শাবিপ্রবি উপাচার্যের অপসারণ চায় বাম গণতান্ত্রিক জোট

28

উপাচার্যের অপসারণের দাবিতে সিলেটের শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শাবিপ্রবি) শিক্ষার্থীদের করা আন্দোলনকে সমর্থন দিয়েছে বাম গণতান্ত্রিক জোট। একইসঙ্গে সরকারের কাছেও উপাচার্যের অপসারণের দাবি জানিয়েছেন সংগঠনটির নেতারা।

মঙ্গলবার (২৫ জানুয়ারি) জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে বাম গণতান্ত্রিক জোট আয়োজিত এক সংহতি অবস্থান কর্মসূচিতে বক্তারা এ দাবি জানান।

এসময় গণতান্ত্রিক জোটের সমন্বয়ক ও বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টি সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক বলেন, অনতিবিলম্বে শাবিপ্রবির ভিসিকে অপসারণ করা হোক। সরকার অজুহাত দিয়ে এটাকে জেদের বশে পরিণত করেছে। হাজার হাজার শিক্ষার্থীদের জীবন যেখানে বিপন্ন, অনশনরত শিক্ষার্থীরা তাদের জীবন-মরণের মাঝে দাঁড়িয়ে আছে, তাদের বিষয়ে সরকারকে বলতে চাই, কোনো শিক্ষার্থীর জীবন বিপন্ন হলে এই সরকার ও সরকারের শিক্ষামন্ত্রী এবং বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন দায়ী থাকবেন। সকল পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা, প্রগতিশীল শিক্ষকরা এবং দেশের সাধারণ মানুষ শাবিপ্রবির শিক্ষার্থীদের পাশে দাঁড়িয়েছে। তারা লড়াই করছেন একটা অন্যায়ের বিরুদ্ধে।

তিনি বলেন, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোকে একটি বাণিজ্যিক পর্যায়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। যার সাথে সরকারি দলের নানা স্তরের লোকজন আজ সম্পর্কিত। তার বিরুদ্ধে দেশের মানুষ ও শাবিপ্রবির শিক্ষার্থীরা আজ অবস্থান নিয়েছেন। তাই আর জল ঘোলা না করে, কাল বিলম্ব না করে, সকল জেদ অহমিকা পরিহার করে অনতিবিলম্বে সিলেটে গিয়ে ভিসি যদি স্বেচ্ছায় সম্মানের সঙ্গে পদত্যাগ না করে তবে তাকে অপসারণ করুন। এই দুষ্কর্মের সঙ্গে যারা জড়িত তাদেরকে অপসারণ করুন এবং আইনের আওতায় আনুন। শিক্ষার্থীদের শান্তিপূর্ণ আন্দোলনে যারা হামলা চালিয়েছেন, তাদের চিহ্নিত করে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর অতি উৎসাহীদের আইনের আওতায় আনুন।

বিশ্ববিদ্যালয়ে বাণিজ্যের তৎপরতা বন্ধের কথা জানিয়ে বাম গণতান্ত্রিক জোটের এই সমন্বয়কারী বলেন, আমরা দাবি করছি, শিক্ষার্থীদের শিক্ষার গণতান্ত্রিক ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশ রক্ষা করতে হবে। সরকার যদি সোজা পথে না আসে, তাহলে এই শিক্ষার্থীদের পাশে কেবলমাত্র বাম গণতান্ত্রিক জোট নয়, সারাদেশের মানুষ এক হয়ে তাদের দাবি মানতে বাধ্য করাবে।

সম্প্রীতি অবস্থান কর্মসূচিতে আরও উপস্থিত ছিলেন বাম গণতান্ত্রিক জোটের কেন্দ্রীয় সমন্বয়ক বজলুর রশীদ ফিরোজ, বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির (সিপিবি) অন্যতম সম্পাদক রুহিন হোসেন প্রিন্স, গণতান্ত্রিক বিপ্লবী পার্টির সাধারণ সম্পাদক মোশরেফা মিশু প্রমুখ।