ম্যারাডোনার মৃত্যুর ১৩মাস পর ছোটভাই হুগোও মারা গেলেন

16

নড়াইলকণ্ঠ ডেস্ক: আর্জেন্টাইন ফুটবল কিংবদন্তী ডিয়োগো ম্যারাডোনা পৃথিবীকে বিদায় জানিয়েছেন গতবছর। এক বছর পর তারই পথ অনুসরণ করলেন ভাই হুগো ম্যারাডোনাও। মারা গেছেন ৫২ বছর বয়সী হুগো। ইতালিয়ান সংবাদমাধ্যমের বরাত দিয়ে আর্জেন্টিনার সংবাদমাধ্যম ‘ওলে’ জানিয়েছে, মঙ্গলবার (২৮ ডিসেম্বর) নেপলসে স্থানীয় সময় সকালে মাউন্ট প্রসেইদা অঞ্চলে নিজ বাসভবনে হুগো ম্যারাডোনার মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

পরিবার নিয়ে ইতালির এই শহরেই থাকতেন ৫২ বছর বয়সী সাবেক ফুটবলার। হৃদ্‌রোগে আক্রান্ত হয়ে হুগো ম্যারাডোনা মারা গেছেন বলে জানিয়েছে সংবাদমাধ্যম। আর্জেন্টিনার কিংবদন্তি ফুটবলার ডিয়েগো ম্যারাডোনার মৃত্যুর ১৩ মাস পর ছোট ভাই হুগোও তাঁর কাছে পাড়ি জমালেন। গত বছর ২৫ নভেম্বর মারা যান ’৮৬ বিশ্বকাপ কিংবদন্তি। ডিয়েগো ম্যারাডোনার মতো তাঁর ছোট দুই ভাই রাউল ও হুগোও ফুটবলে ক্যারিয়ার গড়েছেন। তবে বড় ভাইয়ের মতো খ্যাতি পাননি। তিন ভাইয়ের মধ্যে হুগোই সবার ছোট। বড় এবং ছোট গত হওয়ার পর রইলেন শুধু রাউল ম্যারাডোনা।

‘এল তুর্কো’ নামে পরিচিত হুগো প্রায় অর্ধেক দুনিয়াজুড়ে ফুটবল খেলেছেন। আর্জেন্টিনা, উরুগুয়ে, ইতালি, অস্ট্রিয়া, কানাডা ও জাপানের ঘরোয়া ফুটবলে খেলার পাশাপাশি দেশের অনূর্ধ্ব–১৬ দলেও খেলেছেন সাবেক এ মিডফিল্ডার। ১৪ বছরের পেশাদার ক্যারিয়ার শেষে ১৯৯৯ সালে অবসর নেওয়ার পর কিছুদিন কোচিংয়েও জড়ান হুগো। সাম্প্রতিক বছরগুলো তিনি ইতালিতে কাটিয়েছেন।

হুগোর সাবেক ক্লাব রায়ো ভায়োকানো তাঁর মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করে টুইট করেছে, ‘সাবেক খেলোয়াড় হুগো ম্যারাডোনার পরিবার ও স্বজনদের প্রতি গভীর সহমর্মিতা প্রকাশ করছে রায়ো ভায়োকানো।’

২০১৮ সালে ইতালিয়ান ফুটবলে নবম স্তরের ক্লাব রিয়াল পারেতের কোচিং শুরু করেন তিনি। মৃত্যুর আগপর্যন্ত তিনি এ দলের কোচের দায়িত্বে ছিলেন। ম্যারাডোনার সাবেক ক্লাব নাপোলির বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘হুগোর মৃত্যুতে ম্যারাডোনার পরিবারের পাশেই আছে নাপোলি।’