কুখ্যাত সন্ত্রাসীদের দ্রুত গ্রেফতারের দাবী এলাকাবাসীর

184

স্টাফ রিপোর্টার ॥ দির্ঘদিন ধরে নামধারী কুখ্যাত সন্ত্রাসীদের কাছে নড়াইল সদরের শাহাবাদ ইউনিয়নের কয়েকটি গ্রামের নিরিহ মানুষ জিম্বী হয়ে পড়ে। প্রায় ২/৩ বছর ধরে সন্ত্রাসীরা এসব এলাকার নিরিহ মানুষের কাছে মোটা অংকের চাঁদা দাবী, না দিলে হত্যার হুমকি, এলাকার নারীদের সম্ভ্রমহানীর চেষ্টাসহ নানা ধরণের নির্যাতনের স্বীকার হয়ে আসছে। এসব অত্যাচার নির্যাতন অসহনীয় পর্যায় যাওয়ায় এক সমাবেশের আয়োজন করে এলাকাবাসী।

শনিবার (১৮ সেপ্টেম্বর) বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে নয়নপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠ চত্বরে এ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিলো। এলাকাবাসির এ সমাবেশের আয়োজনের খবর পেয়ে স্থানীয় পুলিশ প্রশাসন এ মাঠে উপস্থিতি হয়। এতে পুলিশ প্রশাসনের অনুরোধে সমাবেশের পরিবর্তে এক শান্তি সভা অনুষ্ঠিত হয়।

উল্লেখ্য, এ সমাবেশের আগে এ এলাকায় সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের কথা উল্লেখ্য করে দ্বীন মোহাম্মদ মিয়া গত ১৬ সেপ্টেম্বর এবং ১৩ সেপ্টেম্বররাম প্রসাদ এজহার করে সদর থানায়।

এ শান্তি সভায় সভাপতিত্ব করেন এ এলাকার বিশিষ্ট সমাজসেবক জাহাঙ্গীর ভুইয়া। এ সভায় স্থানীয় পুলিশের উর্দ্ধতন কর্মকর্তা, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, সামাজিক ব্যক্তিবৃন্দের সামনে অত্যাচার ও নির্যাতনের ভয়াবহ কাহিনী তুলে ধরে বক্তব্য রাখেন ভুক্তভোগিরা।

এ সময় বক্তব্য রাখেন নড়াইলে জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার কামরুজ্জামান, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এ্যাডভোকেট সোহরাব হোসেন বিশ্বাস, নড়াইল পৌরসভার মেয়র আঞ্জুমান আরা, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এ্যাডভোকেট সুবাস চন্দ্র বোস, বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি নড়াইল জেলার সভাপতি এ্যাডভোকেট নজরুল ইসলাম, জেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা ও বিশিষ্ট সমাজসেবক গোলাম মুর্ত্তজা স্বপন, হিন্দু বৌদ্ধ খৃ®টান ঐক্যবদ্ধ পরিষদের সভাপতি আব্দুল সিটি কলেজের সহকারি অধ্যাপক মলয় কান্তি নন্দী,নড়াইল সদর থানার ওসি শওকত কবির, জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট উত্তম কুমার ঘোষ, শাহাবাদ ইউপি চেয়ারম্যান দেলোয়ার হোসেন পান্না, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, অ্যাডভোকেট প্রিন্স, সাবেক জেলা ছাত্রলীগ নেতা মনিরুজ্জামান রোজ, রামপ্রসাদ, অর্জুন বিশ্বাস, কবিতা সিংহ, গৌরী বালা প্রমুখ।

এসময় বক্তারা বলেন ‘এক সপ্তাহর ভিতর যদি এই কুখ্যাত ‘সন্ত্রাসীদের গ্রেফতার না করা হয় তাহলে এসপি অফিস ঘেরাও হুশিয়ারি ব্যক্ত করেন এবং একই সাথে শাহাবাদ ইউনিয়নের প্রতিটি গ্রাম ও মহল্লায় শান্তি শৃংখলা বজায় রাখতে সম্মিলিতভাবে কাজ করার অঙ্গিকার ব্যক্ত করেন।

সম্প্রতি সময়ে অত্র এলাকায় ঘটে যাওয়া সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের সাথে জড়িত আসামীদের দ্রুত গ্রেফতার পূর্বক আইনের আওতায় আনার প্রতিশ্রুতি দেয় পুলিশ প্রশাসন।

উল্লেখ, নড়াইল পৌরসভার ভওয়াখালী গ্রামের মোস্তফা কামাল ওরফে কাহার মোস্ত জুড়–লিয়া গ্রামের হালিম কবিরাজ ও বিঞ্চুপুর গ্রামের বুলবুলকে হুকুম দিয়ে শাহাবাদ ইউনিয়নের চাঁনপুর গ্রামের রাম প্রসাদ সিংহের বাড়ি থেকে জোর করে তার (রাম প্রসাদ সিংহ) চেক বইয়ের একটি পাতা ছিনিয়ে নেয় এবং জোর করে স্বাক্ষর করিয়ে অগ্রণী ব্যাংক থেকে একলক্ষ টাকা তুলে নেয় এই মোস্তফা কামাল। পরে এই সংঘবদ্ধ দল জোর করে রাম প্রসাদ সিংহের নামে ৩৫০ টাকার ননজুডিশিয়াল স্ট্যাম্প কেনায় এবং ফাঁকা স্ট্যাম্পে করায়। এ ঘটনায় গত ১৩ সেপ্টেম্বর নড়াইল সদর থানায় অপহরণ, অবৈধ আটক, চাঁদাবাজীর মামলা করে রাম প্রসাদ সিংহ। মামলা নং-০১৬, ১৩/০৯/২০২১ইং।

অপরদিকে একই ইউনিয়নের বিঞ্চুপুর গ্রামের দ্বীন মোহাম্মদ মিয়াকে জুড়লিয়া গ্রামের হালিম কবিরাজ তার হাত-পা কেটে ফেলার হুমকি দেয়। হালিম কবিরাজ এর আগেও দ্বীন মোহাম্মদ মিয়ার মাছের ঘেরের থাকা লোকজনের ওপর নানা ধরণের ভয়-ভীতি প্রদর্শন করে আসছে। এ ধরণের ঘটনায় দ্বীন মোহাম্মদ মিয়ার পরিবার ও এলাকার লোকজনের জানমালের ক্ষতির আশংকা করে সে গত ১৬ সেপ্টেম্বর সদর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী করেন। ডায়েরী নং-৬৪৭।