তিন সেঞ্চুরির দিনে বল হাতে আগুন ঝরালেন কাজী অনিক

8

বিকেএসপির দুই মাঠে সেঞ্চুরির মেলা বসিয়েছেন এনামুল হক বিজয়, নাসির হোসেন, ইমরুল কায়েসরা। আর মিরপুরে আগুনে বোলিং করলেন বাঁহাতি পেসার কাজী অনিক ইসলাম। সিটি ক্লাবের বিপক্ষে ক্যারিয়ার সেরা বোলিংয়ে ৩০ রান খরচায় ৬ উইকেট নিয়েছেন এ তরুণ বাঁহাতি।

মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে নবাগত সিটি ক্লাবের মুখোমুখি হয়েছে গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্স। টস হেরে ব্যাট করতে নেমে কাজী অনিকের তোপে ৪৯.৩ ওভারে ১৯৯ রানে অলআউট হয়ে গেছে সিটি ক্লাব। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৫১ রান করেছেন মিডল অর্ডার আশিক উল আলম।


ইনিংসের নবম ওভারে প্রথমবারের মতো কাজী অনিককে আক্রমণে আনেন গাজী গ্রুপ অধিনায়ক আকবর আলি। নিজের দ্বিতীয় ওভারের প্রথম বলে শাহরিয়ার কোমলকে (২৬) ফিরিয়ে উইকেটের খাতা খোলেন ২৩ বছর বয়সী এ পেসার। দুই ওভার পর সিটি ক্লাব অধিনায়ক জাওয়াদ রুয়েনকেও ফেরার তিনি।

এরপর একে একে মইনুল ইসলাম (২৭), আশিক উল নাইম (৫১), আমিনুর রহমান (১) ও আব্দুল হালিমকে (০) আউট করেন কাজী অনিক। ইনিংস ও নিজের শেষ ওভারেই দুই উইকেট নেন তিনি। সবমিলিয়ে বোলিং ফিগার দাঁড়ায় ৯.৩ ওভারে ৩ মেইডেনসহ ৩০ রানে ৬ উইকেট।

২৮ ম্যাচের লিস্ট ‘এ’ ক্যারিয়ারে কাজী অনিকের এটি তৃতীয় ফাইফার। এর আগে সেরা বোলিং ছিল ৪৯ রানে ৬ উইকেট। আজ মাত্র ৩০ রানে ৬ উইকেট নিয়ে নতুন ব্যক্তিগত রেকর্ড গড়লেন এ বাঁহাতি পেসার। পাশাপাশি একদিনের স্বীকৃত ক্রিকেটে ২৮ ম্যাচে ৫০ উইকেটের মাইলফলকও ছুঁয়েছেন তিনি।

অমিত সম্ভাবনা নিয়ে দেশের ক্রিকেটে যাত্রা শুরু করেছিলেন কাজী অনিক। ২০১৮ সালের অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপে বাংলাদেশ দলের বোলিং আক্রমণের অন্যতম প্রধান অস্ত্র ছিলেন তিনি। কিন্তু ২০২০ সালে ডোপিংয়ের কারণে নিষিদ্ধ হয়ে পাদপ্রদীপের আলো থেকে দূরে ছিটকে পড়েন। এখন পুনরায় নিজেকে চেনানোর মিশনে রয়েছেন কাজী অনিক।