ইসলামাবাদের রেড জোনে পিটিআই, সরকারকে আল্টিমেটাম ইমরানের

3

পাকিস্তানের রাজধানী ইসলামাবাদের গুরুত্বপূর্ণ এলাকা রেড জোনে পৌঁছেছেন ইমরান খান ও তার দল তেহরিক-ই-ইনসাফের (পিটিআই) সমর্থকরা। সেখানে এক সমাবেশ পার্লামেন্ট ভেঙে দেওয়া ও নতুন নির্বাচনের ঘোষণার জন্য ক্ষমতাসীন জোট সরকারকে ৬ দিন সময় বেঁধে দিয়েছেন পিটিআই চেয়ারম্যান।

যদি এই সময়সীমার মধ্যে সরকার নতুন নির্বাচনের ঘোষণা না দেয়, সেক্ষেত্রে ‘পুরো জাতিকে’ নিয়ে পিটিআই রাজধানী ইসলামাবাদে প্রবেশ করবে বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন দিয়েছেন তিনি।


বৃহস্পতিবার পাকিস্তানের রাজধানী ইসলামাবাদের রেড জোন এলাকায় প্রবেশে করেছেন ইমরান খানের সমর্থকরা। বুধবার থেকে ইসলামবাদের ডি-চকে ইমরান খানের পৌঁছানোর অপেক্ষায় ছিলেন তারা।

বৃহস্পতিবার সকালে ইমরান খান সেখানে পৌঁছে নির্বাচনের তারিখ ঘোষণার জন্য আল্টিমেটাম ঘোষণা করে বলেন, ‘আমি আগে সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম, যতদিন সরকার পার্লামেন্ট ভেঙে দিয়ে নতুন নির্বাচনের ঘোষণা না দেয়, ততদিন আমি এই নবম এভিনিউয়ে (রেড জোন) অবস্থান ধর্মঘট করব।’

‘কিন্তু গত ২৪ ঘণ্টায় যা দেখলাম, তাতে মনে হচ্ছে— সরকার দেশকে নৈরাজ্যের দিকে নিয়ে যেতে চাইছে এবং আমি ও আমার সমর্থকরা যদি এখানে অবস্থান ধর্মঘট শুরু করি, তাহলে তাদেরকে আরও সুবিধা করে দেওয়া হবে।’

‘এ কারণে, আজকের এই সমাবেশ থেকে আমরা সরকারকে ৬ দিন সময় দিচ্ছি। এ ছয় দিনের মধ্যে সরকারকে পার্লামেন্ট অকার্যকর ও নতুন নির্বাচনের ঘোষণা দিতে হবে। যদি তা না ঘটে, সেক্ষেত্রে ৬ দিন পর পুরো জাতিকে নিয়ে রাজধানীতে প্রবেশ করবে পিটিআই।’


গত দুই দিনের লংমার্চে দলের নেতকার্মীদের বিরুদ্ধে অভিযান ও গ্রেপ্তারের তীব্র প্রতিবাদ করেছেন তিনি। পাশপাশি,

পিটিআইয়ের লংমার্চের গত দু’দিনে দলের ৫ জন কর্মী নিহত হয়েছে বলে দাবি করেন ইমরান। পাশপাশি সরকারের দমনমূলক নীতির তীব্র সমালোচনা করে তিনি বলেন, ‘গণতান্ত্রিক একটা দেশে কি শান্তিপূর্ণ প্রতিবাদ করা যাবে না? প্রতিবাদকারীদের কেন টিয়ার গ্যাস, গ্রেপ্তারের মুখে পড়তে হবে?’

তবে পিটিআই কর্মীদের গ্রেপ্তার না করতে সুপ্রিম কোর্ট যে নির্দেশনা দিয়েছেন, সেজন্য সর্বোচ্চ আদালতকে ধন্যবাদও দিয়েছেন ইমরান।

ইমরান বক্তব্য দেওয়ার পর তার সমর্থকরা রেড জোনে প্রবেশ করেন। এই রেড জোন রক্ষায় সেনা মোতায়েনের ঘোষণা দিয়েছিল পাকিস্তান সরকার।

ইসলামাবাদ পুলিশের মুখপাত্র একটি বিবৃতিতে জানিয়েছেন, পুলিশ ও অন্যান্য আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী বিক্ষোভকারীদের ঠেকিয়েছে।

তিনি আরও বলেন, ইসলামাবাদ ইন্সপেক্টর জেনারেল ঘটনাস্থলে উপস্থিত ছিলেন, বিক্ষোভকারীদের রেড জোন থেকে সরে যেতে বলা হচ্ছে।

পার্লামেন্টে আস্থা ভোটে পরাজিত হয়ে গত ১০ এপ্রিল দেশের প্রধানমন্ত্রীর পদ ছাড়তে বাধ্য হন ইমরান খান। প্রধানমন্ত্রীর পদ হারানোর পর পার্লামেন্টের সদস্যপদ থেকেও পদত্যাগ করেন তিনি ও তার দলের সদস্যরা।

ক্ষমতাচ্যুত হওয়ার পর থেকেই পার্লামেন্ট নতুন নির্বাচন ঘোষণার দাবি জানিয়ে আসছিলেন তিনি। এই দাবিতে সম্প্রতি লংমার্চের ঘোষণা দেন তিনি।

গত সোমবার দেশটির উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলীয় প্রদেশ খাইবার পাখতুনওয়ার রাজধানী পেশোয়ার থেকে ইসলামাবাদ অভিমুখে লংমার্চ করে পিটিআইয়ের সমর্থকরা।

সোমবার লংমার্চ শুরুর পর বুধবার ইসলামাবাদের ডি-চক এলাকা পৌঁছায় ইমরান খানের গাড়িবহর। এ দিন রাজধানী অভিমুখে আসার পথে ৫০ কিলোমিটার দূরে যাত্রাবিরতি করেন ইমরান। সেখানে তিনি বলেন, আমদানি করা সরকার কর্তৃক নতুন নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা না করা পর্যন্ত তিনি এবং তাঁর সমর্থকরা ডি-চক খালি করবেন না।

সূত্র : দ্য ডন