কৃষক লাঞ্চিতের বিচার ও হেনস্থাকারীর ব্যক্তির ডিলারশীপ বাতিলের দাবীতে নড়াইলে মানববন্ধন ও স্মারকলিপি প্রদান

95

স্টাফ রিপোর্টার ॥ দুর্নীতিবাজ সার ব্যবসায়ী হাসানুজ্জামানের সারের ডিলারশীপ বাতিল এবং কৃষক আলী মোহাম্মদ মন্ডলকে লাঞ্চিতের বিচার দাবীতে নড়াইলে বিক্ষোপ মিছিল ও মানববন্ধন কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) দুপুর ১২টার দিকে বাংলাদেশ কৃষক লীগ নড়াইল জেলা শাখার আয়োজনে শহরের বয়েজস্কুলের সামনে থেকে কৃষক এক বিক্ষোভ মিছিল বের করে। পরে বিক্ষোভ মিছিলটি আদালত সড়কে গিয়ে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করে।

কৃষক আলী মোহাম্মদের হেনন্থাকারীদের বিচার ও হাসানুজ্জামানের সারের ডিলারশীপ বাতিলের দাবীর সাথে সহমত প্রকাশ করে জেলা মৎস্যজীবী লীগ, যুবলীগ, যুব মহিলা লীগ, ছাত্রলীগ, বিভিন্ন সামাজিক সংগঠন, মানবাধিকার সংগঠন, অন্যান্য রাজনৈতিক সংগঠন, সচেতন নাগরিকদের অংশগ্রহণে প্রায় ৩০মিনিট ব্যাপী এ মানববন্ধন কর্মসূচি স্থায়ী হয়। এ সময় বক্তব্য রাখেন, ভিক্টিম কৃষক আলী মোহাম্মদ মন্ডল, কৃষক প্রতিনিধি সোহেল মোল্যা, জেলা কৃষক লীগের সভাপতি মো. মাহাবুবুর রহমান, জেলা মৎস্যজীবী লীগের সভাপতি সাইফুল ইসলাম, কাউন্সিলর ইপি রানী বিশ্বাস,এমপি মাশরাফী বিন মোর্ত্তজার কৃষি প্রতিনিধি তাজুল ইসলাম, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা মোস্তফা কামরুজ্জামান কামাল, নেতা আল মামুন, জাহাঙ্গীর সিকদার, ইমরুল,ছাত্রলীগ প্রমুখ।

এ সময় বক্তারা বলেন, আগামী ৭দিনের মধ্যে কৃষক আলী মোহাম্মদের হেনন্থাকারীদের সুষ্ঠু বিচার ও হাসানুজ্জামানের সারের ডিলারশীপ বাতিল না হলে কঠোর কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে।

পরে কৃষক প্রতিনিধি, কৃষক লীগের নেতৃবৃন্দ জেলা প্রশাসক বরাবর হাসানুজ্জামানের সারের ডিলারশীপ বাতিল এবং কৃষক আলী মোহাম্মদকে লাঞ্চিতের দ্রুত বিচার দাবী উল্লেখ করে একটি স্মারকলিপি প্রদান করা হয়। কৃষক লীগের সভাপতি ও মৎস্যজীবী লীগের সভাপতি’র যৌথ স্বাক্ষরিত স্মারকলিপিতে উল্লেখ্য করা হয়, ‘কৃষি মন্ত্রণালয় সংশ্লিষ্ট টেকসই উন্নয়ন অভীষ্ট (এসডিজি) সমূহের সুনির্দিষ্ট উদ্দেশ্য হচ্ছে:- সকলের জন্য সারা বছর নিরাপদ পুষ্টি সম্পন্ন ও পর্যাপ্ত খাদ্য নিশ্চিত করা; ক্ষুদ্র ও দরিদ্র কৃষকের আয় খামারের উৎপাদনশীরতা দ্বিগুণ করা; টেকসই খাদ্য উৎপাদন নিশ্চিত করা; ফসলসহ মৎস্য ও প্রাণিসম্পদের কৌলি সম্পদ (জেনেটিক রিসোর্স) সংরক্ষণ করা; কৃষি গবেষণা, সম্প্রসারণ ও পল্লীউন্নয়নে বিনিয়োগ বৃদ্ধি করা এবং সেচ কাজে পানিসম্পদের সাশ্রয়ী ব্যবহার নিশ্চিত করা।’ এর আলোকে সরকারের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে, দেশে সারের কোনো সংকট নেই। গুদামে পর্যাপ্ত পরিমাণ সার মজুদ আছে। সারাদেশে ডিলারদের কাছেও সার আছে।

