আইফেল টাওয়ারের চেয়েও উঁচু রেল সেতু কাশ্মীরে

16

জম্মু ও কাশ্মীরে পাহাড়ের দুই অংশকে মিলিয়ে দিল রেল সেতু। এর ফলে কমে গেল কয়েক কিলোমিটার পথ। সোমবার (১৫ আগস্ট) ভারতের স্বাধীনতা দিবসের আগে উদ্বোধন করা হয়েছে এ সেতু। উচ্চতার দিক থেকে বিচার করলে এই চেনাব সেতু বিশ্বের সর্বোচ্চ রেল সেতু।

চেনার নদীর দুই প্রান্তকে যোগ করেছে একটি মাত্র আর্চ। অত্যন্ত জটিল এই কাঠামো তৈরি হয়েছে রেলের ইঞ্জিনিয়ারদের নিরলস প্রচেষ্টায়। এ নিয়ে কোঙ্কন রেলের এমডি সঞ্জয় গুপ্তা বলেন, পুরো যাত্রাটাই ছিল এক বিশাল চ্যালেঞ্জ। আমাদের ইঞ্জিনিয়ারদের বিরাট সাফল্য এটা। এটিই দুনিয়ার সর্বোচ্চ রেল সেতু।

সেতুটির নির্মাতা সংস্থা অ্য়াফকনসের ডেপুটি ম্যানেজিং ডিরেক্টর গিরিধর রাজগোপালন বলেন, গত বছর যখন আমরা সেতুর আর্চ শেষ করলাম তখন অনেকটাই নিশ্চিন্ত লাগছিল। কোনো সমস্যা হয়নি। বুঝতে পেরেছিলাম এই প্রজেক্ট শেষ করতে পারব।


এক নজরে চেনাব সেতু

ভৌগলিক অবস্থান, বিপদসঙ্কুল নির্মাণ ও প্রতিকূল আবহাওয়াকে সঙ্গে নিয়েই তৈরি হয়েছে এই সেতু। সেতুটি উচ্চতার প্যারিসের আইফেল টাওয়ারের থেকেও ৩৫ মিটার বেশি উঁচু।

সেতুটির নির্মাতা সংস্থা অ্য়াফকনস চেনাব সেতু ছাড়াও জম্মু ও কাশ্মীরের পাহাড়ি এলাকায় আরও ১১টি সেতু তৈরি করছে। উধমপুর-শ্রীনগ-বারামুলা রেল পথেই ওই ১১ সেতু তৈরি হচ্ছে। ওই রেল পথের জন্য খরচ ধরা হয়েছে ২৮ হাজার কোটি টাকা।

নদীর জলতল থেকে ৩৫৯ মিটার উপরে অবস্থান সেতুর। ইঞ্জিনিয়ারদের মতে, সেতুর আয়ু ১২০ বছর এবং এর উপর দিয়ে সর্বাধিক ১০০ কিমি বেগে ট্রেন চলাচল করতে পারবে।