পর্যটন খাত বিকাশে যৌক্তিক ভ্যাট-ট্যাক্স আরোপ চায় সংসদীয় কমিটি

28

পর্যটন খাতের বিকাশে যৌক্তিক পর্যায়ে ভ্যাট-ট্যাক্স আরোপ চায় সংসদীয় কমিটি। বুধবার (২৪ আগস্ট) সংসদ ভবনে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটির বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

বৈঠকে অর্থ মন্ত্রণালয়, জাতীয় রাজস্ব বোর্ড এবং ঢাকার দুই সিটি করপোরেশনের প্রতিনিধিদের ডেকে কথা বলেছে। পরে কমিটি তাদের আন্তঃসভা করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের সুপারিশ করেছে।

বৈঠক সূত্রে জানা গেছে, সংসদীয় কমিটির আগের বৈঠকে পর্যটন খাতের ভ্যাট-ট্যাক্স নিয়ে আলোচনা হয়। ওই বৈঠকে কমিটির সভাপতি র আ ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী বলেন, পর্যটন শিল্প বিকাশে প্রচলিত ভ্যাট-ট্যাক্স অন্তরায়। এ বিষয়ে বৈঠকে বহুবার আলোচনা হলেও কোনো সুরাহা করা যাচ্ছে না। ওই বৈঠকে তিনি বিষয়টি নিয়ে ঢাকার দুই মেয়র, অর্থসচিব ও এনবিআর চেয়ারম্যানকে ডাকার বিষয়ে মতামত দেন। পরে তা সুপারিশ আকারে নিয়ে আসা হয়।

ভ্যাট-ট্যাক্স বিষয়ে পর্যটন করপোরেশন তার প্রতিবেদনে বলেছে, পর্যটন করপোরেশনের সেবামূল্যের ওপর ১৫ শতাংশ, সেবার মালামাল ক্রয়ের ওপর ৫ শতাংশ রাজস্ব প্রাপ্তির ওপর ৫ শতাংশ আয়কর দিতে হয়। সংস্থাটি সার্বিক আয়ের ওপর ২৫ শতাংশ ভ্যাট ও আয়কর পরিশোধসহ কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বেতন ভাতাদি পরিশোধ করে প্রতিষ্ঠানটির অস্তিত্ব রক্ষা দূরূহ হয়ে উঠেছে।

প্যাকেটজাত চাল, ডাল, তৈল, ঘি, আটা, ময়দাসহ পানীয় ও জুসসহ বিভিন্ন পণ্যে উৎপাদন পর্যায়ে একাধিকবার ভ্যাট দেওয়া হয় উল্লেখ করে তারা পণ্যের মোট দামের ওপর ভ্যাট নির্ধারণের পরিবর্তে বর্ধিত মূল্যের ওপর যৌক্তিকহারে করারোপের কথা বলে। পর্যটন করপোরেশন ২০২১-২২ অর্থবছর পর্যন্ত করপোরেট ট্যাক্স ৪৩ কোটি ৪ লাখ ৮৪ হাজার টাকা, লভ্যাংশ বাবদ ৮ কোটি ২০ লাখ ২১ হাজার টাকা, ভ্যাট বাবদ ৩৪ কোটি ৭৩ লাখ ১৬ হাজার পরিশোধ করেছে বলেও প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়।

সংসদ সচিবালয়ের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, বৈঠকে পর্যটনশিল্প বিকাশে দেশে প্রচলিত ভ্যাট ও ট্যাক্স অন্তরায় হিসেবে কাজ করার বিষয়টি নিয়ে ঢাকা উত্তর/দক্ষিণ সিটি করপোরেশন, অর্থ মন্ত্রণালয় এবং জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের সমন্বয়ে আন্তঃসভা করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের সুপারিশ করা হয়।

কমিটি কক্সবাজার বিমানবন্দর এলাকার ভাঙনপ্রবণ স্থানগুলো চিহ্নিত করে তা রক্ষায় জেলা প্রশাসন, সিভিল এভিয়েশন অথরিটি ও মন্ত্রণালয়ের সমন্বিত কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণের সুপারিশ করে।

কমিটির সভাপতি র আ ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরীর সভাপতিত্বে বৈঠকে আশেক উল্লাহ রফিক, আনোয়ার হোসেন খান ও সৈয়দা রুবিনা আক্তার অংশগ্রহণ করেন।