্যক্রম পরিচালনা করেন আইটি পার্কে। দুটি তদন্ত কমিটিই গণমাধ্যমে প্রকাশিত সংবাদ ও বিভিন্ন সূত্র থেকে পাওয়া অনাকাঙিখত ঘটনাগুলোর তথ্য আমলে নিয়ে তদন্ত করেন।

টেকসিটির সহকারী ম্যানেজার শাহরিয়াজের ডরমেটরি তথা পার্কের আবাসিকে অনৈতিক কারবার, এক নারীকে ব্লাকমেইল করে ৩ লাখ টাকায় আদায়, গ্রেস প্রিরিয়ডকে পুঁজি করে বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে টাকা আদায়সহ নানা অভিযোগে তদন্ত করেন তারা।

এসময় দু’টি কমিটিই ডমেটরির স্টাফ, আইটি পার্কের বিভিন্ন পর্যায়ের স্টাফ ও ইনভেস্টর অ্যাসোসিয়েশন নেতৃবৃন্দের সাথে কথা বলেন। কমিটির সাথে কথা বলেন শেখ হাসিনা সফটওয়্যার পার্কের ইনভেস্টর এসোসিয়েশনের সভাপতি আহসান কবীর বাবু, সাধারণ সম্পাদক শাহ জালাল, সাবেক সেক্রেটারি মহিদুল ইসলাম, বর্ণ আইটির সিইও উজ্জল বিশ্বাস, চালডাল ডট কম যশোরের ডেপুটি ডিরেক্টর সাদাত হোসেন মিথুন, সেমিকলনের খন্দকার রাশেদ মেনন, অ্যাসোসিয়েশন সদস্য ইনভেস্টর জহির ইকবাল নান্নু, রাকিব হাসান প্রমূখ।

ইনভেস্টররা টেকসিটির উর্ধতন একজন কর্মকর্তার বিরুদ্ধেও অভিযোগ করেছেন বলে তাদের একটি সূত্র জানিয়েছে।