‘প্রধানমন্ত্রীর ভারত সফরকালে সীমান্তে হত্যা ঔদ্ধত্যের বহিঃপ্রকাশ’

28

প্রধানমন্ত্রীর ভারত সফরকালে সীমান্তে বিএসএফের গুলিতে বাংলাদেশি হত্যা বন্ধুত্বের নমুনা নয় বরং ভারতের চরম ঔদ্ধত্যের বহিঃপ্রকাশ বলে দাবি করেছেন বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক।

তিনি বলেন, ক্ষমতার পেছনে দেশের মানুষের সমর্থন না থাকলে কূটনৈতিক দরকষাকষিতেও জাতীয় স্বার্থ নিশ্চিত করা যায় না।

বৃহস্পতিবার (৮ সেপ্টেম্বর) বিকেলে রাজধানীর সেগুন বাগিচায় দলীয় কার্যালয়ে দলের ঢাকা মহানগরের সম্পাদকমণ্ডলীর সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

সাইফুল হক বলেন, বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর ভারত সফরকালে গতকাল রাতে দিনাজপুরের দাইনুর সীমান্তে বিএসএফের গুলিতে বাংলাদেশি যুবক মিনহাজের মৃত্যু হয়েছে। আরও দুই বাংলাদেশি নাগরিকের নিখোঁজ হওয়ার ঘটনা ঘটেছে। আমরা এ ঘটনায় তীব্র ক্ষোভ ও নিন্দা প্রকাশ করছি। প্রধানমন্ত্রীর দিল্লি সফরকালে সীমান্তে এই ধরনের হত্যাকাণ্ড বিএসএফ ও ভারতের চরম ঔদ্ধত্যের বহিঃপ্রকাশ।

তিনি আরও বলেন, দুই প্রধানমন্ত্রীর আলোচনার পর প্রদত্ত বিবৃতিতে যখন দুই দেশের বন্ধুত্বের জয়গান হচ্ছে, তখন সীমান্তে বাংলাদেশিদের হত্যা প্রমাণ করে এই বন্ধুত্ব সম-মর্যাদার নয়। বরং প্রতিবেশীদের প্রতি ভারতের আধিপত্যবাদী মনোভাবেরই প্রমাণ।

আসাম সীমান্তের অবশিষ্ট অংশে কাঁটাতারের বেড়া নির্মাণের ঘোষণায় উৎকণ্ঠা প্রকাশ করেন সাইফুল হক। বলেন, ফিলিস্তিন-ইসরায়েল আর আমেরিকা-মেক্সিকো সীমান্ত ছাড়া কাঁটাতারের এ রকম বন্ধুত্বের নমুনা পৃথিবীতে আর তেমন নেই।

ঢাকা মহানগর কমিটির সম্পাদক আকবর খানের সভাপতিত্বে সভায় আরও বক্তব্য রাখেন মহানগর কমিটির সম্পাদক মোফাজ্জল হোসেন মোশতাক, কামরুজ্জামান ফিরোজ, আবুল কালাম আজাদ, মো. সালাহ উদ্দিন প্রমুখ।