স্মারকলিপিতে কৃষকের ওপর যে অমানবিক ঘটনা ঘটে সে সম্পর্কে উল্লেখ্য করা হয়, গত বৃহস্পতিবার ১৭ ফেব্রুয়ারি আনুমানিক বেলা সাড়ে ১২টার দিকে রূপগঞ্জ খাদ্যগুদামের উল্টাদিকে সার ডিলার হাসারুজ্জামানের সারের দোকানে সার কিনতে আসেন নড়াইল পৌরসভার উজিপুর গ্রামের কৃষক আলী মোহাম্মদ মন্ডল। সার ডিলার হাসানুজ্জামান তার ম্যানেজার হীরামনকে হুকুম দিয়ে তাকে (কৃষক আলী মোহাম্মদ মন্ডল) প্রকাশ্যে রূপগঞ্জ বাজারের শত শত জনতার সামনে টেনে হেঁচড়ে ঘাড় ধাক্কাতে ধাক্কাতে নিয়ে যাওয়া হয়। পরে হাসান সাহেবের বাজারের অফিসের সামনে নিয়ে কিলঘুষি মেরে একটি চোখ আহত করা হয়। তাকে অকথ্য ভাষায় গালাগাল করেন এই হাসান সাহেব। বাংলাদেশ কৃষক লীগ নড়াইল জেলা শাখার পক্ষ থেকে কৃষক আলী মোহাম্মদের ওপর এই অমানবিক নির্যাতনের ঘটনার তীব্র নিন্দা ও ধিক্কার জানাচ্ছে। একই সাথে কৃষককে লাঞ্চিত করার হুকুমদাতা দুর্নীতিবাজ সার ব্যবসায়ী মো: হাসানুজ্জামানের সারের ডিলারশীপ দ্রুত বাতিল ও তাকেসহ তার ম্যানেজারকে আইনের আওতায় এনে উপযুক্ত বিচার দাবী জানাচ্ছে।

স্মারকলিপিতে আরও বলা হয়েছে, এদিকে ‘কৃষি বাঁচলে দেশ বাঁচবে’ এই শ্লোগানকে সামনে রেখে কৃষি মন্ত্রণালয় কাজ করে যাচ্ছে। তার ফলশ্রুতিতে দেশ এখন খাদ্যে স্বনির্ভর। অথচ কৃষক সার কিনতে এসে ডিলারে হাতে ঘাড়ধাক্কা, কিলঘুষি মারা ও গালাগাল খেতে হচ্ছে প্রকাশ্যে জনতার সামনে। পর্যাপ্ত সার থাকতেও ডিলাররা নানা অজুহাত দেখিয়ে কৃষককে হয়রানি করে চলেছে প্রতিনিয়ত। আবার সরকার নির্ধারিত দামের চেয়ে বেশি দাম দাবী করছে অনেক ডিলারই।

জেলা প্রশাসকে দৃষ্টি আর্কষণ করে স্মারকলিপিতে আরও উল্লেখ করা হয়, দুর্নীতিবাজ সার ব্যবসায়ী মো: হাসানুজ্জামন এর আগেও সারের দুর্নীতির দায়ে জেল খেটেছেন। বিষয়টি আপনার দপ্তরের নথিপত্র তল্লাশি করলেই প্রমাণ পাবেন।

বিস্তারিত জানতে নিচের লিংক ক্লিক করুন: