দূতাবাসে চাকরির নামে কোটি টাকা আত্মসাৎ, মূলহোতা গ্রেফতার

43

সৌদিসহ বিভিন্ন দূতাবাস ও সংস্থায় চাকরি দেওয়ার নামে কোটি টাকা হাতিয়ে নেওয়া প্রতারক চক্রের মূলহোতা রবি পল গমেজকে (৫৩) গ্রেফতার করেছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)।

রবি পল গমেজ নাটোরের বড়াইগ্রামের শ্রীখণ্ডীর লাফন গমেজের ছেলে। বৃহস্পতিবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) রাজধানীর ভাটারা এলাকায় অভিযান চালিয়ে রবি পলকে গ্রেফতার করে সিআইডি ঢাকা মেট্রো দক্ষিণের একটি দল।

শুক্রবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) ঢাকা মেট্রো দক্ষিণের বিশেষ পুলিশ সুপার (এসএসপি) মোহম্মদ কামরুজ্জামান জাগো নিউজকে জানান, সৌদি দূতাবাসসহ বিভিন্ন সংস্থায় চাকরি দেওয়ার নাম করে একটি চক্র সাধারণ মানুষের সঙ্গে প্রতারণার আশ্রয় নিয়ে প্রায় কোটি টাকা হাতিয়ে নেয়।

এ চক্রের মূলহোতা রবি পল গমেজ ও তার সহযোগীরা ২০১৯ সালের সেপ্টেম্বর মাসে রাজধানীর ভাটারা থানাধীন নূরের চালা এলাকায় আরএস এন্টারপ্রাইজ নামক অফিস দিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক ও বিভিন্ন বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে বিভিন্ন সংস্থায় বিভিন্ন পদে লোভনীয় বেতনে চাকরি দেওয়ার বিষয়টি প্রচার করে প্রতারণার ফাঁদ পাতেন।

চক্রটি টাঙ্গাইলের দেলদুয়ার ধানকী মহেড়া এলাকার ভুক্তভোগী মো. হাসেম মিয়াকে (৩২) সৌদি দূতাবাসে চাকরি দেওয়ার নাম করে ১ লাখ ৩০ হাজার টাকা নেন। পাশাপাশি আরও প্রায় ৩০ থেকে ৪০ জনের কাছ থেকে প্রায় কোটি টাকা হাতিয়ে নেন।

সিআইডির এ কর্মকর্তা বলেন, চক্রটি প্রতারণার কৌশল হিসেবে বিশ্বাস স্থাপনের জন্য ভিকটিমদের টাকার বিপরীতে তাদের ব্যাংকের চেক দিয়ে থাকে। পরবর্তীতে তারা কাউকে কোনো চাকরির ব্যবস্থা না করে অফিস বন্ধ করে পালিয়ে যায়।

প্রতারণা শিকার ভাটারা থানায় ভুক্তভোগী হাসেমের করা মামলার পর তদন্তে নামে সিআইডি ঢাকা মেট্রো দক্ষিণ বিভাগ। তথ্যপ্রমাণের ভিত্তিতে হবিগঞ্জ জেলা ও ঢাকা মহানগরের ভাটারা এলাকায় বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে চক্রের মূলহোতা রবি পল গমেজকে গ্রেফতার করা হয়।

চক্রের অন্য সদস্যদের গ্রেফতারে চেষ্টা চলছে বলেও জানান মোহম্মদ কামরুজ্জামান।