চিন্তা-শঙ্কা নয়, রোমাঞ্চে বুঁদ টাইগার অধিনায়ক

15

পাঁচ বছর আগেও ইংরেজি নতুন বছরের প্রথম দিন নিউজিল্যান্ডে ছিল বাংলাদেশ। তবে সেবার নতুন বছরের প্রথম দিন মাঠে নামতে হয়নি টাইগারদের। ২০১৬ সালের ৩১ ডিসেম্বর শেষ ওয়ানডে খেলার পর ২০১৭ সালের ১ জানুয়ারি বিশ্রামে ছিল টিম বাংলাদেশ। পরে ৩ জানুয়ারী শুরু হয়েছিল টেস্ট সিরিজ।

আর এবার নতুন বছরের প্রথম দিনই নতুন চ্যালেঞ্জ টাইগারদের। নববর্ষের প্রথম প্রহরে স্বাগতিক নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে চলতি সফরের প্রথম টেস্ট শুরু।

সময়টা ভাল যাচ্ছে না একদমই। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ভরাডুবি ঘটেছে। তারপর থেকে চারপাশে যেন শনির দশা। পাকিস্তানের সঙ্গে টি-টোয়েন্টি সিরিজের পর দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজে পরাজয়ই ছিল সঙ্গী। খুব স্বাভাবিকভাবেই মানসিক দিক থেকে অনেকটাই ভগ্ন টিম বাংলাদেশ।

নতুন বছরে টেস্টে মাঠে নামার আগে কী ভাবছেন মুমিনুল হক? টাইগারদের টেস্ট অধিনায়ক কি চিন্তিত? উদ্বিগ্ন নাকি শঙ্কিত? ভক্ত ও সমর্থকদের জন্য আছে স্বস্তির খবর, অধিনায়ক মুমিনুল হক চিন্তিত নন। বরং তিনি রোমাঞ্চিত, পেছন ফিরে তাকাতে রাজি নন। সামনে আগানোর চিন্তা এখন চোখে মুখে।

ম্যাচের আগেরদিন সংবাদ সম্মেলনে তার ভাষ্য, ‘সবকিছু মিলিয়ে নতুন বছরে আমি খুব রোমাঞ্চিত। আগে কী হয়েছে সেগুলো নিয়ে চিন্তা না করে নতুন বছরে কিভাবে আরও ভালো করে চিন্তা করা যায়- আমি সেটি ভাবছি। আমি আসলেই খুব রোমাঞ্চিত। শুরুটা ভালো হলে, আল্লাহর রহমতে ভালোভাবে ক্যারি করার সম্ভাবনাটা বেশি থাকে।’

ইতিহাস জানাচ্ছে নিউজিল্যান্ডে কখনও ভালো করতে পারেনি বাংলাদেশ। তারপরও আপনি কতটা আত্মবিশ্বাসী? এ প্রশ্নের জবাব দিতে গিয়ে মুমিনুল অনেক কথার ভিড়ে ইতিবাচক মানসিকতা ও চিন্তার কথা বলেন।

মুমিনুলের আশাবাদী উচ্চারণ, ‘যে কয়দিন অনুশীলন করেছি, ভালো অবস্থায় আছি। পুরোনো রেকর্ড অতীত হয়ে গেছে। তা ঘাটাঘাটি করে, চিন্তাভাবনা করে কোনো লাভ হবে না। আমার মনে হয় সামনে যে জিনিসটা আছে তা নিয়ে চিন্তা করাটাই ভালো। সবসময় ইতিবাচক চিন্তা করাই ভালো। আমরা জানি আমাদের জন্য অনেক বেশি চ্যালেঞ্জ থাকবে। কিন্তু আগে থেকেই যদি ব্যাকফুটে চলে যাই কিংবা নেতিবাচক চিন্তা থাকে তাহলে ভালো ফল আসবে না। যতোই চ্যালেঞ্জ থাকুক আপনাকে সেটা নিতে হবে।’

প্রশ্ন উঠলো নতুন বছরে নতুন শুরুর কথা ভাবছেন, নতুন শুরুর পথে হাটতে চাচ্ছেন। কিন্তু উন্নতিটা কোথায় হয়েছে? জবাব দিতে গিয়ে মুমিনুল বোঝানোর চেষ্টা করেন, প্র্যাকটিসে সবাইকে দেখেই তার মনে হয়েছে এ দল নিয়েও নতুন পথে হাঁটা সম্ভব।

তার ভাষ্য, ‘এখন আমরা অনুশীলনে সবাই সবাইকে যেভাবে দেখছি, দল অনুযায়ী খেলতে পারি, ব্যাটিং-বোলিং-ফিল্ডিং তিন বিভাগেই যদি ভালো করতে পারি… তাহলে এর জন্য রোমাঞ্চ কাজ করছে।’