উপবৃত্তির সফটওয়্যারের পাসওয়ার্ড পরিবর্তনে মাউশির জরুরি নির্দেশনা

2

মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের (মাউশি) রাজস্ব খাতভুক্ত উপবৃত্তির সফটওয়্যারের পাসওয়ার্ড পরিবর্তন ও সংরক্ষণে সর্বোচ্চ সতর্কতা অবলম্বনের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। বিষয়টি জানিয়ে মঙ্গলবার (২৪ মে) জরুরি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে মাউশি। এতে সই করেছেন মাউশি মহাপরিচালক অধ্যাপক নেহাল আহমেদ।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ২০১৯-২০২০ অর্থবছর থেকে রাজস্ব খাতভুক্ত সব ধরনের বৃত্তির অর্থ জিটুপি পদ্ধতিতে EFT এর মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের ব্যাংক হিসাবে পাঠানোর কার্যক্রম চলমান রয়েছে।

প্রতিষ্ঠানের User ID ও Password ব্যবহার করে বৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের তথ্য SPFMS কর্মসূচি, অর্থ বিভাগ, অর্থ মন্ত্রণালয়ের MIS সফটওয়্যারে প্রতিষ্ঠান থেকে এন্ট্রি করা হয়। কিন্তু সম্প্রতি লক্ষ্য করা যাচ্ছে, প্রতিষ্ঠান থেকে User ID ও Password এর গোপনীয়তা যথাযথভাবে সংরক্ষণ করা হচ্ছে না। ফলে প্রতারক চক্র শিক্ষার্থীদের ব্যাংক হিসাব নম্বরের পরিবর্তে ভিন্ন ব্যাংক হিসাব নম্বর এন্ট্রি করে বৃত্তির অর্থ আত্মসাৎ করার সম্ভাবনা থাকতে পারে।

এ অবস্থায় পত্র জারির সর্বোচ্চ দুই কর্মদিবসের মধ্যে নিচের নির্দেশনাগুলো অনুসরণ করে Password পরিবর্তন করার জন্য বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো।

১। প্রতিষ্ঠান প্রধান/দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তারা মেধাবৃত্তি সফটওয়্যারের পাসওয়ার্ড ব্যবহারে সর্বোচ্চ সতর্কতা ও গোপনীয়তা রক্ষা করবেন।

২। প্রতিবার এন্ট্রি কার্যক্রম সম্পন্ন হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে পাসওয়ার্ড পরিবর্তন করতে হবে।

৩। এন্ট্রি কার্যক্রম চলমান না থাকলেও প্রতি তিন মাস পর পর পাসওয়ার্ড পরিবর্তন করতে হবে।

৪। প্রতিষ্ঠান কর্তৃক এন্ট্রি করা তথ্য (বৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীর নাম ও হিসাব নম্বর ইত্যাদি) সময় সময় সঠিক আছে কি না তা নিশ্চিত করবেন।

৫। আগে এন্ট্রি করা তথ্যের ক্ষেত্রে ব্যাংক হিসাবধারীর নাম ও হিসাব নম্বর সংক্রান্ত কোনো ধরনের গড় মিল দেখা গেলে তা সংশোধন-পূর্বক তাৎক্ষণিকভাবে মাউশি অধিদপ্তর এবং SPFMS কর্মসূচি, অর্থ বিভাগ, অর্থ মন্ত্রণালয়কে অবহিত করতে হবে।

৬। User ID ও Password এবং তথ্যের গোপনীয়তা যথাযথভাবে সংরক্ষণের লক্ষ্যে বৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের তথ্য আবশ্যিকভাবে নিজ প্রতিষ্ঠানের কম্পিউটার থেকে MIS সফটওয়্যারে এন্ট্রি করতে হবে।

৭। বৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের তথ্য এন্ট্রির ক্ষেত্রে কোনো শিক্ষার্থীকে দায়িত্ব দেওয়া যাবে না বা শিক্ষার্থীকে User ID ও Password প্রদান করা যাবে না।

৮। User ID ও Password এর গোপনীয়তার রক্ষার স্বার্থে কোনো অবস্থায় নিজ প্রতিষ্ঠানের কম্পিউটার ছাড়া অন্য কোনো প্রতিষ্ঠান/কম্পিউটার দোকান থেকে তথ্য এন্ট্রি করা যাবে না।

৯। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে (ফেসবুক, হোয়াটস অ্যাপ, মেসেঞ্জার ইত্যাদি) বৃত্তির MIS সফটওয়্যারের User ID ও Password প্রকাশ করা যাবে না।

১০। এন্ট্রি করা তথ্যের সঠিকতা যাচাইয়ের জন্য বিগত ০২/০৩/২০২২ তারিখে মাউশি অধিদপ্তরের স্মারক নং ৩৭.০২.০০০০.১১৭.৯৯.০০১.২০-১৯১/২০ পত্রের নির্দেশনা অনুসরণ করতে হবে।

এসব নির্দেশনা অনুসরণ না করার ফলে বৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের বৃত্তির অর্থ অন্য ব্যক্তির হিসাব নম্বরে প্রেরিত হলে প্রতিষ্ঠান প্রধান/দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তারা দায়ী থাকবেন বলে জানানো হয়েছে বিজ্ঞপ্তিতে।