ভারতে পর্যটকবাহী গাড়ি নদীতে, পৃথক দুর্ঘটনায় নিহত ১৫

14

ভারতে পর্যটকবাহী একটি গাড়ি নদীতে পড়ে কমপক্ষে ৯ জন নিহত হয়েছেন। পৃথক আরেকটি সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হয়েছেন আরও ৬ জন। এ দু’টি ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও বেশ কয়েকজন।

শুক্রবার (৮ জুলাই) ভারতের উত্তরাখণ্ড ও তামিলনাড়ুতে পৃথক এই দুর্ঘটনা ও হতাহতের ঘটনা ঘটে বলে জানিয়েছে ভারতীয় বার্তাসংস্থা এএনআই এবং সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি।


ভারতীয় সংবাদমাধ্যম বলছে, শুক্রবার উত্তরাখণ্ডের রামনগরে পর্যটকবাহী একটি গাড়ি স্থানীয় ধেলা নদীতে পড়ে যায়। এতে ৯ জন প্রাণ হারান। গাড়ি থেকে এক যুবতীকে উদ্ধার করা হয়েছে। নদীতে পড়ার পর পানির স্রোতে গাড়িটি বেশ কিছুটা দূরে ভেসে যায়।


পুলিশ সূত্রে বলা হয়েছে, উত্তরাখণ্ডের নৈনিতালে এই দুর্ঘটনাটি ঘটেছে। শুক্রবার ভোর ৫টার দিকে নৈনিতাল থেকে জিম করবেট জাতীয় উদ্যানের উদ্দেশে রওনা দেয় পর্যটকবাহী একটি গাড়ি। ওই গাড়িতে এক শিশুসহ মোট ১১ জন পর্যটক ছিলেন। তারা সকলেই পাঞ্জাবের বাসিন্দা। একপর্যায়ে উত্তরাখণ্ডের রামনগরে আচমকা গাড়িটি জিম করবেট জাতীয় উদ্যানের ধেলা জোনে রাস্তার পাশের ধেলা নদীতে পড়ে যায়। পরে প্রবল স্রোতে গাড়িটি বেশ কিছুটা ভেসে যায়।

স্থানীয় বাসিন্দারা গাড়িটিকে দেখতে পেয়ে প্রশাসনে খবর দেয়। কিছুক্ষণের মধ্যেই পুলিশ, দমকল বাহিনী ঘটনাস্থলে পৌঁছে ও উদ্ধারকাজ শুরু করে। পরে রাজ্য বিপর্যয় মোকাবিলা দপ্তরও উদ্ধারকাজে অংশ নেয়। জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, ১১ জন যাত্রীর মধ্যে ২ জনকে উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছে। বাকি ৯ জনের মৃত্যু হয়েছে।


এদিকে দুর্ঘটনার খবর পেয়ে শোক প্রকাশ করেছেন উত্তরাখণ্ডের মুখ্যমন্ত্রী পুষ্কর সিং ধামি। টুইটারে দেওয়া এক বার্তায় তিনি বলেন, ‘রামনগরের ধেলা নদীতে একটি গাড়ি ভেসে ৯ জনের মর্মান্তিক মৃত্যুর ঘটনা জানতে পেরেছি। মৃতদের আত্মার শান্তি কামনা করছি। তাদের পরিবারের প্রতি আমার সমবেদনা রইল।’


এদিকে ভারতের দক্ষিণাঞ্চলীয় রাজ্য তামিলনাড়ুতে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় আরও ৬ জন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন ১০ জনেরও বেশি। শুক্রবার সকালে রাজ্যটির চেঙ্গলপাট্টু জেলায় এই দুর্ঘটনা ঘটে বলে জানিয়েছে এএনআই।

চেঙ্গলপাট্টু জেলার পুলিশ জানিয়েছে, আজ সকালে একটি বাস ও লরির সংঘর্ষে ৬ জন নিহত এবং ১০ জনেরও বেশি আহত হয়েছেন।