টেক্সাসে বর্ণবাদী হামলার শিকার ভারতীয় নারীরা, অভিযুক্ত গ্রেপ্তার

14


যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাস অঙ্গরাজ্যে বর্ণবৈষম্যের শিকার হয়েছেন চার ভারতীয়-আমেরিকান নারী। স্থানীয় সময় বুধবার রাতে একজন মেক্সিকান-আমেরিকান নারী ওই চার নারীকে অকথ্য ভাষায় আক্রমণ করেন। এমনকি শারীরিকভাবে লাঞ্ছিতও করেন তাদের।

এসময় ভুক্তভোগীদের গুলি করারও হুমকি দেন অভিযুক্ত ওই নারী। পরে পুলিশ তাকে আটক করে। শুক্রবার (২৬ আগস্ট) এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে বার্তাসংস্থা পিটিআই এবং সংবাদমাধ্যম সিবিএস নিউজ।

এদিকে ভারতীয় নারীদের বর্ণবৈষম্যের শিকার হওয়ার ওই ঘটনার একটি ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে। সেখানে অভিযুক্ত নারীকে বর্ণবাদী স্লোগান দিতে দেখা যায়। ওই নারীর অভিযোগ, তারা (ভারতীয়রা) আমেরিকাকে ধ্বংস করছে এবং এ কারণে তাদের ‘ভারতে ফিরে যাওয়া’ উচিত।


সংবাদমাধ্যম বলছে, বুধবার রাতে টেক্সাসের ডালাসের একটি পার্কিং লটে এক মেক্সিকান-আমেরিকান নারীর আক্রমণের মুখে পড়েন একদল ভারতীয় নারী। আচমকাই তাদের দেখে ওই মেক্সিকান-আমেরিকান নারী চিৎকার করতে থাকেন এবং বলেন, ‘ইউ ইন্ডিয়ানস আর এভরিহয়ার, গো ব্যাক টু ইন্ডিয়া’ (তোমরা ভারতীয়রা সর্বত্র ঘুরে বেড়াচ্ছো, ভারতে ফিরে যাও)।

অবশ্য বর্ণবাদী ওই মন্তব্যের জেরে অভিযুক্ত নারীকে গ্রেপ্তার করেছে টেক্সাস পুলিশ। ইতোমধ্যেই সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে এই ঘটনার ভিডিও। ভিডিওটিতে দেখা যাচ্ছে, তিনি ভারতীয় নারীদের ওই দলকে বলছেন, ‘ভারতে ফিরে যাও। তোমাদের মতো… লোকেরা এই দেশকে ধ্বংস করছে’।


বুধবার রাতেই বিদিশা রুদ্র নামে যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী এক বাঙালি নারী ফেসবুকে বর্ণবৈষম্যের শিকার হওয়ার কথা জানান। সাড়ে পাঁচ মিনিটের ওই ভিডিওতে দেখা যায়, কালো পোশাক পরিহিত এক নারী তাদের উদ্দেশ্যে অশ্রাব্য গালিগালাজ করছেন। রীতিমতো তেড়ে এসে ওই নারী বলেন, ‘ভারতীয়রা সব জায়গায় রয়েছে। ভারত যদি এতই ভাল হয়, তবে তোমরা ভারতেই ফিরে যাও না কেন?’

হঠাৎ এ ধরনের কথার কারণ জানতে চাইলে ওই নারী আরও রেগে যান এবং যে মোবাইলে এই ঘটনা রেকর্ডিং করা হচ্ছিল, সেটি কেড়ে নেওয়ার চেষ্টা করেন। এছাড়া ওই বাঙালি নারীর সঙ্গে থাকা অন্য এক নারীকে মুখে আঘাতও করেন তিনি। এরপর তাদের গুলি করার হুমকিও দেন।


অবশ্য ওই ঘটনার পরই ডালাসের প্লানো পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়, এসমেরাল্ডা আপ্টন নামক এক নারীকে বৃহস্পতিবারই গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

প্লানো পুলিশ বিভাগের এক কর্মকর্তা জানান, অভিযুক্ত নারীর নাম এসমেরাল্ডা আপ্টন। বৃহস্পতিবার তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। তার বিরুদ্ধে হামলা, হুমকি এবং বর্ণবিদ্বেষী মন্তব্য করার অভিযোগ আনা হয়।

এই ঘটনার বিস্তারিত তদন্ত চলছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।