পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয়

5

সিনিয়র শিক্ষক, উত্তরা হাইস্কুল অ্যান্ড কলেজ

উত্তরা, ঢাকা

নারী-পুরুষ সমতা

প্রশ্ন : নারী নির্যাতনের দুটি কারণ উলে­খ কর।

উত্তর : নারীরা সমাজের মোট জনগোষ্ঠীর অর্ধেক হলেও পুরুষশাসিত এ সমাজে নারীরা নানাভাবে নির্যাতনের শিকার। নারী নির্যাতনের দুটি কারণ নিচে দেওয়া হলো-

  • নারী নির্যাতনের মূল কারণ হচ্ছে পুরুষের তুলনায় নারী বা মেয়েদের নিæ সামাজিক মর্যাদা।
  • শিক্ষার অভাব, দারিদ্র্য, অর্থনৈতিক নির্ভরশীলতা, বিভিন্ন কুসংস্কার নারী নির্যাতনের অন্যতম কারণ।

নারী নির্যাতনের কারণগুলো দূর করে সমাজে নারী-পুরুষের সমতা বিধানে সচেষ্ট হতে হবে।

প্রশ্ন : নারী নির্যাতনের দুটি কুফল উলে­খ কর।

উত্তর : নারী নির্যাতনের দুটি কুফল নিচে দেওয়া হলো :

  • পারিবারিকভাবে নারী নির্যাতন হলে নির্যাতিত নারীর শারীরিক, মানসিক ক্ষতি হয়। যেসব পরিবারে মায়েরা নির্যাতনের শিকার হয় সেসব পরিবারে শিশুদের শারীরিক ও মানসিক বিকাশ বাধা পায়।
  • নির্যাতিত নারী সময়মতো কাজে যেতে পারে না। ফলে অর্থনৈতিক ক্ষতি হয়। রাস্তাঘাটে, বিদ্যালয়ে আসা-যাওয়ার পথেও মেয়েরা নানা হয়রানির শিকার হচ্ছে। যৌতুকের কারণে নারীদের সাংসারিক জীবন নষ্ট হয়।

সুতরাং, নারী নির্যাতনের কুফল অনেক।

প্রশ্ন : আন্তর্জাতিক নারী দিবসের তাৎপর্য কী?

উত্তর : ৮ মার্চ হলো আন্তর্জাতিক নারী দিবস।

  • ১৮৫৭ সালের ৮ মার্চ নিউইর্য়ক শহরের একটি পোশাক কারখানায় নারী গার্মেন্ট শ্রমিকরা ন্যায্য মজুরি ও শ্রমের দাবিতে আন্দোলন করে। এই আন্দোলনের মধ্য দিয়ে তারা পুরুষের সমান মজুরি এবং দৈনিক আট ঘণ্টা শ্রমের দাবি আদায় করে। এতেই নারী দিবসের তাৎপর্য ও গুরুত্ব ফুটে ওঠে।
  • নারী সমাজের অধিকার প্রতিষ্ঠা, নারীরা সমাজে কতখানি বঞ্চনার শিকার সেসব মূল্যায়ন করা হয় এই দিনটিতে।
  • এ দিনে নারীদের নিজ অধিকার প্রতিষ্ঠা করার জন্য কী করতে হবে সে সম্পর্কে সচেতন করে তোলাই হচ্ছে নারী দিবসের আরেকটি তাৎপর্য।

সুতরাং, নারী দিবসের মাধ্যমে সমাজে সচেতনা বাড়ছে ও নারীদের নানাক্ষেত্রে মূল্যায়ন করা হচ্ছে। এটাই নারী দিবসের তাৎপর্য।

প্রশ্ন : বেগম রোকেয়া সম্পর্কে তিনটি বাক্য লেখ।

উত্তর : বেগম রোকেয়া সম্পর্কে তিনটি বাক্য নিচে দেওয়া হলো :

  • নারী জাগরণের অগ্রদূত বেগম রোকেয়ার শিক্ষার প্রতি প্রবল ঝোঁক বা অনুরাগ থাকায় তিনি নানা প্রতিক‚ল পরিবেশে নিজের শিক্ষাজীবন এগিয়ে নেন।
  • তার অক্লান্ত পরিশ্রমে ভারতীয় উপমহাদেশের মেয়েরা ধীরে ধীরে শিক্ষার আলো পেতে থাকেন। নারী শিক্ষা বিস্তারে তার এ অবদান অসামান্য ও অনন্য।
  • ভারতীয় উপমহাদেশে নারীর অধিকার প্রতিষ্ঠায় সমাজকে সচেতন করতে অসামান্য অবদান রাখেন বেগম রোকেয়া।

সুতরাং বেগম রোকেয়ার এ অসামান্য অবদানের জন্য তার জš§দিন, ৯ ডিসেম্বরকে বাংলাদেশ সরকারিভাবে রোকেয়া দিবস পালন করে।

প্রশ্ন : বাংলাদেশে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভর্তি হওয়া ছাত্রছাত্রীর অনুপাত কত?

উত্তর : শিক্ষা লাভের অধিকার প্রত্যেক শিশুর একটি মৌলিক অধিকার। বাংলাদেশ সরকার ছয় বছরের ওপরে সব শিশুর জন্য শিক্ষাকে বাধ্যতামূলক করেছে। শিক্ষাকে উৎসাহিত করার জন্য মফস্বলে খাদ্যের বিনিময়ে শিক্ষা বা নারীশিক্ষার জন্য উপবৃত্তিসহ নানা কর্মসূচির আয়োজন করা হয়েছে। বাংলাদেশে প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ভর্তি হওয়া ছাত্রছাত্রীর অনুপাত নিæরূপ-

ছাত্রী ভর্তি ৮৪% ছাত্র ভর্তি ৮১%

সুতরাং, ছাত্রী ভর্তি : ছাত্র ভর্তি = ৮৪ : ৮১% = ৮৪ : ৮১

অর্থাৎ, ছাত্র ও ছাত্রী ভর্তির সংখ্যা প্রায় সমান সমান। কিন্তু, যত সংখ্যা ছাত্রছাত্রী ভর্তি হয় তাদের একটা বিশাল অংশ ঝরে যায়। নানা পদক্ষেপের মাধ্যমে এই ঝরে যাওয়া রোধ করে ছাত্রছাত্রীর ভর্তির অনুপাত ১০০ : ১০০ নিশ্চিত করতে হবে।

বাংলাদেশের সব শিশুকে শিক্ষার মৌলিক অধিকার নিশ্চিত

করতে হবে।