রুল খারিজ, সাবেক প্রতিমন্ত্রী রেদোয়ানকে আত্মসমর্পণের নির্দেশ

27

জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) করা মামলায় মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সাবেক প্রতিমন্ত্রী রেদওয়ান আহমেদ ও তার স্ত্রী মমতাজ আহমেদের বিষয়ে জারি করা রুল খারিজ করেছেন হাইকোর্ট।

ফলে তাদের বিরুদ্ধে দুর্নীতির মামলা চলতে বাধা নেই। একই সঙ্গে এ মামলার কার্যক্রম এক বছরের মধ্যে শেষ করার নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। এছাড়া আসামি রেদওয়ান আহমেদকে বিচারিক (নিম্ন) আদালতে আত্মসমর্পণের নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট।

রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল এ কে এম আমিন উদ্দিন মানিক জাগো নিউজকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

এ সংক্রান্ত মামলায় জারি করা রুলের ওপর শুনানি শেষে বুধবার (৯ মার্চ) হাইকোর্টের বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এ রায় দেন।

আদালতে আজ দুদকের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী মো. খুরশীদ আলম খান, রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল এ কে এম আমিন উদ্দিন মানিক ও সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল আন্না খানম কলি। তবে শুনানিতে আসামিপক্ষে কোনো আইনজীবী ছিলেন না।

বিএনপির মনোনয়ন নিয়ে চারবার এমপি নির্বাচিত হনে রেদোয়ান। বর্তমানে তিনি লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টির (এলডিপি) মহাসচিব।

রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল এ কে এম আমিন উদ্দিন মানিক জানান, ২০০৭ সালের ১৯ ডিসেম্বর রমনা থানায় জ্ঞাত আয়বহির্ভূত দুই কোটি ৩০ লাখ ৯৭ হাজার টাকার সম্পদ ও এক কোটি ৩৬ লাখ ৫৫ হাজার ৮২৮ টাকার তথ্য গোপনের মামলা করেন দুদকের সহকারী পরিচালক শাহীন আরা মমতাজ। মামলাটির তদন্ত শেষে ২০০৮ সালের ৭ জুলাই অভিযোগপত্র দাখিল করেন তদন্ত কর্মকর্তা। মামলাটি ২০০৮ সালে থেকে রুল স্টে থাকায় বিচার প্রক্রিয়া এতদিন বন্ধ ছিল।

তিনি জানান, রুল খারিজ করার পাশপাশি স্থগিতাদেশ প্রত্যাহার, জামিন বাতিল এবং এক বছরের মধ্যে মামলায় বিচারকাজ শেষ করার নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। এছাড়া তাকে বিচারিক আদালতে আত্মসমর্পণের নির্দেশ দেওয়া হয়।