ছাপার কাগজের অভাবে শ্রীলঙ্কায় স্কুলের পরীক্ষা বাতিল

40

স্বাধীনতার পর সবচেয়ে খারাপ সময় পার করছে শ্রীলঙ্কা। ধসে পড়েছে দেশটির অর্থনৈতিক কাঠামো। এবার ছাপার কাগজ ফুরিয়ে যাওয়ার কারণে বহু স্কুল শিক্ষার্থীর পরীক্ষা বাতিল করেছে দেশটির সরকার।

সোমবার (২১ মার্চ) থেকে টার্ম পরীক্ষা শুরু হওয়ার কথা ছিল দেশটির বিভিন্ন স্কুলে। তবে শনিবার শিক্ষা সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের তরফে অনির্দিষ্টকালের জন্য পরীক্ষা বাতিল করার সিদ্ধান্ত জানানো হয়।

বর্তমানে পরীক্ষা নেওয়ার জন্য কাগজের জোগান দেওয়ার মতো সক্ষমতা নেই শ্রীলঙ্কার শিক্ষা দপ্তরের। এমনকি কাগজ আমদানি করার মতো পর্যাপ্ত অর্থও নেই তাদের হাতে। ফলে সরকারের এ সিদ্ধান্তে দেশটির ৪৫ লাখ শিক্ষার্থীর মধ্যে দুই তৃতীয়াংশের শিক্ষাজীবন অনিশ্চয়তার মধ্যে পড়েছে।

এদিকে, দেশটিতে জ্বালানি তেলের জন্য লাইনে দাঁড়িয়ে দুইজনের প্রাণ গেছে বলে খবর পাওয়া গেছে। দেশটির পুলিশ বলছে, আলাদা লাইনে এধরনের ঘটনা ঘটেছে।

করোনা মহামারি শুরুর পর থেকেই তীব্র অর্থনৈতিক সংকটের মধ্যে পড়ে শ্রীলঙ্কা। বৈদেশিক মুদ্রার অভাবে দেশটিতে ব্যাপক খাদ্য ঘাটতির পাশাপাশি জ্বালানিতেও অভাব দেখা দিয়েছে। মূল্যস্ফীতির ফলে পণ্যের দাম বেড়েছে কয়েক গুণ। ফলে শুধু কাগজের অভাব নয়, ওষুধপত্রের জোগানেও টান পড়েছে দেশটিতে। ১৯৪৮ সালে স্বাধীন হওয়ার পরে থেকে এমন পরিস্থিতির সম্মুখীন হতে হয়নি শ্রীলঙ্কাকে।

সূত্র: দ্য গার্ডিয়ান