প্রতিবছর নড়াইল সদর হাসপাতাল সংস্কারের খরচ হয় কোটি টাকা,অথচ ছাদের পলেস্তরা ভেঙ্গে পড়ল ডাক্তারের মাথায়!

73

স্টাফ রিপোর্টার : সরেজমিনে হাসপাতাল ও সংশ্লিষ্টদের নিকট থেকে খোঁখবর নিয়ে জানাযায়, প্রতিবছর নড়াইল সদর আধুনিক হাসপাতাল সংস্কারের খরচ হয় কোটি কোটি টাকা। এই হাসপাতালে বর্তমান ১কোটির উর্দ্ধে সংস্কারের কাজ চলমান রয়েছে। ছাদের পলেস্তরা ভেঙ্গে বা ধসে পড়ে কারো জীবন যেতে পারে এমন ভাবনা নেই নির্মাণ কতৃৃপক্ষের। তারপরও চিকিৎসকরা জীবনের ঝুকি নিয়ে রোগিদের চিকিৎসা দিয়ে যাচ্ছেন।

সোমবার (২১ জুন) দুপুরে নড়াইল সদর হাসপাতালে এমন একটি দুর্ঘটনা ঘটে গেলো। এদিন দুপুর ১২টার দিকে হাসপাতালের ছাদের পলেস্তরা ডিউটিরত অবস্থায় মেডিকেল অফিসার ডা. সুতপা সাহার মাথায় পড়ে আহত হন। এ ঘটনায় ডা. সুতপা সাহার মাথায় ৪টি সেলাইও দেয়া হয়। জানাগেছে তিনি এখন আশংকামুক্ত রয়েছেন।

এদিকে হাসপাতাল সূত্রে আরো জানাগেছে, সোমবার সাড়ে ১২টার দিকে তিনি ১১০ নম্বর কক্ষে ডা. সুতপা সাহা আউটডোরের গাইনি রোগি দেখছিলেন। হঠাৎ করে ছাদ থেকে এক খন্ড পলেস্তরা মাথায় পড়ে মাথা ফেটে যায়। এ সময় তাকে দ্রুত অপারেশন থিয়েটারে নিয়ে চিকিৎসা প্রদান করা হয়। পরে তাকে ৭ নম্বর কেবিনে ভর্তি করা হয়। ঘটনার সময় এক রোগি চিকিৎসকের সামনে থাকলেও তার কোনো ক্ষতি হয়নি। এ ব্যাপারে সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. মশিউর রহমান বাবু বলেন, ডা. সুতপা সাহার অবস্থা এখন আশংকামুক্ত।

তিনি আরও বলেন, হাসপাতালটি পুরোনো হওয়ায় মাঝে মধ্যে পলেস্তরা খসে পড়ে। বিষয়টি বিভিন্ন সময় উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকেও জানানো হয়েছে।

প্রসঙ্গত, নড়াইল সদর হ্সাপাতালের বর্তমান ভবনটি ১৯৮৫ সালে নির্মিত হয়। নিন্মমানের কাজের কারনে ২০ বছর যেতে না যেতেই এ ভবনের পলেস্তরা খসে খসে পড়তে শুরু করে। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানান, মাঝে মধ্যেই হাসপাতালের বিভিন্ন কক্ষের ছাদের পলেস্তারা এভাবে খসে পড়ে। তবে আহত হবার ঘটনা এবারই প্রথম।