‘ডোনাল্ডের কাছ থেকে যতটা সম্ভব আদায় করবো’

4

পেস বোলিংয়ের উন্নতির জন্য অনেক হাই-প্রোফাইল কোচ নিয়োগ করছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড। হিথ স্ট্রিকের পর বাংলাদেশে পেস বোলিং কোচ হিসেবে এসেছিলেন কোর্টনি ওয়ালশ, ওটিস গিবসন কিংবা অন্তর্বর্তীকালীন হিসেবে ছিলেন শ্রীলঙ্কান চম্পাকা রামানায়েকে। সে ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশের কোচিং প্যানেলে এবার যুক্ত হলেন আরেক কিংবদন্তী। দক্ষিণ আফ্রিকার অ্যালান ডোনাল্ড।

নিজ দেশের বিপক্ষেই বাংলাদেশের হয়ে বোলিং কোচের কাজ শুরু করবেন প্রোটিয়া কিংবদন্তী ডোনাল্ড। নিজের বোলিং ক্যারিয়ারে বাঘা বাঘা ব্যাটারদের রাতের ঘুম হারাম করে দিয়েছিলেন ‘সাদা বিদ্যুৎ’ খ্যাত এই পেসার। এবার বাংলাদেশের বোলারদের কী শেখাবেন তিনি? বাংলাদেশের বোলাররাই বা তার কাছ থেকে কী শিখে নিতে পারবে?

এমন প্রশ্নটা উঠেছিল আজ টাইগার পেসার তাসকিন আহমেদের সামনে। যেহেতু নতুন বোলিং কোচ। তিনি আবার একজন কিংবদন্তী, নামেই অনেক বড়। তার কাছ থেকে কী শিখতে পারবে বাংলাদেশের পেসাররা? এমন প্রশ্ন করা হলে, তাসকিন জানালেন, তার কাছ থেকে সর্বোচ্চটাই নিংড়ে নিতে চান তারা।

ডোনাল্ডের মত একজন কোচের কাছ থেকে শিখতে পারবেন দেখে খুব রোমাঞ্চিত তাসকিন। তিনি বলেন, ‘আমরা রোমাঞ্চিত। কারণ উনার মতো একজন কিংবদন্তী খেলোয়াড়ের অধীনে কোচিং করব।’

তবে কিছুটা বাস্তবতাও তুলে ধরেছেন তিনি। বলেন, ‘আমাদের দেশি কোচ বা বিদেশি কোচ বলেন, সবার তত্ত্ব প্রায় একই। কিন্তু এক একজনের অভিজ্ঞতা একেক রকম। আমরাও রোমাঞ্চিত যে উনার মতো একজন কোচকে পাব। চেষ্টা করব তার মতো কিংবদন্তীর কাছ থেকে যতটা সম্ভব আদায় করে নিতে।’

ডোনাল্ডের অধীনে বিশেষ কিছু দিকের উন্নতি ঘটানোর চিন্তা তাসকিনের। রিভার্স সুইং, ডেথ বোলিং- এসব। তিনি বলেন, ‘আমরা সবাই আসলে পেস বোলিং ইউনিট। সবার মধ্যে বন্ডিং অনেক ভালো। সবাই এক সঙ্গে চেষ্টা করছি। আশা করি রিভার্স সুইং, ডেথ ওভার – এসবও আমাদের উন্নতি হবে (নতুন কোচের অধীনে)।’