দরপতনে শুরু নতুন অর্থবছর

7

নতুন অর্থবছরের (২০২২-২৩) প্রথম কর্মদিবস রোববার (৩ জুলাই) দেশের পুঁজিবাজারে দরপতন হয়েছে। দিনভর সূচকের ওঠামানা শেষে এদিন দেশের প্রধান পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) সূচক কমেছে ১৭ পয়েন্ট। চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সূচক কমেছে ২৯ পয়েন্ট।

ব্যাংক, আর্থিক প্রতিষ্ঠান এবং প্রকৌশলসহ বেশির খাতের শেয়ারের দাম কমায় সূচকের পাশাপাশি কমেছে লেনদেনও। এর ফলে ২০২১-২২ অর্থবছরের শেষ দিন উত্থানের পর নতুন অর্থবছরের প্রথম কর্মদিবস পুঁজিবাজারে দরপতন হলো। তার আগের টানা চার দিন দরপতন হয়েছিল।


আরও পড়ুন>> অর্থ প্রবাহ ক‌মি‌য়ে মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণের মুদ্রানীতি ঘোষণা

বাজার বিশ্লেষণে দেখা গেছে, রোববার পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত ব্যাংক খাতের ৩৩টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে দাম বেড়েছে মাত্র ৫টির। প্রকৌশল খাতের ৪২টি কোম্পানির মধ্যে দাম বেড়েছে ১৬টির, কমেছে ২০টির আর অপরিবর্তিত রয়েছে ছয়টি কোম্পানির শেয়ারের দাম। অন্যান্যখাতের শেয়ারের দামও কমেছে।

ডিএসইর তথ্য মতে, রোববার ডিএসইতে ৩৮২টি প্রতিষ্ঠানের ১৬ কোটি ৩৯ লাখ ২০ হাজার ৫৫৮টি শেয়ার ও ইউনিট কেনা-বেচা হয়েছে। এর মধ্যে ১২০টি কোম্পানির শেয়ারের দাম বেড়েছে, কমেছে ২১৯টির, আর অপরিবর্তিত রয়েছে ৪৩টির দাম।


অধিকাংশ কোম্পানির শেয়ারের দাম কমায় এদিন ডিএসইর প্রধান সূচক আগের দিনের চেয়ে ১৭ দশমিক ১৬ পয়েন্ট কমে ৬ হাজার ৩৫৯ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। অপর দুই সূচকের মধ্যে ডিএসইএক্স আগের দিনের চেয়ে কমেছে ২ পয়েন্ট এবং ডিএস-৩০ সূচক কমেছে ৪ পয়েন্ট।

এদিন ডিএসইতে ৬৫৪ কোটি ৮৩ লাখ ৩৯ হাজার টাকার শেয়ার ও ইউনিটের লেনদেন হয়েছে। এর আগের দিন লেনদেন হয় ৯৩৭ কোটি ৪৭ লাখ ৭৫ হাজার টাকার শেয়ার।

রোববার সবচেয়ে বেশি লেনদেন হয়েছে ইন্ট্রাকোর শেয়ার। এরপর যথাক্রমে রয়েছে সোনালী পেপার, বেক্সিমকো, আইপিডিসি, রবি আজিয়াটা, ফুওয়াং ফুড, শাইনপুকুর সিরামিক, বাংলাদেশ সাবমেরিন ক্যাবলস লিমিটেড, কপারটেক ইন্ডাস্ট্রিজ এবং আমরা নেটওয়ার্কস লিমিটেডের শেয়ার।

দেশের অপর পুঁজিবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ২৯ পয়েন্ট কমে ১৮ হাজার ৬৯৮ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। বাজারটিতে ২৭৪টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার লেনদেন হয়েছে। এর মধ্যে ১০০টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ারের দাম বেড়েছে, কমেছে ১৩৩টির আর অপরিবর্তিত রয়েছে ৪১টির।

এদিন সিএসইতে লেনদেন হয়েছে ১৭ কোটি ৪১ লাখ ৮৩ হাজার ২৯২ টাকা। এর আগের লেনদেন হয়েছিল ৩০ কোটি ৬৩ লাখ ৮৭ হাজার টাকা।