‘ফেসবুকে আছে অনেকেই, রেড ক্রিসেন্ট ছাড়া মাঠে কেউ নেই’- কাজী লিটন

255

স্টাফ রিপোর্টার ॥ ‘এই যে দেখেন ফেসবুকে দেখি প্রচার-প্রচারণায় প্রচুর সংগঠন বলে যাচ্ছে আমরা মানুষের পাশে আছি, এটা শুধু প্রচারণার জন্য, বাট আমার চোখে কিন্তু একমাত্র বঙ্গবন্ধু স্কোয়ড যারা মানুষ মারা গেলে তাদের সৎকাজটা বা দাহ করতেছে এবং করবে শায়িত করছে। রেড ক্রিসেন্ট ছাড়া আর কোন প্রতিষ্ঠান আমার জানামতে আমি দেখি নাই, আমি মাঠে পাই নাই।,

সোমবার করোনায় আক্রান্ত শ্বাসকষ্টে থাকা রোগিদের জন্য বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি নড়াইল ইউনিটের জরুরি অক্সিজেন সিলিন্ডার সেবার আনুষ্ঠানিক উদ্বোধনের সময়ে বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট নড়াইল ইউনিটের সাধারণ সম্পাদক ও জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি কাজী ইসমাইল হোসেন লিটন এসব কথা বলেন।

সোমবার (০৫ জুলাই) বেলা ১১টায় নড়াইল রেড ক্রিসেন্ট ইউনিট কার্যালয়ে ‘করোনায় আক্রান্ত শ্বাসকষ্টে থাকা রোগিদের জন্য বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি নড়াইল ইউনিটের জরুরি অক্সিজেন সিলিন্ডার সেবার আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন নড়াইলের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হাবিবুর রহমান।

বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি নড়াইল ইউনিট ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট সোহরাব হোসেন বিশ্বাসের সভাপতিত্বে এ অনুষ্ঠানে অন্যান্যর মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, পুলিশ সুপার প্রবীর কুমার রায়, সিভিল সার্জন ডা. নাছিমা আক্তার, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট সুবাস চন্দ্র বোসসহ রেড ক্রিসেন্টের কর্মকুাবৃন্দ।

অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি জেলা প্রশাসক মোহাম্ম হাবিবুর রহমান বলেন, করোনার এই ভয়াবহ পরিস্থিতি মোকাবেলায় নড়াইলে আমরা অনেকেই কাজ করছি। এসময় জেলা প্রশাসক মাশরাফী বিন মোর্ত্তজার নড়াইল এক্সপ্রেস ফাউন্ডশনের সেবার কথা উল্লেখ করে বলেন, এ প্রতিষ্ঠানটি করোনার শুরু থেকে মানুষের পাশে থেকে সেবা দিয়ে যাচ্ছে এবং এ প্রতিষ্ঠানে প্রায় ৭৫ টির মতো অক্সিজেন সিলিন্ডার রয়েছে। যে কেউ এ সেবা গ্রহণ করতে পারবে। এইতমধ্যে আমরা প্রতিটি ইউনিয়নে ইউনিয়নে সরকারের সকল ধরনের প্রস্তুতিও রয়েছে।

রেডক্রিসেন্ট সোসাইটি নড়াইল ইউনিটের সাধারণ সম্পাদক ও জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি কাজী ইসমাইল হোসেন লিটন জানান, রেডক্রিসেন্ট নড়াইল ইউনিট এ মাসের ১ তারিখ থেকে কর্মহীন হয়ে পড়া শ্রমিক, দুস্থ, অসহায় মানুষের বাড়ি বাড়ি গিয়ে প্রতিদিন ৩শ থেকে ৬শ জনকে রান্না খাবার পৌঁছিয়ে দিচ্ছে আমাদের যুব রেড ক্রিসেন্ট সদস্যরা। তিনি আরো জানান, অস্ট্রেলিয়া রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির সাহায্যে আমরা এ রান্না করা খাবার বিতরণ করছি।