যে কারণে প্রকাশ্যে এলেন আইয়ুব বাচ্চুর স্ত্রী

27

বাংলা ব্যান্ড মিউজিকের কিংবদন্তি তারকা আইয়ুব বাচ্চু। দীর্ঘ ক্যারিয়ারে তিনি সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়েছেন একাধিক প্রজন্মকে। তবে তার ব্যক্তিগত জীবন বরাবরই আড়ালে ছিল। এমনকি আইয়ুব বাচ্চুর স্ত্রী ফেরদৌস আক্তার চন্দনাকেও কখনো প্রকাশ্যে দেখা যায়নি।

তবে এবি’র প্রয়াণের পর বিভিন্ন জরুরি প্রয়োজনে তার স্ত্রীকে ছুটোছুটি করতে হয়েছে, হচ্ছে। এবার প্রকাশ্যে এসেছেন ফেরদৌস আক্তার চন্দনা। আইয়ুব বাচ্চুর মৃত্যুবার্ষিকী (১৬ আগস্ট) উপলক্ষে স্মৃতিচারণ করেছেন তিনি।

‘রিমেম্বারিং আইয়ুব বাচ্চু’ শীর্ষক ওই অনুষ্ঠানের সঞ্চালনা করেছেন তানভীর তারেক। পরিকল্পনা ও প্রযোজনাও তারই। অনুষ্ঠানে চন্দনার সঙ্গে অতিথি হয়েছেন এবি’র ব্যান্ডসঙ্গী আব্দুল্লাহ আল মাসুদ।

সবসময় আড়ালে থাকলেও কী কারণে এখন প্রকাশ্যে এসেছেন, সে বিষয়ে ফেরদৌস আক্তার চন্দনা বলেন, ‘আমি আজীবনই মিডিয়ার বাইরে থেকেছি। এসব বুঝি না। বুঝতেও চাইনি। কিন্তু এখন বাচ্চুর স্মৃতি সংরক্ষণ আর ওর এই অমূল্য গানের সংরক্ষণের কাজগুলো আমি আমার দুই সন্তানের পক্ষ থেকে করছি। দায়িত্বগুলো আমার সন্তানের। ওরা যেহেতু বাইরে পড়াশোনা করছে, এজন্য আমি ছুটে বেড়াচ্ছি।’

তবে এসব কাজ করতে গিয়ে কিছু সমস্যাও মোকাবিলা করতে হচ্ছে তাকে। চন্দনা বলেন, ‘এসব কাজ নিয়ে অনেকেই সাপোর্ট দিচ্ছেন। তবে কারও কারও বাঁকা কথাও শুনতে হচ্ছে। ওদের সবাইকে তো আমি জনে জনে ব্যাখ্যা দিতে পারবো না। তানভীর ভাই বাচ্চুর খুব স্নেহধন্য ছিল। তাই তার অনুরোধে এবং সময়ের প্রয়োজনে কিছু কথা বলেছি।’

অনুষ্ঠানটি প্রসঙ্গে সঞ্চালক-প্রযোজক তানভীর তারেক বলেন, ‘বাচ্চু ভাইকে নিয়ে আমার অধিকাংশ শোতে কথা বলি। এই অনুষ্ঠানটি বিশেষ, কারণ প্রথমবার চন্দনা ভাবী প্রকাশ্যে এসে কথা বলেছেন। আমি চেয়েছি কিছু প্রাসঙ্গিক আলাপের অবতারণা করতে এই আয়োজনের মাধ্যমে। আশা করছি দর্শকরা উপভোগ করবেন।’

এই অনুষ্ঠান কয়েক পর্বে সাজানো হয়েছে। প্রথম পর্ব প্রচার হবে মঙ্গলবার (১৬ আগস্ট) রাত ১০টায় তানভীর তারেকের ফেসবুক পেজ ও ইউটিউব চ্যানেলে।